শপথের আগে কাশি বিশ্বনাথ মন্দিরে পূজা দিলেন মোদি

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৪:০৫, মে ২৭, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৪:০৭, মে ২৭, ২০১৯

আরেক দফায় প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ গ্রহণের আগে উত্তর প্রদেশের বারাণসীতে অবস্থিত কাশি বিশ্বনাথ মন্দিরে পূজা দিলেন বিজেপি নেতা নরেন্দ্র মোদি। এই বারাণসী তাকে আবারও লোকসভায় যাওয়ার সুযোগ করে দিয়েছে। শুধু তাই নয় গতবারের চেয়ে এবার এক লাখ বেশি ভোট পেয়েছেন মোদি। আর তাই নির্বাচনের ফল প্রকাশের পরেই জানিয়েছিলেন কাশির বাসিন্দাদের ধন্যবাদ জানাতে যাবেন। সে অনুযায়ী সোমবার বারাণসীতে গিয়ে কাশি বিশ্বনাথ মন্দিরে পূজা দেন মোদি।

হেলিকপ্টারযোগে প্রথমে শহরের পুলিশ লাইনে এসে অবতরণ করেন মোদি। সেখান থেকে সড়ক পথে যান মন্দিরে। তার সফর ঘিরে ব্যাপক নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়।

গতবার নির্বাচনে জেতার পর যেভাবে পূজা দিয়েছিলেন এবারও সেভাবেই পূজা দেন তিনি। অনুসারীরা যাতে পূজা দেখতে পান সেজন্য মন্দিরের বাইরে এলইডি স্ক্রিন বসানো হয়। বিজেপির পতাকায় ছেয়ে গেছে পুরো শহর।

মোদির সফর ঘিরে বারাণসীতে উৎসাহ ছিল চোখে পড়ার মতো। কাশী বিশ্বনাথ মন্দিরের পুরোহিত আচার্য অশোক সংবাদ সংস্থা এএনআই- কে বলেন, মোদি সেখানে গিয়ে পূজা দেওয়া তাদের জন্য সৌভাগ্যের বিষয়।

২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে এবং উত্তরপ্রদেশের বিধানসভা নির্বাচনে জিতেও একইভাবে পূজা দিয়েছিলেন তিনি। বাবা বিশ্বনাথের বড় ভক্ত নরেন্দ্র মোদি। পূজা শুরুর আগেই অশ্রুসিক্ত নয়নে ঈশ্বরকে স্মরণ করেন তিনি।

এবার এ এলাকা থেকে ৪ লাখ ৭৯ হাজার ভোটে জয়ী হয়েছেন মোদি। গতবারের চেয়ে এই ব্যবধানটা প্রায় এক লাখের মতো বেশি। নির্বাচনে জয়ের পরই জানিয়েছিলেন, কয়েকটি কাজ হয়ে গেলে গুজরাটে গিয়ে মা হীরাবেনের সঙ্গে দেখা করবেন। তারপর যাবেন বারাণসীতে। সে অনুযায়ী সোমবার সেখানে গিয়ে কাশি বিশ্বনাথ মন্দিরে পূজা দেন তিনি।

দ্বিতীয় মেয়াদে ভারতের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে বৃহস্পতিবার শপথ নেবেন মোদি। রাষ্ট্রপতি ভবনে ওই দিন সন্ধ্যা সাতটায় এই শপথ অনুষ্ঠিত হবে। টুইটারে এই তথ্য জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি রাম নাথ কোবিন্দ।

এর আগে শনিবার রাষ্ট্রপতি সঙ্গে সাক্ষাৎ কেন্দ্রে সরকার গঠনের দাবি জানিয়েছিলেন মোদি। বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট বৃহস্পতিবার ভোট গণনায় পেয়েছে ৩৫২টি আসন।

মোদির দ্বিতীয় সরকারের মন্ত্রিদের নাম এখনও প্রকাশ করা হয়নি। তবে রাষ্ট্রপতির টুইটে ইঙ্গিত পাওয়া গেছে, শপথ অনুষ্ঠানে মন্ত্রিরাও থাকতে পারেন। সরকারের পক্ষ থেকে শপথ অনুষ্ঠানের অতিথিদের নামও জানানো হয়নি। এর আগে ২০১৪ সালে প্রথম শপথ গ্রহণের সময় মোদি সার্কভুক্ত দেশগুলোর রাষ্ট্রনেতাদের আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন।

নতুন মন্ত্রিসভায় এবার মোদি ও বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ শপথ অনুষ্ঠানে নতুন মুখ নিয়ে আসতে পারেন। যদিও মোদি এখনও স্বরাষ্ট্র, অর্থ, পররাষ্ট্র ও প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব কাদের দেওয়া হবে সেই বিষয়ে কোনও ইঙ্গিত দেননি।

উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার ভারতের ৫৪৩ আসনের ১৭তম লোকসভা নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা করা হয়। এতে নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট ৩৫২ আসনে জয় নিয়ে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা পায়। শনিবার পার্লামেন্ট ভবনের সেন্টার হলে এনডিএ জোটের আইনপ্রণেতাদের ‌এক বৈঠকে নেতা নির্বাচিত হন নরেন্দ্র মোদি। পরে ওইদিন রাতেই তিনি জোটসঙ্গীদের নিয়ে রাষ্ট্রপতি রাম নাথ কোবিন্দের সাথে সাক্ষাৎ করে সরকার গঠনের দাবি করেন। পরে রাষ্ট্রপতি তাকে শপথ দিন নির্ধারণ ও মন্ত্রিসভার সদস্যদের নাম পাঠাতে বলেন।

/এমপি/

লাইভ

টপ