উত্তেজনা কমাতে বৈঠকে বসছেন পুতিন-থেরেসা মে!

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৯:২৩, জুন ১৭, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৯:৫৮, জুন ১৭, ২০১৯

রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ও যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে-এর মধ্যে একটি বৈঠকের কথা বিবেচনা করছে দুই দেশ। উভয় দেশের মধ্যকার উত্তেজনা কমানোর লক্ষ্যে সম্ভাব্য এ বৈঠকের কথা ভাবা হচ্ছে। এ মাসের শেষ দিকে জাপানে অনুষ্ঠিতব্য জি২০ সম্মেলনে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হতে পারে বলে প্রতীয়মান হচ্ছে। এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান।

যুক্তরাজ্যের সলসবারিতে পক্ষত্যাগী সাবেক রুশ গুপ্তচর সের্গেই স্ক্রিপাল ও তার কন্যা ইউলিয়াকে হত্যাচেষ্টার ঘটনায় রাশিয়ার সঙ্গে যুক্তরাজ্যের সম্পর্কে উত্তেজনা দেখা দেয়। ওই হত্যাচেষ্টার জন্য মস্কোকে দায়ী করে লন্ডন। ওই ঘটনায় সরাসরি রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে দায়ী করেন যুক্তরাজ্যের নিরাপত্তা বিষয়ক মন্ত্রী বেন ওয়ালেস। ওই হত্যাচেষ্টায় জড়িত সন্দেহে দুই রুশ নাগরিকের নামও প্রকাশ করেছে যুক্তরাজ্য। স্কটল্যান্ড ইয়ার্ড এবং ক্রাউন প্রসিকিউশন সার্ভিস (সিপিএস) জানিয়েছে, তাদের উভয়ের বিরুদ্ধেই সলসবারি হামলায় জড়িত থাকার অভিযোগ দায়েরের মতো ‘যথেষ্ট প্রমাণ’ রয়েছে।

আগামী ২৮ ও ২৯ জুন জাপানের ওসাকা শহরে অনুষ্ঠিত হবে এবারের জি২০ সম্মেলন। সম্মেলনের পুতিন-থেরেসা মে-র বৈঠক হলে তা হবে সলসবারি হামলার পর দুই নেতার প্রথম কোনও বৈঠক। ওই হামলার পর ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে দেশটির পার্লামেন্টকে বলেছিলেন, গোয়েন্দা তথ্য থেকে সরকার এ সিদ্ধান্তে উপনীত হয়েছে যে, হামলাকারী দুই রুশ নাগরিক রাশিয়ার সামরিক গোয়েন্দা বিভাগের কর্মকর্তা। যুক্তরাজ্যে তারা ছদ্মনাম ব্যবহার করেছে বলে প্রতীয়মান হচ্ছে। তবে রাশিয়ার পক্ষ থেকে এ ঘটনায় মস্কোর যোগসাজশ অস্বীকার করা হয়।

উল্লেখ্য, ২০১৮ সালের ৪ মার্চ সালসবেরি শহরের একটি বিপণিকেন্দ্রের বেঞ্চে সের্গেই স্ক্রিপাল এবং তার ৩৩ বছরের কন্যা ইউলিয়াকে অচেতন অবস্থায় পাওয়া যায়। পরে এ ঘটনায় ব্যবহৃত নার্ভ এজেন্টের সন্ধান পায় ব্রিটিশ কর্তৃপক্ষ। কন্যাকে নিয়ে সের্গেই স্ক্রিপাল যেখানে দুপুরের খাবার খেয়েছিলেন- জিজ্জি নামের সলসবেরির ওই পিজার দোকানেই তার স্নায়ুকে আঘাতকারী এই নার্ভ এজেন্টের খোঁজ মিলেছে। অন্তত পাঁচটি স্থানে ফরেনসিক তদন্ত চালানোর পর পিজার দোকানে এর সন্ধান মিলে। জিজ্জিতে দুপুরের খাবারের অন্তত দুঘণ্টা পর সাবেক ওই রুশ গুপ্তচর ও তার মেয়েকে অত্যন্ত সঙ্কটাপন্ন অবস্থায় কাছের একটি পার্ক থেকে উদ্ধার করা হয়। তাদের উদ্ধারে যাওয়া একজন পুলিশ কর্মকর্তাও গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন। সের্গেই স্ক্রিপাল এবং তার মেয়ে ইউলিয়া বেশ কিছুদিন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন।

সলসবারি হামলা ছাড়াও গত এপ্রিলে উত্তর ইউরোপের দেশ এস্তোনিয়ায় যুক্তরাজ্য পাঁচটি অ্যাপাচি হেলিকপ্টার মোতায়েন করলে রাশিয়ার সঙ্গে দেশটির সম্পর্কে আরও অস্বস্তি তৈরি হয়। কেননা, অঞ্চলটিতে রাশিয়ার হুমকি মোকাবিলায় এসব অত্যাধুনিক হেলিকপ্টার মোতায়েনের সিদ্ধান্ত নেয় ব্রিটিশ সরকার। ব্রিটিশ প্রতিরক্ষামন্ত্রী গেভিন উইলিয়ামসন বলেছেন, অঞ্চলটির পরিবর্তনশীল পরিস্থিতির সঙ্গে খাপ খাইয়ে নিতেই এ পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

বিশ্বের প্রায় এক ডজন দেশ অ্যাপাচি হেলিকপ্টার ব্যবহার করে। শুধু যুক্তরাষ্ট্রের কাছেই রয়েছে অন্তত ৮০০টি অ্যাপাচি হেলিকপ্টার। অপ্রতিরোধ্য মারণক্ষমতার জন্য এটিকে 'উড়ন্ত ট্যাংক' হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়। এই হেলিকপ্টারে রয়েছে ৩০০ মিমি কামান। সঙ্গে রয়েছে চেইন গান, যা মিনিটে ৬২৫ রাউন্ড গুলি ছুড়তে সক্ষম। সে ব্রিটিশ প্রতিরক্ষামন্ত্রী বলেছিলেন, রাশিয়ার দিক থেকে আমরা খুবই বিশ্বাসযোগ্য হুমকি দেখতে পাচ্ছি। এ অঞ্চলের ক্রমশ পরিবর্তনশীল পরিস্থিতির তাগিদেই এসব হেলিকপ্টার মোতায়েন করা হয়েছে। কেননা, এগুলো প্রতিপক্ষকে প্রতিরোধ করবে।

দুই দেশের সম্পর্কের এমন টানাপড়েনের মধ্যে শেষ পর্যন্ত ভ্লাদিমির পুতিন ও থেরেসা মে-এর মধ্যে বৈঠক অনুষ্ঠিত হলে সেদিকে নজর থাকবে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের।

/এমপি/

লাইভ

টপ