ইরানের ওপর মার্কিন নিষেধাজ্ঞা প্রতিহতের ঘোষণা রাশিয়ার

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৫:২৭, জুন ২৫, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৭:১৪, জুন ২৫, ২০১৯

ইরানের ওপর যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞাকে ‘অবৈধ’ উল্লেখ করে তা প্রতিহতের হুঁশিয়ারি দিয়েছে রাশিয়া। স্কাই নিউজ জানিয়েছে, একটি রুশ বার্তা সংস্থাকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই রিয়াবকোভ এই হুঁশিয়ারি দিয়েছেন। তবে নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হলে কী পদক্ষেপ নেওয়া হবে তা নিয়ে স্পষ্ট কিছু জানানো হয়নি।

সম্প্রতি ওয়াশিংটন-তেহরান ধারাবাহিক উত্তেজনার মধ্য দিয়ে মধ্যপ্রাচ্যে শুরু হয়েছে অস্থিরতা। কয়েক দিন আগেই সেখানে আরও ১ হাজার মার্কিন সেনা পাঠানোর ঘোষণা দিয়েছেন ট্রাম্প। ক’দিন আগে মার্কিন ড্রোন ‘আরকিউ-৪ গ্লোবাল হক’ ভূপাতিত করে ইরান। ওই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ইরানে সামরিক অভিযানের নির্দেশ দিয়েও তা প্রত্যাহার করে নেন। তবে ২২ জুন শনিবার ট্রাম্প টুইটারে জানিয়ে রেখেছিলেন, নতুন করে ইরানের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করতে যাচ্ছে তার প্রশাসন। সেই ঘোষণার ধারাবাহিকতায় সোমবার থেকে নতুন করে ইরানের সর্বোচ্চ নেতার দফতর ও সে দেশের সেনাবাহিনীর শীর্ষ কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়।

রাশিয়ার উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী রিয়াবকোভ বলেন, এই নিষেধাজ্ঞা শুধু উত্তেজনাই বৃদ্ধি করবে। তারচেয়ে ট্রাম্প প্রশাসনের ‍উচিত ইরানের সঙ্গে আলোচনায় বসা। সোমবার ক্রেমলিন মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ বলেন, আমরা এ অবরোধকে অবৈধ বিবেচনা করছি।

২০১৫ সালে যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপের দেশগুলোর সঙ্গে পরমাণু নিয়ন্ত্রণ বিষয়ক একটি চুক্তি স্বাক্ষর করে ইরান। বিনিময়ে দেশটির ওপর থেকে অর্থনৈতিক অবরোধ তুলে নেওয়া হয়। কিন্তু গত বছর ইউরোপীয় মিত্রদের বাধা সত্ত্বেও ওই চুক্তি থেকে বেরিয়ে যায় যুক্তরাষ্ট্র। পরে ইরানের ওপর তেল রফতানিসহ বিভিন্ন বিষয়ে একের পর এক অবরোধ আরোপ করে যুক্তরাষ্ট্র। সেখান থেকেই দুই দেশের মধ্যে চরম উত্তেজনার সূত্রপাত হয়।

সম্প্রতি ইরানের ওপর সাইবার হামলাও চালায় ‍যুক্তরাষ্ট্র। আর ইরানের নৌবাহিনী প্রধান গত সপ্তাহের ভূপাতিত ড্রোনের কথা মনে করিয়ে দিয়ে বলেন, তারা এমন ড্রোন ধ্বংস করতে সক্ষম। রিয়ার অ্যাডমিরাল হোসেন খানজাদি বলেন, ইরান জবাব দেওয়ার প্রস্তুত এবং শত্রুপক্ষ তা জানে।

ডোনাল্ড ট্রাম্প দাবি করেন, ড্রোন ভূপাতিতের জবাবে তারা বিমান হামলার পরিকল্পনা করেও পিছিয়ে আসে। কারণ, এতে ১৫০ মানুষের মৃত্যু হতে পারতো। তবে ওই স্থানে ৩০ জন আরোহী নিয়ে থাকা একটি গোয়েন্দা বিমান ধ্বংস না করায় ইরানের প্রশংসা করেন তিনি।

ব্রিটেনের মধ্যপ্রাচ্য বিষয়ক মন্ত্রী অ্যান্ড্রু মরিসন তেহরান সফরে গিয়ে বলেন, ওমানে ট্যাংকার বিস্ফোরণের দায় প্রায় তাদেরই।

ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র আব্বাস মৌসাভি এর প্রতিবাদ জানিয়ে বলেন, তার এই বক্তব্য গঠনমূলক ছিল না। তিনি বলেন, মনে হচ্ছে বেক্সিট নিয়ে অভ্যন্তরীণ সমস্যায় জর্জরিত ব্রিটেন এই ইস্যুতে যুক্তরাষ্ট্রের সহায়তা নিচ্ছে।

/এমএইচ/বিএ/এমওএফ/

লাইভ

টপ