ভারতে মুসলিম ব্যক্তিকে পিটিয়ে হত্যার দায়ে গ্রেফতার ১১

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৯:০০, জুন ২৫, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৯:৩৩, জুন ২৫, ২০১৯

ভারতে এক মুসলিম ব্যক্তিকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগে ১১ জনকে গ্রেফতার করেছে দেশটির পুলিশ। এছাড়া পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থ হওয়ায় দুই পুলিশকে বরখাস্তও করা হয়েছে।

সম্প্রতি ভারতের ঝাড়খণ্ডে চোর সন্দেহে তাবরেজ আনসারি নামে এক মুসলিম যুবককে পিটিয়ে হত্যা করা হয়। গত ১৮ জুন সরাইকেলা-খরসোঁয়া জেলার ধক্তিদি গ্রামের বেশ কয়েকজন ব্যক্তি প্রায় ১৮ ঘণ্টা ধরে পেটায় তাকে। এরপর রবিবার (২৩ জুন) ওই যুবক মারা যান। তাকে পেটানোর দৃশ্য ধারণ করা ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে।

সরাইকেলা পুলিশ প্রধান সার্থিক এস বলেন, আমরা ১১ জনকে গ্রেফতার করেছি। এছাড়া পরিস্থিতি মোকাবিলায় ব্যর্থ হওয়ায় এবং যথাসময়ে সিনিয়র কর্মকর্তাকে বিষয়টি অবহিত না করায় দুই পুলিশ সদস্যকে বরখাস্তও করা হয়েছে।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যমগুলো জানায়, আনসারির স্ত্রী অভিযোগ করেছেন তাকে হাসপাতালে নেওয়ার আগে কারাগারে নেওয়া হয়েছে।

সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ভিডিওতে দেখা যায়, পেটাতে পেটাতে যুবককে তার নাম জিজ্ঞেস করা হয়। পুরো নাম বলতে বলা হয়। উত্তর আসে, ‘‘তাবরেজ আনসারি। এরপরই নির্যাতনের মাত্রা বাড়ে। সে সময় তাকে ‘জয় শ্রীরাম’ বলার নির্দেশ দেয়া হয়।

অনেক পরে পুলিশ এসে তাবরেজকে উদ্ধার করে চুরির দায়ে কোর্টে তোলে। কোর্ট পাঠায় জেল হেফাজতে। পরে গতকাল শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় তাকে। সেখানে তিনি মারা যান।” সমাজকর্মীদের অভিযোগ, হাজতে মৃত্যুর পরেই হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল তাকে।

এর আগেও সংখ্যালঘুদের ওপর এমন নিপীড়নের অভিযোগ উঠেছে ভারতে। মার্কিন ধর্মীয় স্বাধীনতা বিষয়ক প্রতিবেদনেও উঠে এসেছে এর প্রতিফলন। ভারতের বিরোধী দলগুলোরও অভিযোগ, এসব ঘটনা মোকাবিলায় সরকার যথার্থ পদক্ষেপ নেয় না।

ভারতের সংখ্যালঘু বিষয়কমন্ত্রী মুখতার আব্বাস নাকভি এই হত্যাকাণ্ডের নিন্দা জানিয়ে বলেন, যারা এই কাজ করেন তাদের একটাই উদ্দেশ্য। তা হচ্ছে সরকারের তৈরি করা শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বিনষ্ট করা।

 

 

/এমএইচ/এমওএফ/

লাইভ

টপ