দ. কোরিয়ার আকাশসীমা লঙ্ঘন করায় দুঃখ প্রকাশ করেছে রাশিয়া: সিউল

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১২:১২, জুলাই ২৪, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৪:২২, জুলাই ২৪, ২০১৯

সিউলের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, দক্ষিণ কোরিয়ার আঞ্চলিক আকাশসীমায় রাশিয়ার অনধিকার প্রবেশ উদ্দেশ্যমূলক ছিল না। বুধবার প্রেসিডেন্টের কার্যালয়ের ওই কর্মকর্তা বলেন, এই ঘটনায় দক্ষিণ কোরিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের কাছে গভীর দুঃখ প্রকাশ করেছেন রাশিয়ার এক সামরিক কর্মকর্তা। সিউলের দাবি, এই ঘটনার জন্য প্রযুক্তিগত ত্রুটিকে দায়ী করেছে রাশিয়া। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি জানিয়েছে, এখনও এই বিষয়ে কিছুই জানায়নি মস্কো। এর আগে সিউলের অভিযোগ জোরালোভাবে প্রত্যাখ্যান করে তারা।দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্টের কার্যালয়ের কর্মকর্তা ইয়োন দো-হান

মঙ্গলবার চীনের সঙ্গে প্রথমবারের মতো যৌথ বিমান টহল চালানোর কথা জানায় রাশিয়া। জাপান সাগর ও পূর্ব চীন সাগরের পূর্ব পরিকল্পিত একটি রুটে চারটি বোমারু বিমানের টহলে সহায়তা দেয় যুদ্ধবিমান। দক্ষিণ কোরিয়া দাবি করে বিতর্কিত দোকদো/তাকেশিমা দ্বীপের আকাশে অনধিকার প্রবেশ করে রুশ বিমান। দক্ষিণ কোরিয়ার দখলকৃত এই অঞ্চলটির কর্তৃত্ব জাপানও দাবি করে থাকে। সিউল দাবি করে, মঙ্গলবার সকালে একটি রুশ যুদ্ধবিমান দুইবার তাদের আঞ্চলিক আকাশসীমা লঙ্ঘন করেছে। রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জোরালোভাবে এই দাবি প্রত্যাখ্যান করে।

বুধবার দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্টের কার্যালয়ের কর্মকর্তা ইয়োন দো-হান এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, মস্কোর তরফে সিউলকে জানানো হয়েছে আকাশসীমা লঙ্ঘনের ঘটনায় খুব দ্রুত একটি তদন্ত শুরু করবে রাশিয়া। এছাড়া এই বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলেও জানানো হয়েছে। ওই কর্মকর্তা বলেন রাশিয়া আন্তর্জাতিক আইনের পাশাপাশি কোরিয়ার অভ্যন্তরীণ আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। ওই অনধিকার প্রবেশ উদ্দেশ্যমূলক ছিল বলে জানিয়ে ওই কর্মকর্তা আশা প্রকাশ করেন, এই ঘটনার পরও দক্ষিণ কোরিয়ার সঙ্গে সম্পর্ক অব্যাহত রাখবে রাশিয়া।

তবে রাশিয়ার তরফ থেকে সিউলের অভিযোগ প্রত্যাখ্যানের পর নতুন করে এখন পর্যন্ত কোনও কিছু জানানো হয়নি। বিবিসি’র খবরে বলা হয়েছে, বুধবার চীনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, যৌথ টহলের কোনও বিমান কোনও দেশের আঞ্চলিক আকাশসীমায় প্রবেশ করেনি। 

/জেজে/এমএমজে/

লাইভ

টপ