সৌদি রাজার সঙ্গে ফোনালাপ এরদোয়ানের

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১১:০৯, আগস্ট ০১, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৯:০৭, আগস্ট ০১, ২০১৯

সৌদি আরবের রাজা সালমান বিন আবদুল আজিজ আল সৌদের সঙ্গে কথা বলেছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোয়ান। বুধবার রাতে ফোনে কথা হয় দুই নেতার। ফোনালাপে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক এবং আঞ্চলিক নানা বিষয়ে কথা বলেন দুই নেতা। এ সময় সৌদি রাজার ভাই বন্দর বিন আবদুল আজিজ আল সৌদের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট। এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে তুরস্কভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আনাদোলু এজেন্সি।
ইস্তানবুলের সৌদি কনস্যুলেটে সাংবাদিক জামাল খাশোগির নৃশংস হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় দুই দেশের সম্পর্কে অস্থিরতা তৈরি হয়। এ বছরের জানুয়ারিতে তুরস্ক জানায়, তারা খাশোগি হত্যাকাণ্ডের আন্তর্জাতিক তদন্ত চালাতে প্রস্তুত রয়েছে।

২০১৮ সালের ২ অক্টোবর ইস্তানবুলের সৌদি কনস্যুলেটে নৃশংস হত্যাকাণ্ডের শিকার হন সাংবাদিক জামাল খাশোগি। খুনের নির্দেশদাতা হিসেবে আঙুল ওঠে খোদ সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের বিরুদ্ধে। সৌদি আরবের পক্ষ থেকে প্রথমে এ হত্যাকাণ্ডের খবর অস্বীকার করা হয়। পরে আন্তর্জাতিক চাপের মুখে হত্যাকাণ্ডের ঘটনা স্বীকার করলেও এর সঙ্গে যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের সম্পৃক্ততার খবর অস্বীকার করা হয়। ওই ঘটনায় দুনিয়াজুড়ে সমালোচনার মুখে পড়েন এমবিএস নামে পরিচিত সৌদি যুবরাজ। তুরস্কের মাটিতে খাশোগি খুন হয়েছেন বলে তুর্কি কর্মকর্তারা ঘাতক বাহিনীর সদস্যদের বিচারের জন্য আঙ্কারার হাতে সোপর্দ করার আহ্বান জানালেও সৌদি আরবের পক্ষ থেকে তা প্রত্যাখ্যান করা হয়েছে।

খাশোগি হত্যাকাণ্ড নিয়ে অস্বস্তি ছাড়াও সৌদি জোটের কাতারবিরোধী অবরোধ বলতে গেলে প্রায় একাই ভণ্ডুল করে দেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোয়ান। এ অবরোধকে অমানবিক ও ইসলামবিরোধী আখ্যায়িত করেন তিনি। এ ঘটনায় আঙ্কারার ওপর ক্ষুব্ধ হয় রিয়াদ। ২০১৮ সালের এপ্রিলে মিসরের কয়েকটি সংবাদমাধ্যমের সম্পাদকদের সঙ্গে সৌদি যুবরাজের এক বৈঠকে এ ক্ষোভের বিষয়টি প্রকটভাবে দৃশ্যমান হয়। ওই বৈঠকে তুরস্ক, ইরান ও মধ্যপ্রাচ্যের ইসলামপন্থী গোষ্ঠীগুলোকে ‘শয়তানের ত্রিভুজ’ হিসেবে আখ্যায়িত করেন এমবিএস নামে পরিচিত সৌদি যুবরাজ। সূত্র: আনাদোলু এজেন্সি, আল জাজিরা।

/এমপি/এমওএফ/

লাইভ

টপ