রাখাইনে সেনা সদস্যের গুলিতে অন্তঃসত্ত্বা নারীসহ আহত ২

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৮:৩০, আগস্ট ০২, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৮:৩৩, আগস্ট ০২, ২০১৯

মিয়ানমারের রাখাইনে পৃথক দুটি ঘটনায় দেশটির সেনা সদস্যদের গুলিতে অন্তঃসত্ত্বা নারীসহ দুই ব্যক্তি আহত হয়েছেন। আহতদের পরিবারের পক্ষে জানানো হয়, বুধবার রাজ্যের সংঘাত জর্জরিত এলাকার মাহামুনি ও তাইয়ে তাবিন গ্রামে তারা গুলিবিদ্ধ হন। অভিযোগ রয়েছে, দুই গ্রামের মাঝে প্যাগোডার কাছে তাদেরকে গুলি করে সেনারা। মিয়ানমারের সংবাদমাধ্যম ইরাবতী এ খবর জানিয়েছে।

খবরে বলা হয়েছে, তাইয়ে তাবিন গ্রামের অধিবাসী ২৫ বছর বয়সী ক কাউ থেটথুন মাহা মিয়াট মুনি মন্দিরের কাছে গুলিবিদ্ধ হন। তার দাদা সেখানকার প্যাগোডা ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান।

আহতের বাবা উ মং ফাইউ বলেন, ‘আমার ছেলে মোটর সাইকেলে করে ওষুধ ও কাপড়  নিয়ে মাহা মাইয়েট মুনি প্যাগোডায় দাদার কাছে যাচ্ছিল। প্যাগোডার পশ্চিম গেটে সেনারা তাকে গুলি করে। তবে আমরা কারণটা জানি না।’

পৃথক ঘটনায় মা আয়ে আয়ে মিইন্ট (২৪) নামে এক অন্তঃসত্ত্বা নারী তার বাড়িতে গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। মিয়ানমারের সংবাদমাধ্যম ইরাবতীকে এমনটাই জানিয়েছে তার স্বামী ক জও জও।

আহতের স্বামী বলেন, ৩১ জুলাই বিকাল ৫টা থেকে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা পর্যন্ত গুলির শব্দ শুনতে পাই। পরে আমরা ভেবেছিলাম সংঘর্ষ শেষ হয়েছে, এজন্য আমরা রাতের খাবারের জন্য প্রস্তুতি নেই। তখন প্যাগোডা এলাকা থেকে বাড়ির দিকে গুলি ছোড়ে সেনারা। আমরা মেঝেতে শুয়ে পড়ি। আমার স্ত্রী অন্তঃসত্ত্বা হওয়ায় তা তিনি করতে পারেননি। তখন তিনি গুলিবিদ্ধ হন। পরে তাদের দুইজনকে স্থানীয় একটি হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে।

সংবাদমাধ্যম ইরাবতী কাইউকতাউ টাউনশিপ প্রশাসন বা পুলিশ প্রধানের সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে যোগাযোগ করতে পারেননি।

মিয়ানমার সেনাবাহিনীর পশ্চিমাঞ্চলীয় কমান্ডের মুখপাত্র কর্নেল  উইন জও উ বলেছেন, মাহা মিইয়াট মুনি প্যাগোডার উত্তরের বাঁধে কাছে একটা সংঘর্ষ হয়েছে, কিন্তু প্যাগোডায় কোনও সংঘর্ষ হয়নি। তবে স্থানীয়রা দাবি করছে, সেনারা এ গ্রামে বিনা উসকানিতে গুলি চালিয়েছে।

সেনাবাহিনী ও সশস্ত্র বিদ্রোহী গোষ্ঠী আরাকান আর্মির সংঘর্ষের কারণেই রাখাইনে ৫০ হাজারের বেশি মানুষ বাস্তুচ্যুত হয়েছে। রাখাইনের জাতিগত কংগ্রেসের তথ্য অনুযায়ী, গত বছরের শেষের দিকে সংঘর্ষ ছড়িয়ে পড়লে আট রোহিঙ্গাসহ ৭১ জন নিহত হয়েছে। এছাড়া আহত হয়েছে ৫৩ জন, ৯ জন নিখোঁজ এবং ১৫৬ জন বন্দি হয়।

 

/এইচকে/এএ/

লাইভ

টপ