কাশ্মিরে আংশিক চালু টেলিফোন ও মোবাইল ইন্টারনেট

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৪:৪৮, আগস্ট ১৭, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৪:৪৯, আগস্ট ১৭, ২০১৯

ভারত নিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাশ্মিরে টানা ১২ দিনের শাটডাউন পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি হতে শুরু করেছে। শনিবার স্থানীয় কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, উপত্যকার প্রায় ৫০ হাজারের বেশি টেলিফোন লাইন সচল হয়েছে এবং পাঁচ জেলার মোবাইল ইন্টারনেট পুনরায় চালু হয়েছে। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি এ খবর জানিয়েছে।

৪ আগস্ট থেকেই জম্মু-কাশ্মিরে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা ও নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়। বন্ধ করে দেওয়া হয় টেলিফোন ও মোবাইল ইন্টারনেট। অতিরিক্ত মোতায়েনের মাধ্যমে নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে ফেলা হয় পুরো উপত্যকা। এমন পরিস্থিতিতেই ৫ আগস্ট ভারতীয় সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ বাতিলের মধ্য দিয়ে কাশ্মিরের স্বায়ত্তশাসনের অধিকার ও বিশেষ মর্যাদা কেড়ে নেয় বিজেপি নেতৃত্বাধীন দেশটির কেন্দ্রীয় সরকার। লাদাখ ও কাশ্মিরকে দুটি পৃথক কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে পরিণত করতে পার্লামেন্টে বিল আনা হয়। বিরোধীদের ঐক্যবদ্ধ বিরোধিতার অভাবে ভারতের লোকসভা ও রাজ্যসভা—দুই কক্ষেই পাস হয়ে যায় বিলটি। 

জম্মু- কাশ্মিরের বিশেষ মর্যাদা বাতিলের আগে থেকেই আরোপ করা নিষেধাজ্ঞা প্রায় দুই সপ্তাহ পর আংশিক প্রত্যাহার করা হলো। ভারতী সংবাদমাধ্যমের দাবি, এর মধ্যদিয়ে কাশ্মিরের পরিস্থিতি স্বাভাবিক হতে শুরু করেছে। যদিও কাশ্মিরের শতাধিক টেলিফোন এক্সচেঞ্জের মধ্যে মাত্র সতেরোটি চালু করা হয়েছে শনিবার। মধ্য কাশ্মিরের বদগাম, সোনামার্গ এবং মণিগাম অঞ্চলে ল্যান্ডলাইন পরিষেবাগুলি পুনরায় চালু করা হয়েছে। উত্তর কাশ্মিরের গুরেজ, টাঙ্গমার্গ, উরি কেরান কর্নাহ এবং তাংধর অঞ্চলে পরিষেবাগুলি চালু হয়েছে। এছাড়া শ্রীনগরের, নাগরিকদের বসবাসের স্থান, ক্যান্টনমেন্ট এলাকা এবং বিমানবন্দর এলাকায় ল্যান্ডলাইনগুলি ফের চালু হয়েছে।

ইতোমধ্যে জম্মু অঞ্চলের পাঁচটি জেলায় মোবাইল ইন্টারনেট সংযোগ সচল হয়েছে। এই অঞ্চলগুলোর মধ্যে জম্মু, রিয়াসি, সাম্বা, কাঠুয়া এবং উধমপুর জেলাগুলিতে টু জি মোবাইল ইন্টারনেট পরিষেবা ফিরে এসেছে।

এনডিটিভি জানায়, বিধিনিষেধ কমিয়ে আনার জন্য প্রশাসনের নেওয়া পদক্ষেপগুলির ফলে রাজ্যের সরকারি দফতরগুলি  ধীরে ধীরে পুরোপুরি চালু হচ্ছে। শুক্রবার জম্মু-কাশ্মিরের মুখ্য সচিব বিভিআর সুব্রহ্মণ্যম জানিয়েছেন, আগামী সপ্তাহ থেকেই স্থানীয় স্কুলগুলি অঞ্চল অনুযায়ী চালু হবে এবং পর্যায়ক্রমে টেলিফোন পরিষেবাও সচল হবে।

শুক্রবার সুপ্রিম কোর্টকে কেন্দ্র সরকার জানিয়েছে, প্রতিদিন জম্মু-কাশ্মিরের পরিস্থিতি পর্যালোচনা করা হচ্ছে।

এর আগে নিরাপত্তা বজায় রাখার স্বার্থে কাশ্মির উপত্যকায় ফোন পরিষেবা এবং ইন্টারনেট সংযোগগুলি স্থগিত করা হয় এবং কারফিউ-এর মতো বিধিনিষেধ চালু করা হয়। উপত্যকার প্রায় ৪০০ জন রাজনৈতিক নেতা এখনও আটক রয়েছেন। পাশাপাশি দুই সাবেক মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতি ও ওমর আবদুল্লাকে গ্রেফতারও করা হয়েছে।

 

 

/এএ/

লাইভ

টপ