কাশ্মির ইস্যুতে উত্তেজনা হ্রাসের তাগিদ ট্রাম্পের

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৭:২৬, আগস্ট ১৭, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২২:৩৭, আগস্ট ১৭, ২০১৯

অধিকৃত কাশ্মির ইস্যুতে পাকিস্তান ও ভারতের মধ্যকার উত্তেজনা হ্রাসের তাগিদ দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। শুক্রবার পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সঙ্গে এক ফোনালাপে তিনি এ তাগিদ দেন। হোয়াইট হাউসের বরাত  দিয়ে এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক সংবাদমাধ্যম দ্য হিল।
হোয়াইট হাউসে ট্রাম্পের সঙ্গে ইমরান খানের বৈঠকের এক মাসের মাথায় শুক্রবার ফোনে কাশ্মির পরিস্থিতি নিয়ে কথা বলেন দুই নেতা। হোয়াইট হাউসের ডেপুটি প্রেস সেক্রেটারি হোগান গিডলে এক বিবৃতিতে বলেন, দ্বিপাক্ষিক সংলাপের মাধ্যমে জম্মু-কাশ্মীরকে কেন্দ্র করে সৃষ্ট উত্তেজনা হ্রাসের ওপর গুরুত্বারোপ করেছেন ট্রাম্প।

হোয়াইট হাউসের বিবৃতিতে বলা হয়, ফোনালাপে দুই নেতা যুক্তরাষ্ট্র ও পাকিস্তানের মধ্যকার ক্রমবর্ধমান সম্পর্ক আরও বাড়িয়ে তোলার উপায় নিয়ে আলোচনা করেন।

জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে কাশ্মির ইস্যু নিয়ে আলোচনার আগ মুহূর্তে দুই নেতার মধ্যে এ ফোনালাপ অনুষ্ঠিত হয়। এক সংবাদ সম্মেলনে এ নিয়ে কথা বলেছেন পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কোরেশি। তিনি বলেন, কাশ্মির পরিস্থিতিতে এই অঞ্চলের অবস্থা নিয়ে ট্রাম্পের সঙ্গে কথা বলেছেন ইমরান খান।

এই ফোনালাপ এমন সময়ে অনুষ্ঠিত হলো যখন পাকিস্তান ও ভারতের সীমান্তে গোলাগুলিতে ৩ পাকিস্তানি ও ৬ ভারতীয় সেনা নিহতের খবর পাওয়া গেছে। এছাড়া এদিনই ভারত অধিকৃত কাশ্মির ইস্যুতে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে চীনের আহ্বানে রুদ্ধদ্বার বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, ট্রাম্প-ইমরানের আলোচনায় আফগানিস্তান পরিস্থিতি, তালেবানের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের আলোচনাও স্থান পেয়েছে।

গত জুলাই মাসে ইমরান খানের সঙ্গে বৈঠকে ট্রাম্প দাবি করেছিলেন, কাশ্মির বিরোধ সমাধানে মধ্যস্থতা করতে ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি তাকে অনুরোধ করেছেন। তবে ভারত সরকার এই দাবি অস্বীকার করেছে।

গত ৫ আগস্ট ভারতীয় সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ বাতিলের মধ্য দিয়ে কাশ্মিরের স্বায়ত্তশাসনের অধিকার ও বিশেষ মর্যাদা কেড়ে নেয় বিজেপি নেতৃত্বাধীন ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার। ওই দিন থেকে কার্যত অচলাবস্থার মধ্যে রয়েছে কাশ্মির। মোবাইল-ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধ করে সেখানকার জনশূন্য রাস্তায় টহল দিচ্ছে সশস্ত্র সেনারা। ভারত সরকারের এই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে কূটনৈতিক সম্পর্ক হ্রাসসহ ইসলামাবাদে নিযুক্ত ভারতীয় দূতকে বহিষ্কার করেছে পাকিস্তান। স্থগিত করা হয়েছে সব বাণিজ্য চুক্তি ও পরিবহন যোগাযোগ।

পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত কাশ্মিরের পার্লামেন্টে এক ভাষণে ইমরান খান বলেছেন, দিল্লির যে কোনও ভুল পদক্ষেপের সমুচিত জবাব দেওয়া হবে। পাকিস্তানের সেনাবাহিনী যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত আর ভারতের যে কোনও লঙ্ঘনের জবাব দেওয়ার জন্য তৈরি রয়েছে। পুরো জাতি তৈরি রয়েছে আর তারা সশস্ত্র বাহিনীর পাশে দাঁড়াবে। সূত্র: দ্য হিল, ডন, রয়টার্স।

/এমপি/

লাইভ

টপ