জম্মুতে বিশ্ব হিন্দু পরিষদের র‍্যালি, বন্ধ মোবাইল ও ইন্টারনেট সংযোগ

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১০:৫৬, আগস্ট ১৯, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১০:৫৭, আগস্ট ১৯, ২০১৯

ভারত অধিকৃত জম্মু-কাশ্মিরের জম্মুতে বাইক র‍্যালি করেছে দেশটির হিন্দুত্ববাদী সংগঠন বিশ্ব হিন্দু পরিষদ (ভিএইচপি)। দলটির যুব সংগঠন বজরং দল-ও এ বিক্ষোভে অংশ নেয়। এদিকে এ বিক্ষোভের জেরে উপত্যকায় নতুন করে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে মোবাইল ও ইন্টারনেট সংযোগ। রবিবার এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি।
কাশ্মিরের স্বায়ত্তশাসন বাতিল করে রাজ্যটিকে ভেঙে দুই টুকরো করার ঘটনায় কয়েকদিন বেশ থমথমে ছিল উপত্যকা। গত ৫ আগস্ট থেকে ১৮ আগস্ট পর্যন্ত অন্তত চার হাজার মানুষকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃতদের বেশিরভাগকেই কাশ্মিরের বাইরে নিয়ে যাচ্ছে। কারণ সেখানকার কারাগারগুলোতে বন্দি ধারণের আর কোনও জায়গা নেই। উপত্যকার রাস্তায় রাস্তায় নজরদারি চালাচ্ছে ভারতীয় নিরাপত্তা বাহিনীর হাজার হাজার সদস্য। নাগরিকদের সাধারণ চলাচলের ওপরও বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে। তবে গত কয়েকদিন ধরে জম্মুর পরিস্থিতি শান্ত ছিল। ফলে সেখানে সরকারি বিধিনিষেধ কিছুটা শিথিল করা হয়। টেলিফোন থেকে ইন্টারনেট পরিষেবা পেতে শুরু জম্মুর পাঁচ জেলার মানুষ। তবে বিশ্ব হিন্দু পরিষদের র‍্যালিকে কেন্দ্র করে রবিবার ফের বন্ধ করে দেওয়া হয় ইন্টারনেট পরিষেবা। বিভিন্ন স্থানে বন্ধ করে দেওয়া টেলিফোন সংযোগও।

প্রশাসনের দাবি, যান্ত্রিক কারণে এমন পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। তবে জম্মুর বাসিন্দারা এনডিটিভি-কে জানিয়ছেন, উগ্র হিন্দুত্ববাদী সংগঠনটির বাইক ব়্যালিকে কেন্দ্র করেই এমন পদক্ষেপ নিয়েছে মোদি সরকার। তাদের ওই র‍্যালির জেরে মুসলিমরা যেন কোনও প্রতিক্রিয়া বা বিক্ষোভ দেখাতে না পারে সেজন্যই মোবাইল ও ইন্টারনেট সংযোগ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ৫ আগস্ট ভারত অধিকৃত কাশ্মিরের সায়ত্তশাসন বাতিল করে অঞ্চলটিকে দুই টুকরো করে দেয় দিল্লি। ওই দিন সকাল থেকে কার্যত অচলাবস্থার মধ্যে নিমজ্জিত হয় দুনিয়ার ভূস্বর্গ খ্যাত কাশ্মির উপত্যকা। জম্মু-কাশ্মিরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতির মেয়ে ইলতিজা জাভেদ-এর ভাষায়, ‘বাকি দেশ যখন ভারতের স্বাধীনতা দিবস উদযাপন করছে তখন কাশ্মিরিরা খাঁচার প্রাণীর মতো বন্দি রয়েছে। বঞ্চিত হচ্ছে মৌলিক মানবাধিকার থেকে।’

/এমপি/

লাইভ

টপ