১৬ বছর ধরে ধর্ষণ করেছে বাবা, এবার বোনকে বাঁচাতে রুখে দাঁড়ালো তরুণী

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৪:০৩, আগস্ট ২১, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৭:৪৪, আগস্ট ২১, ২০১৯

মেয়েটির বয়স যখন ছয় বছর, তখন থেকেই নিজের বাবার লালসার শিকার সে। এভাবেই কেটে গেছে ১৬ বছর। এরমধ্যে বাবার ধর্ষণের কারণে বারবার গর্ভবতী হয়ে পড়ে সে। প্রতিবারই পিল খাইয়ে গর্ভপাত করিয়ে দেয় মা। নিজের সঙ্গে ঘটে চলা এই নারকীয় অত্যাচারকে ভবিতব্য হিসেবেই মেনে নিয়েছিল মেয়েটি। কিন্তু বাবা যখন এবার ছোট বোনের দিকে হাত বাড়ালো, তখন আর চুপ করে থাকতে পারেনি সে। নিজেকে বাঁচাতে যা পারেনি, ছোট বোনকে বাঁচাকে তা-ই করলো ২২ বছরের মেয়েটি। বাবার পৈশাচিকতার বিরুদ্ধে পুলিশের দ্বারস্থ হয় সে। এরপর থেকে অভিযুক্ত ৪৪ বছরের ওই ব্যক্তি পলাতক রয়েছে। স্বামীর অপরাধে মদত দেওয়ায় তার ৪২ বছরের স্ত্রীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ভারতের লক্ষ্মৌতে এ ঘটনা ঘটেছে। 
ছয় বছর বয়স থেকে নিজ পিতার হাতে ধর্ষিত হওয়া শুরু করে ওই তরুণী। তার ছোট বোনের বয়স ১৪ বছর। মেয়েটি জানায়, কিছুদিন ধরেই বাবা তাকে দফায় দফায় যৌন হয়রানি করছিল। কিন্তু প্রতিবারই দিদি তাকে ধর্ষিত হওয়ার থেকে বাঁচিয়ে দিতো। ১৮ বছর ও ৮ বছরের দুই ভাই, বাড়ির ভাড়াটিয়া ও কয়েকজন আত্মীয় পুরো বিষয়টি জানলেও কেউ কখনও প্রতিবাদ করেনি।

ধর্ষণের শিকার দুই বোন ইতোমধ্যে ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে জবানবন্দি দিয়েছে।

ভিকটিম ছোট বোন জানিয়েছে, গত তিন বছর ধরেই তাকে যৌন হয়রানি করতো বাবা। কিন্তু প্রতিবারই বড় বোন তাকে ধর্ষিত হওয়ার হাত থেকে বাঁচিয়ে দেয়। সম্প্রতি তাদের বাবা আরও আগ্রাসী হয়ে ওঠে। এমনকি যৌনতা বিষয়ক চিঠিও লিখতে শুরু করে সে।

স্থানীয় থানার এসএইচও (স্টেশন হাউস অফিসার) শচিন সিং জানান, অভিযুক্তের বিরুদ্ধে ধর্ষণ, সম্মতি ছাড়া গর্ভপাত ও ভীতি প্রদর্শনের অভিযোগ আনা হয়েছে। সূত্র: দ্য টাইমস অব ইন্ডিয়া।

/এমপি/এমএমজে/

লাইভ

টপ