বাংলাদেশি অধ্যুষিত পূর্ব লন্ডন কাউন্সিলের বিরুদ্ধে বর্ণবাদের অভিযোগে মামলা

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ২০:৩৩, আগস্ট ২৩, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২০:৩৬, আগস্ট ২৩, ২০১৯

যুক্তরাজ্যের পূর্ব লন্ডন কাউন্সিলের বিরুদ্ধে বর্ণ ও লিঙ্গবিরোধী মামলা দায়ের করেছেন দুর্নীতিবিরোধী এক তদন্তকারী। তার অভিযোগ শ্বেতাঙ্গ হওয়ায় তাকে বাংলাদেশি অধ্যুষিত পূর্ব লন্ডনের কাউন্সিল থেকে বরখাস্ত করা হয়েছে। মার্ক এডমুন্ডস নামের ওই তদন্তকারী পূর্ব লন্ডনের এমপ্লয়মেন্ট ট্রাইব্যুনালে ৫ লাখ ২৯ হাজার ব্রিটিশ পাউন্ড ক্ষতিপূরণ চেয়ে এই মামলা করেছেন। ওই কাউন্সিলের বেশিরভাগকর্মী ব্রিটিশ-বাংলাদেশি। এডমুন্ডস-এর অভিযোগ, তিনি যখন তদন্ত পরিচালনা করছিলেন তখন তাকে ভয় দেখানো হয়েছে।

পূর্ব লন্ডনের এমপ্লয়মেন্ট ট্রাইব্যুনালে দেওয়া সাক্ষ্যে মার্ক এডমুন্ডস বলেছেন, তাকে অনাবশ্যক বানিয়ে কার্যকরভাবে বরখাস্ত করা হয়। কারণ তিনি একজন ‘শ্বেতাঙ্গ হয়ে প্রধানত বাংলাদেশি কর্মীদের বিরুদ্ধে তদন্ত কাজ করছিলেন। অথচ বাংলাদেশি কর্মীদের বিরুদ্ধেই দুর্নীতির অভিযোগ ছিল’।

পূর্ব লন্ডনের এই কাউন্সিলের অখ্যাতির ইতিহাস রয়েছে। ২০১০ সালে এই কাউন্সিলে ব্রিটেনের প্রথম বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত মেয়র নির্বাচিত হয়েছিলেন লুৎফর রহমান। ২০১৪ সালে পুননির্বাচনে জালিয়াতির দায়ে আদালত তাকে বরখাস্ত করে। তবে এই অভিযোগ সবসময়ই অস্বীকার করেছেন তিনি। এই কাউন্সিল ব্যবস্থার মধ্যে জালিয়াতির মারাত্মক অভিযোগ ওঠায় তদন্ত করেন মার্ক এডমুন্ডস। তার তদন্তের কারণে বেশ কয়েকজন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত কর্মীকে বরখাস্ত করা হয়।

ট্রাইব্যুনালে দেওয়া সাক্ষ্যে তিনি বলেন, আমার তদন্তের ইতিহাস তুলে ধরে হুমকি আর ভয় দেখানো চরম বাস্তব ও মারাত্মক ছিল। তিনি আরও বলেন, ‘এর সঙ্গে যখন আমি তদন্ত চালাই তখন নিয়মিতভাবে আমার বিরুদ্ধে বর্ণবাদের অভিযোগ ও হয়রানি করা হয়েছে। আমি যখন কাজ করছিলাম তখন আমাকে ভয় দেখানো ও তদন্তকে ভুল পথে নিতে এসব করা হয়েছে’।

টাওয়ার হ্যামলেটসের আইনজীবীরা মার্ক এডমুন্ডসের অভিযোগের যথার্থতাকে চ্যালেঞ্জ করেছেন। এই মামলার শুনানি অব্যাহত রয়েছে, কয়েক সপ্তাহের মধ্যে তা শেষ হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

 

/জেজে/এএ/

লাইভ

টপ