লন্ডনে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত তাফিদার চিকিৎসা নিশ্চিতের দাবিতে সমাবেশ বৃহস্পতিবার

Send
মুনজের আহমদ চৌধুরী, লন্ডন
প্রকাশিত : ১৬:৪৪, সেপ্টেম্বর ১০, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৭:৫৯, সেপ্টেম্বর ১০, ২০১৯

যুক্তরাজ্যের রয়েল লন্ডন হাসপাতালে গত ৭ মাস ধরে লাইফ সাপোর্টে থাকা ৫ বছরের বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত শিশু তাফিদা রাকিবের সুচিকিৎসা নিশ্চিতের দাবিতে এক সমাবেশ আয়োজনের ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১২ সেপ্টেম্বর) বিকাল সাড়ে ৬টা থেকে সাড়ে ৭টা পর্যন্ত ট্রাফালগার স্কোয়ারে এই সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে। সমাবেশটি আহ্বান করেছে আন্তর্জাতিক ক্যাম্পেইন গ্রুপ ‘সিটিজেন গো, ইউকে’। তাফিদার লাইফ সাপোর্ট খুলে ফেলা নিয়ে যুক্তরাজ্যের স্বাস্থ্য বিভাগ এনএইচএস ও তাফিদা পরিবারের চলমান আইনি লড়াইও চলছে। সোমবার শুরু হওয়া ৫ দিনের শুনানি চলমান থাকা অবস্থাতেই সোমবার এই সমাবেশ আহ্বান করা হয়।

মস্তিষ্কে রক্তকরণে আক্রান্ত হয়ে রয়েল লন্ডন হাসপাতালে লাইফ সাপোর্টে রয়েছে ৫ বছরের তাফিদা। পেশায় আইনজীবী তাফিদার মা সেলিনা রাকিব অভিযোগ করেন, তাফিদার চিকিৎসা বন্ধ করে লাইফ সাপোর্ট খুলে নিতে চান ডাক্তাররা। পরিবারের অনুরোধের পরও ইতালিতে নিয়ে চিকিৎসার সুযোগ না দিয়ে লাইফ সাপোর্ট মেশিন খুলে ফেলার অনুমতি দিতে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ চাপ দিচ্ছে তাফিদার পরিবারকে। 

‘তাফিদাকে বাঁচান, তাকে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দেবেন না’ শীর্ষক ‘সিটিজেন গো’র এই সমাবেশে উপস্থিত হয়ে ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সবার সর্বোচ্চ চিকিৎসা প্রাপ্তির নাগরিক অধিকার সংরক্ষণে সহযোগিতার জন্য বাংলাদেশি কমিউনিটিসহ সবার প্রতি আহ্বান জানিয়েছে তাফিদার পরিবার। সাংবাদিকদের মাধ্যমে ব্রিটেনের বাংলাদেশি কমিউনিটির প্রতি অনুরোধ জানিয়ে পরিবারের পক্ষ থেকে বলা হয়, ‘দয়া করে সমাবেশে উপস্থিত হয়ে আপনার সমর্থন প্রকাশ করুন। বার্টস ট্রাস্টকে দেখান, আমরা শঙ্কায় থাকা তাফিদার জীবন নিয়ে চিন্তিত, জীবন রক্ষাকারী চিকিৎসা প্রাপ্তির জন্য তার ইতালি যাওয়ার দাবিকে আমরা সমর্থন করি’।

ইতালিতে নিয়ে যাওয়ার জন্য রয়েল লন্ডন হাসপাতাল ছাড়পত্র দিতে অপারগতা প্রকাশ করায় আদালতের শরণাপন্ন হন তাফিদার মা। পাশাপাশি লাইফ সাপোর্ট খুলে তাফিদাকে মৃত্যুর হাতে তুলে দেওয়ার অনুমতির আশায় আদালতের দ্বারস্থ হয় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষও।

লাইফ সাপোর্ট খুলে ফেলার অনুমতি দিতে রয়েল লন্ডন হাসপাতালের অব্যাহত চাপে ‘সন্তানের জীবনাবসানের পক্ষে মা-বাবার সম্মতি দেওয়া ধর্মীয় বিধান মতে পাপ’—ইসলামিক কাউন্সিল অফ ইউরোপের দেওয়া এমন একটি ফতোয়া সেলিনা রাকিব আদালতে দাখিল করেছেন।  

লন্ডনের উচ্চ আদালতে ৫ দিনের শুনানির শুরুতে এনএইচএস দাবি করে, ‘গুরুতর অসুস্থ পাঁচ বছরের শিশুটির পরিবার ইসলামি ধর্মীয় বিশ্বাসের কারণে তার জন্য সবচেয়ে ভালো পদক্ষেপ নিশ্চিত করতে পারবে না।’ এনএইচএস হাসপাতালে তাফিদাদের পরিবারের এক নারী সদস্যের উপস্থিতির বিরুদ্ধেও নিষেধাজ্ঞা আরোপের আবেদন জানায়। তবে আদালত তা নাকচ করে দেন।

ব্রিটেনের বাংলাদেশি কমিউনিটি ও বাংলা সংবাদমাধ্যমগুলোর প্রতি তাফিদার পরিবারের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানিয়ে সমাবেশের আয়োজকদের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ‘শুধু তাফিদা নয়, আমাদের নিজেদের স্বার্থেই সন্তানের সর্বোচ্চ চিকিৎসা প্রাপ্তির এই সাহসী লড়াইয়ে আমাদের উচিত তাফিদার মা সেলিনা রাকিবের পাশে দাঁড়ানো। কারণ, তাফিদার সর্বোচ্চ চিকিৎসা প্রাপ্তির অধিকার হরণ করে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ যদি আজকে পার পেয়ে যায়, তাহলে ভবিষ্যতে আপনার-আমার সন্তানের ক্ষেত্রেও একই ঘটনা ঘটবে’।

তাফিদার পক্ষে ব্রিটেনের মূলধারার সংবাদমাধ্যমগুলো খুবই ইতিবাচক ও সোচ্চার ভূমিকা পালন করছে। এর আগে ব্রিটেনে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার সাইদা মুনা তাসনিম হাসপাতালে গিয়ে চিকিৎসার জন্য তাফিদাকে ইতালি পাঠানোর পক্ষে সমর্থন ব্যক্ত করেছেন।

/এএ/এমওএফ/

লাইভ

টপ