পাসপোর্ট জালিয়াতির অভিযোগে মালয়েশিয়ায় দুই ‘বাংলাদেশি’ আটক

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৭:৩৬, সেপ্টেম্বর ১৪, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৭:৩৯, সেপ্টেম্বর ১৪, ২০১৯

মালয়েশিয়ায় বিদেশি শ্রমিকদের কর্মসংস্থান পাস ও ভূয়া পাসপোর্ট তৈরিতে জড়িত একটি চক্রকে আটকের দাবি করেছে দেশটির অভিবাসন বিভাগ। সে দেশের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা বারনামায় প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে, গতকাল (১৩ সেপ্টেম্বর) কুয়ালালামপুরের তিনটি স্থানে অভিযান চালিয়ে ‘মামা বাংলা’ নামে পরিচিত ওই চক্রের মূলহোতাকে আটক করে তারা। এর আগে ব্রিকফিল্ডের ৩৯ বয়সী এক বাংলাদেশি সন্দেহভাজনকে আটকের পর ওই চক্রটির কর্মকাণ্ড সম্পর্কে জানতে পারেন তদন্ত কর্মকর্তারা।

শনিবার অভিবাসন বিভাগের মহাপরিচালক দাতুক খায়রুল দাজ্জাইমি দাউদ এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, ২০১৭ সাল থেকে কুয়ালামলামপুরে ওই চক্রটি পাসপোর্ট জালিয়াতি করে আসছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। ভূয়া পাসপোর্টের জন্য ২০০ রিঙ্গিত (মালয়েলিয়ার মুদ্রা), অস্থায়ীভাবে কাজের পাসের জন্য ২০০ রিঙ্গিত এবং আই-ক্যাড (দেশটির অভিবাসন বিভাগের ইস্যুকৃত কার্ড, যার মাধ্যমে শিক্ষা কার্যক্রমের অনুমতি পায়) এবং ক্যাড সিআইডিবি’র (অবকাঠামোগত সেক্টরে কাজের জন্য দেশটির সরকারের পাস কার্ড) জন্য ৫০ রিঙ্গিত নির্ধারণ করে কাজ করে ‘মামা বাংলা’ নামের ওই চক্রটি।

বারনামার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ব্রিকফিল্ডের ৩৯ বয়সী এক সন্দেহভাজন বাংলাদেশিকে আটকের পর ‘মামা বাংলা’ চক্রের কর্মকাণ্ড সম্পর্কে অবহিত হন তদন্তকারীরা। ওই ব্যক্তিই তদন্তের সময় অভিবাসন কর্তৃপক্ষকে ওই ‘মূলহোতা’ সম্পর্কে বলেছিল। কুয়ালালামপুরের কাছে জালান মুন্সি এলাকা থেকে ‘মূলহোতা’কে গ্রেফতারের পর ‘মামা বাংলা’ নিয়ন্ত্রিত জালান পুত্রামাসের ওই এলাকায় অভিযান চালায় অভিবাসন দল। সে সময় ১৭টি ভুয়া বিদেশি পাসপোর্ট, ছয়টি ভ্রমণ পাস, একটি কম্পিউটার ও প্রিন্টিং মেশিন জব্দ করা হয়। ধারণা করা হচ্ছে ওই যন্ত্রগুলো ব্যবহার করে ভুয়া পাসপোর্টসহ অন্য কাগজপত্র তৈরি করতো চক্রটি।

বারনামা জানিয়েছে, ১৯৬৬ সালের পাসপোর্ট আইন ও ১৯৫৯/৬৩ সালের অভিবাসন আইনের অধীন তাদের অপরাধগুলোর অধিকতর তদন্ত করতে আটক ওই দুই ব্যক্তিকে আরও জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুত্রজায়ার অভিবাসন বন্দি কেন্দ্রে বন্দি রাখা হয়েছে।

/এইচকে/বিএ/

লাইভ

টপ