পাকিস্তানে নিখোঁজ তিন শিশুর মরদেহ উদ্ধারের ঘটনায় ব্যাপক বিক্ষোভ

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৩:৪৭, সেপ্টেম্বর ১৯, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৩:৫১, সেপ্টেম্বর ১৯, ২০১৯

নিখোঁজ তিন ছেলে শিশুর মরদেহ উদ্ধারের পর পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশের কাসুর জেলায় ব্যাপক বিক্ষোভ করেছে স্থানীয় জনতা। এর মধ্যে এক শিশুকে হত্যার আগে ধর্ষণ করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছে পুলিশ। বাকি দুই শিশুর ময়নাতদন্ত এখনও সম্পন্ন হয়নি। দশ বছরের কম বয়সী এসব শিশু বেশ কয়েক দিন আগে নিখোঁজ হয়। তাদের মরদেহ উদ্ধারের পর বুধবার কাসুরের চুন্নিয়ান এলাকায় সড়ক অবরোধ করে টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ করে স্থানীয়রা। স্থানীয় পুলিশে স্টেশনেও পাথর নিক্ষেপ করা হয়।শিশু অপহরণ ও ধর্ষণের ঘটনায় পাকিস্তানের কাসুরে ব্যাপক বিক্ষোভ হয়েছে

গত কয়েক বছরে পাঞ্জাবের কাসুর জেলায় শিশু অপহরণ, ধর্ষণ ও হত্যার বেশ কয়েকটি ঘটনা ঘটেছে। ২০১৮ সালে ছয় বছর বয়সী শিশু জয়নাব অপহরণ ও ধর্ষণের পর দেশটিতে ব্যাপক বিক্ষোভ হয়। জয়নাব অপহরণ, ধর্ষণ ও হত্যায় দায়ী ব্যক্তির বিরুদ্ধে আরও ছয়টি শিশুকে হত্যার প্রমাণ পাওয়া যায়। পরে তার ফাঁসির দণ্ড কার্যকর করা হয়।

গত জুন থেকে পাকিস্তানের কাসুরে চার ছেলে শিশু নিখোঁজ রয়েছে। এদের মধ্যে তিন জনের মরদেহ মঙ্গলবার উদ্ধার করা হয়। পুলিশ জানিয়েছে এদেরে মধ্যে আট বছর বয়সী ফাইজানকে হত্যার আগে ধর্ষণ করা হয়। ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তা ইনাম গনি জানিয়েছে, গত সোমবার (১৬ সেপ্টেম্বর) থেকে নিখোঁজ ফাইজানকে ঘাড় মটকে খুন করা হয়েছে।

বাকি দুই শিশু আগস্ট জুড়েই নিখোঁজ ছিল। তবে তাদের মরদেহ শনাক্ত করা সম্ভব হয়নি। তাদের মৃত্যুর কারণও জানা সম্ভব হয়নি। ইনাম গনি বলেন, তাদের ডিএনএ পরীক্ষার জন্য নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। আর চতুর্থ শিশুটির খোঁজে এখনও তল্লাশি চালানো হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

শিল্পাঞ্চলের বালুর মধ্যে পুতে রাখা শিশুদের মরদেহ উদ্ধারের ঘটনায় সন্দেহভাজন বেশ কয়েকজনকে আটক করা হয়েছে। স্থানীয়রা বলছেন, শিশুদের সঙ্গে পাওয়া কাপড়ের সঙ্গে নিখোঁজ দুই শিশুর পরিহিত পোশাকের মিল রয়েছে।

আগস্টে নিখোঁজ হয় দিনমজুর মোহাম্মদ আফজালের ছেলে আলী হুসেন। তিনি বলেন, এখন পর্যন্ত ছেলেকে খুঁজে বেড়াচ্ছেন তিনি। ‘একমাসে বাড়িতে রান্নাও হয়নি,’ বলেন তিনি। সুলেমান আকরাম নামে আরেক শিশুও আগস্ট থেকে নিখোঁজ। তার চাচা বলেন, 'স্বাভাবিকের মতোই বিকেল বেলা সে খেলতে বাইরে যায়, তবে ওইদিন রাতে আর ফেরেনি'। নিখোঁজ সুলেমানকে উদ্ধারে পুলিশ সহায়তা করেনি বলে অভিযোগ করেন তিনি।

শিশু হারিয়ে যেতে থাকার ঘটনায় আতঙ্কিত বাবা-মা তাদের সন্তানদের খেলতে গত কয়েক সপ্তাহ ধরে বাইরে বের হতে দিচ্ছে না। গত জুনে স্কুল ছুটির মধ্যে নিখোঁজ হয় মুহাম্মদ ইমরান। তার মা বলেন, 'দুপুরে খাওয়ার হলেও সে বাড়ি আসলো না আমি তাকে ডাকতে অন্য শিশুদের পাঠালাম কিন্তু তারাও তাকে খুঁজে পেল না'।

 

/জেজে/

লাইভ

টপ