আফগানিস্তানে হাসপাতালের বাইরে ভয়াবহ বোমা হামলা, নিহত ২০

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৪:০৭, সেপ্টেম্বর ১৯, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৪:১২, সেপ্টেম্বর ১৯, ২০১৯

আফগানিস্তানের দক্ষিণাঞ্চলের জাবুল প্রদেশের কালাত শহরে একটি হাসপাতালের বাইরে ট্রাক ভর্তি বিস্ফোরক নিয়ে হামলা চালানো হয়েছে। জাবুলের প্রাদেশিক প্রধান জানিয়েছেন, হামলায় হতাহতদের সংখ্যা এখনও চূড়ান্ত হয়নি তবে অন্তত ২০ জন নিহত ও একশো জন আহত হয়েছে বলে নিজের বিশ্বাসের কথা জানান তিনি। স্থানীয় সংবাদমাধ্যম বলছে  চালানো ওই হামলায় হতাহতদের মধ্যে বেশিরভাগই ছিলেন চিকিৎসক ও রোগী। দেশটির বিদ্রোহী সশস্ত্র গোষ্ঠী তালেবান জানিয়েছে, হাসপাতালের বাইরে অবস্থিত একটি সরকারি গোয়েন্দা কার্যালয়ে হামলা চালিয়েছে তারা।

আগামী ২৮ সেপ্টেম্বর আফগানিস্তানের পরবর্তী প্রেসিডেন্ট নির্বাচন। দ্বিতীয় পাঁচ বছর মেয়াদের জন্য এ নির্বাচনেও প্রার্থী হচ্ছেন ক্ষমতাসীন প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানি। তালেবান আসন্ন নির্বাচন বয়কটের ডাক দিয়েছে। ভোটাররা যেন ভোটকেন্দ্রমুখী না হয় তার জন্য আফগানিস্তানের ও বিদেশি বাহিনীগুলোর সঙ্গে লড়াই তীব্র করে তোলার শপথ নিয়েছেন তালেবান কমান্ডাররা। গত ১৭ সেপ্টেম্বর আশরাফ ঘানির এক নির্বাচনি সমাবেশে হামলার দায় স্বীকার করে তালেবান। ওই হামলায় অন্তত ২৪ জনের প্রাণহানি ঘটে।

বৃহস্পতিবার সকালে হামলার পর কালাত প্রদেশে হাসপাতালের বাইরের অবস্থা ভয়াবহ বলে বর্ণনা করেছেন প্রত্যক্ষদর্শীরা। বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থী আতিফ বালুচ বলেন, এটা ভয়ঙ্কর। আফগানিস্তানের এক প্রতিরক্ষা কর্মকর্তা বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেছেন, মিনি ট্রাকে করে বহন করা একটি বিশাল বোমার বিস্ফোরণ ঘটানো হয়।

আফগানিস্তানে শান্তি প্রতিষ্ঠায় কয়েক মাস ধরে আলোচনার পর সম্প্রতি চুক্তির দ্বারপ্রান্তে পৌঁছানোর কথা জানায় তালেবান ও যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধিরা। তবে সম্প্রতি ওই আলোচনাকে মৃত ঘোষণা করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তালেবান সতর্ক করে দিয়ে বলেছে, আফগান সরকার ও বিদেশি বাহিনীর ওপর হামলা তীব্র করে আসন্ন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে জনগণকে ভোট দেওয়া থেকে বিরত রাখা হবে।

 

/জেজে/

লাইভ

টপ