সিরিয়ায় কুর্দি রাজনীতিকসহ ৯ জনকে গুলি করে হত্যা করেছে তুর্কিপন্থীরা

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ২২:৩০, অক্টোবর ১৩, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২২:৩৩, অক্টোবর ১৩, ২০১৯

সিরিয়ার উত্তর-পূর্বাঞ্চলের কুর্দি নিয়ন্ত্রিত সীমান্তবর্তী শহরে ৯ জনকে তুরস্কপন্থী বাহিনী গুলি করে হত্যা করেছে বলে জানিয়েছে মানবাধিকার পর্যবেক্ষণকারী একটি সংস্থা। তারা জানিয়েছে, তাদেরকে গাড়ি করে তুলে নিয়ে হত্যা করা হয়েছে। নিহতদের মধ্যে হেভরিন খালাফ (৩৫) নামের এক কুর্দি রাজনীতিকও রয়েছেন।

৭ অক্টোবর সিরিয়ায় আইএসবিরোধী অভিযান চালানোর ঘোষণা দেয় তুরস্ক। পরে ৯ অক্টোবর সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলে ‘পিস স্প্রিং অপারেশন’ শুরু করে আঙ্কারা। অভিযানের অংশ হিসেবে তুরস্ক সমর্থিত সিরিয়ান ন্যাশনাল আর্মি ইউফ্রেতাসের পূর্বদিকে প্রবেশ করে। তুর্কি অভিযানে সহযোগিতার জন্য তারা অগ্রসর হচ্ছে। পরে কুর্দি নিয়ন্ত্রিত সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলীয় অভিযানে বিমান হামলা ও স্থল অভিযান জোরালো করে তুরস্ক। এতে তিন শতাধিক ‘জঙ্গি’ নিহত হয়েছে বলে দাবি করেছে আঙ্কারা। মানবাধিকার সংগঠনগুলো জানিয়েছে, এ অভিযানে ৩৮ বেসামরিক ব্যক্তি নিহত হয়েছে। এ সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা তাদের।

মূলত সিরিয়ার ডেমোক্র্যাটিক ফোর্সেস’র (এসডিএফ) কেন্দ্রীয় বাহিনী কুর্দিস পিপুলস প্রোটেকশন ইউনিটস’র (ওয়াইপিজি) বিরুদ্ধে অভিযান চালাচ্ছে তুরস্ক ও তার মিত্র ন্যাশনাল আর্মি। আঙ্কারা বলছে, ওয়াইপিজি একটি ‘সন্ত্রাসী’ সংগঠন, যাদের সঙ্গে তুরস্কের কুর্দি বিদ্রোহীদের সংযোগ রয়েছে। তিন দশক ধরে তুরস্কের কুর্দি অঞ্চলসহ অন্যান্য অঞ্চলের স্বাধীনতার জন্য লড়ছে ওই সংগঠন।

তুরস্কপন্থী মিলিশিয়ারা গাড়িতে তুলে নিয়ে একটি মহাসড়কের ওপর ওই ৯জনকে গুলি করে হত্যা করেছে। ওই হত্যাকাণ্ডের দৃশ্য মোবাইল ফোনের ক্যামেরায় ধরা পড়েছে। আঙ্কারার মিত্র সিরিয়ার আরবরা দেশটির সর্বত্র ছড়িয়ে রয়েছে। তাদের সঙ্গে ভৌগলিক সম্পর্কের বিরোধ রয়েছে ওই কুর্দিদের।

ব্রিটেনভিত্তিক সিরিয়ার মানবাধিকার পর্যবেক্ষণকারী সংস্থা জানিয়েছে, ‘তেল আবিয়াদ শহরের দক্ষিণে বিভিন্ন সময় এই ৯ জনকে হত্যা করা হয়েছে।’

কুর্দি বাহিনী জানিয়েছে, শনিবার যাদেরকে হত্যা করা হয়েছে তাদের মধ্যে কুর্দি রাজনীতিক হেভরিন ও তার গাড়িচালক রয়েছেন। ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পড়া ভিডিওতে দেখা গেছে, কয়েকজন ব্যক্তি রাস্তার অন্য প্রান্ত থেকে গুলি করছে। এ সময় মানহানিকর শব্দ উচ্চারণ করে হত্যাকারীদেরকে চিৎকার করতে শোনা গেছে। তারা সামরিক অস্ত্র দিয়ে গুলি চালিয়েছে। ভিডিও ফুটেজটি সঠিক হতে পারে বলে মত দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তারা।

ফিউচার সিরিয়া পার্টির সাধারণ সম্পাদক ছিলেন খালাফ। তার হত্যাকাণ্ডকে ‘বড় ক্ষতি’ বলে আখ্যা দিয়েছেন কুর্দি রাজনীতি বিশেষজ্ঞ মুটলু সিভিরোগলু। তিনি বলেন, ‘তার কূটনীতিতে গভীর দক্ষতা ছিল,  বিভিন্ন সময় তিনি বিদেশি প্রতিনিধি, ফরাসি ও যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন।’

বিদ্রোহী গোষ্ঠী আহরার আল শারকিয়া’র টুইটার অ্যাকাউন্টে প্রকাশিত প্রথম ভিডিওতে দুইজনকে হত্যা করতে দেখা গেছে। দ্বিতীয় ভিডিওতে দেখা গেছে, বেসামরিক পোশাক পরিহিত এক ব্যক্তিকে প্রকাশ্য গুলি করে হত্যা করা হচ্ছে।

মানবাধিকার পর্যবেক্ষণকারী সংস্থা ওই ভিডিওর ব্যাপারে নিশ্চয়তা দিলেও ফরাসি সংবাদমাধ্যম এএফপি স্বাধীনভাবে ওই ভিডিও’র সত্যতা নিশ্চিত করতে পারেনি।

 

/এইচকে/এএ/

লাইভ

টপ