সংকেত পাঠানো বন্ধ করেছে ইরানি তেল বহন করা চীনা জাহাজ

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ২০:৩৭, অক্টোবর ১৬, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৭:২৮, অক্টোবর ১৭, ২০১৯

নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ইরানের তেল আমদানিতে ব্যবহৃত চীনা প্রতিষ্ঠানের জাহাজগুলো তাদের অবস্থান জানানোর সংকেত পাঠানো বন্ধ করে দিয়েছে বলে অভিযোগ করেছে যুক্তরাষ্ট্র। ইরানি তেল পরিবহনের অভিযোগে গত ২৫ সেপ্টেম্বর চীনের পাঁচ ব্যক্তি ও দুটি ট্যাংকারের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে যুক্তরাষ্ট্র। এর কয়েক দিন পর থেকেই চীনা জাহাজগুলো তাদের অবস্থান জানানোর সংকেত পাঠানো বন্ধ করেছে। তবে চীনের জাহাজ পরিবহন প্রতিষ্ঠান এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে বলে জানিয়েছে ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

ইরানের তেল রফতানি শূন্যের কোঠায় নামিয়ে আনতে গত মে মাসে তেহরানের ওপর আরোপ করা নিষেধাজ্ঞা কঠোর করে যুক্তরাষ্ট্র। এই নিষেধাজ্ঞার পর দেশটির সবচেয়ে বড় ক্রেতায় পরিণত হয় চীন।

মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তারা জানিয়েছে, চীনের জাহাজগুলো তাদের অবস্থানের সংকেত পাঠানো বন্ধ করে দিয়েছে বলে তারা নিশ্চিত। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক কর্মকর্তা বলেন, এটা মারাত্মক বিপজ্জনক ও দায়িত্বজ্ঞানহীন আচরণ।  

তবে এক ইমেইল বিবৃতিতে চীনের জাহাজ পরিবহন প্রতিষ্ঠান কসকো জানিয়েছে, তাদের জাহাজগুলো বাণিজ্যিক কার্যক্রম চালাতে বিদ্যমান আইন-কানুন মেনে চলা অব্যাহত রেখেছে।

প্রসঙ্গত, আন্তর্জাতিক সমুদ্র পরিচালনার নীতি অনুযায়ী যেকোনও জাহাজ থেকে নিরাপত্তা ও স্বচ্ছতার জন্য প্রতিনিয়ত অবস্থানের সংকেত পাঠাতে হয়। তবে কোনও বিপদের আশঙ্কা হলে জাহাজের কর্মীরা এটি বন্ধ করে রাখতে পারেন। তবে এটা টানা বন্ধ করে রাখা অবৈধ কর্মকাণ্ড বলে বিবেচিত হয়।

 

/জেজে/এমওএফ/

লাইভ

টপ