Vision  ad on bangla Tribune

ইংরেজি না জানা মুসলিম নারীদের দেশে রাখবে না ব্রিটেন

বিদেশ ডেস্ক১৭:৩৩, জানুয়ারি ১৯, ২০১৬

যুক্তরাজ্যে বসবাসরত মুসলিম নারীরা যদি ভালো মতো ইংরেজি ভাষা রপ্ত করতে না পারেন তাহলে তাদের নিজ দেশে ফেরত পাঠানো হবে বলে জানিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন। তিনি মনে করেন, ইংরেজি না জানা মানুষেরা ইসলামিক স্টেটের (আইএস) মতো জঙ্গি সংগঠনের সহজ লক্ষ্যে পরিণত হন।

সোমবার মুসলিম নারীদের উদ্দেশে তিনি বিবিসি রেডিওকে বলেন, ‘যদি ইংরেজি ভাষায় আপনাদের দক্ষতার উন্নতি না হয় তাহলে এখানে বসবাসের কোনও নিশ্চয়তা থাকবে না। আমাদের দেশে যেসব মানুষ আসছেন তাদেরও দেশের প্রতি দায়িত্ব রয়েছে।’

যুক্তরাজ্যের কনজারভেটিভ পাটি বিচ্ছিন্ন সম্প্রদায়ের নারীদের জন্য ২০ মিলিয়ন পাউন্ডের ভাষা তহবিল ঘোষণা করেছে। যাতে করে সাম্প্রদায়িক একীভবন ঘটে। এ তহবিল ঘোষণার পরই ডেডিভ ক্যামেরন এ কথা বললেন।

যুক্তরাজ্যের অভিবাসন আইনে দেশটির নাগরিকরা অন্য দেশ থেকে স্ত্রী বা জীবনসঙ্গীকে বসবাসের জন্য আনতে চাইলে তাকে অবশ্যই ইংরেজি জানতে হবে। ক্যামেরন জানান, এরপরও দেশটিতে আসা মুসলিম নারীদের আরও পরীক্ষার মধ্য দিয়ে যেতে হবে। মুসলিম নারীদের দক্ষতা পরীক্ষার জন্য আড়াই বছর সময় দেওয়া হবে।

যুক্তরাজ্য সরকারের হিসেব মতে, দেশটিতে ১ লাখ ৯০ হাজার মুসলিম নারী বসবাস করছেন। যাদের অন্তত ২২ শতাংশ খুব কম ইংরেজি জানেন অথবা একেবারেই জানেন না। দেশটির মোট ৫৩ মিলিয়ন জনসংখ্যার মধ্যে ২৭ লাখ মুসলমান বাস করেন।

ইংরেজি না জানা মুসলমানরা দেশটির নিরাপত্তার জন্য হুমকি হতে পারেন জানিয়ে ক্যামেরন বলেন, আমি বলছি না যে ইংরেজি না জানা মানুষের সঙ্গে চরমপন্থীদের যোগাযোগ রয়েছে কিংবা তারা চরমপন্থী হয়ে ওঠছে।’

ক্যামেরনের এ মন্তব্যে দেশটিতে বসবাসরত মুসলিম সম্প্রদায় ও বিরোধী দল সমালোচনা করেছে। সূত্র: এএফপি।

/এএ/

samsung ad on Bangla Tribune

লাইভ

টপ