বিচারের কাঠগড়ায় জার্মান ‘আইএস জিহাদি’

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ২৩:৪৬, জানুয়ারি ২০, ২০১৬ | সর্বশেষ আপডেট : ২৩:৫৫, জানুয়ারি ২০, ২০১৬

আদালতে হাজির করা হলে এভাবেই মুখ ঢাকেন নিলস

সুন্নিপন্থী সশস্ত্র সংগঠন ইসলামিক স্টেটের (আইএস) নির্যাতনের বিশেষ শাখায় অংশ নেওয়ায় বিচার হচ্ছে এক জার্মান নাগরিকের। ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থার মধ্য দিয়ে ডুয়েসলডর্ফে এ বিচার শুরু হয়েছে। বুধবার বৃটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির এক খবরে এ কথা জানা গেছে।

নিলস ডি (২৫) নামে ওই যুবককে এক বছর আগে সিরিয়া থেকে ফেরত আসার পর গ্রেফতার করা হয়। তার বিরুদ্ধে আইএসের সদস্য হওয়ার অভিযোগ আনা হয়েছে। অভিযোগে বলা হয়েছে, নিলস আইএসে যোগদানের পর সংগঠনটির নির্যাতনের বিশেষ শাখায় কাজ করেছেন।

জার্মানিতে ফেরার পর নিলস দাবি করেছেন, তিনি পুলিশকে আইএসের কার্যক্রমের বিষয়ে ৪০ বার সাক্ষাৎকার দিয়েছেন।

জার্মান আইন অনুসারে তার পুরো নাম প্রকাশ করা হয়নি। সিরিয়াতে নিলস ১৩ মাস অবস্থান করেন। এর মধ্যে আটমাস তিনি আইএস গেস্টাপো শাখায় কাজ করেন। ২০১৩ সালে সিরিয়ায় পাড়ি জমানো বেশ কয়েকজন তরুণের মধ্যে তিনি ছিলেন একজন। তারা নিজেদের লহবার্গার ব্রিগেড হিসেবে পরিচয় দিতেন।

গত বছর দুটি বিচারে নিলস প্রমাণ দিয়েছেন। আদালতের সেলে তিনি নির্যাতন ও শিরশ্ছেদের প্রত্যক্ষদর্শী বলে জানিয়েছেন। তিনি বলেন, যারা আইএস ছেড়ে দিতে চায় তাদের অনিবার্য পরিণাম মৃত্যু।

দোষী প্রমাণিত হলে নিলসের ১০ বছর জেল হতে পারে। তবে আইএসের নির্যাতনের বিশেষ শাখায় থাকার কথা অস্বীকার করেছেন তিনি।

আইএসে যোগ দিতে  প্রায় ৮০০ জার্মানি সিরিয়া ও ইরাকে গমন করেছেন। দেশটির গোয়েন্দাদের ধারণা, জার্মানিতে অন্তত ১১০০ জন জিহাদি অবস্থান করছেন।

/এএ/

লাইভ

টপ