রাজস্তানে কাজি হলেন দুই নারী

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ২১:০৩, ফেব্রুয়ারি ০৭, ২০১৬ | সর্বশেষ আপডেট : ২১:০৩, ফেব্রুয়ারি ০৭, ২০১৬

ভারতের রাজস্তানে বিয়ে পড়ানো এখন আর শুধু পুরুষের কাজ নয়। শুক্রবার রাজস্তানে কাজি হিসেবে সনদ পেয়েছেন জাহান আরা ও আফরোজ বেগম নামে দুই নারী। তাদের দুজনেরই বয়স ৪০ বছর। টাইমস অব ইন্ডিয়ায় প্রকাশিত খবরে এ কথা জানা গেছে।
জয়পুরের বাসিন্দা এই দুই নারী মুম্বাইয়ের দারুল উলুম-ই-নিসাওয়ানে দুই বছরের প্রশিক্ষণ নিয়েছেন। প্রশিক্ষণ শেষে শুক্রবার তাদের ‘কাজি’ হওয়ার সনদ প্রদান করা হয়। এর মধ্য দিয়ে তারা দুজন আনুষ্ঠানিকভাবে কাজি হিসেবে স্বীকৃতি পেলেন।
জাহান আরা জানান, কোরান, হাদিস ও ভারতীয় সংবিধানের আলোকে এ প্রশিক্ষণ নিয়েছেন তিনি। দেড় হাজার বছর আগে কোরানে নারীদের যেসব অধিকার দেওয়া হয়েছে, তাও এই প্রশিক্ষণে শিখতে পেরেছেন। তিনি বলেন, আমার জন্য এটা ছিল খুব কঠিন। কিন্তু আমি ৬৯ শতাংশ নম্বর পেয়ে পাস করেছি। কাজি হতে পারাটা আমার জন্য গর্বের।
তিনি আরও জানান, কাজির দায়িত্ব শুধু বিয়ে পড়ানো নয়। তাদের আরও অনেক দায়িত্ব আছে।

প্রশিক্ষণে বিয়ের মোহরানা সম্পর্কে শিক্ষার কথা উল্লেখ করে জাহান আরা জানান, বরের ১ বছরের বেতনের কম হওয়া উচিৎ নয় মোহরের পরিমাণ। বিয়ের সময় কনের অধিকার মোহর।  তিনি বলেন, কোরানে বিয়ের আগে নারীর আর্থিক নিশ্চয়তা হচ্ছে মোহর।

জাহান আরা ও আফরোজা বেগমকে প্রশিক্ষণে পাঠায় ভারতীয় মুসলিম মহিলা আন্দোলন নামক সংগঠন। শুক্রবার সংগঠনটির জাতীয় সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সংগঠনটির রাজস্তানের আহ্বায়ক নিশাত হোসেন জানান, যদি কোনও পরিবার নারী কাজিদের দিয়ে নিকাহ করাতে চায় তাহলে তাদেরকে অন্তত একমাস আগে জানাতে হবে। এরপর সংগঠনের পক্ষ থেকে বর ও কনের বিস্তারিত তথ্য যাচাই করে নিকাহ করানো হবে। তিনি বলেন, আমরা চাই না নারী কাজির পড়ানো বিয়ে তালাকে গিয়ে শেষ হোক।

/এএ/

লাইভ

টপ