Vision  ad on bangla Tribune

স্বল্পমূল্যের লিডল জিন্সের নেপথ্যচিত্র

শাহেরীন আরাফাত ও আরশাদ আলী২২:১২, মার্চ ১৪, ২০১৬

সম্প্রতি তারা ‘লিডল সারপ্রাইজ (লিডল বিস্ময়)’ স্লোগানটি ব্যাপকভাবে প্রচার করছে। কিন্তু এটা বিস্ময়ের কোনও বিষয় নয়, কারণ আরও কয়েকটি ব্রিটিশ ও মার্কিন কোম্পানির মতো তারাও বেশিরভাগ কাজের অর্ডার বাংলাদেশেই পাঠায়। যেখানে একজন গার্মেন্ট শ্রমিকের সর্বনিম্ন মজুরি ঘণ্টায় ২৩ পেন্সের বেশি নয়।

৫.৯৯ পাউন্ডে ডেনিম জিন্স বিক্রি করার ঘোষণা দিয়ে ইউরোপের বিক্রেতাদের চাপে ফেলেছে লিডল

বৃহস্পতিবার লিডলের ‘নতুন’ ডেনিম জিন্স মার্কেটে এসেছে। যুক্তরাজ্যের ৬০০টি দোকানে যা একযোগে পাওয়া যাচ্ছে। আর নতুন ওই জিন্সের প্রচারণায় লেখা হয়, ‘উই লাভ ডেনিম (আমরা ডেনিম ভালোবাসি)’। আর জিন্সের লেবেলে লেখা আছে, ‘জিন্সটি বাংলাদেশে উৎপাদিত’। উল্লেখ্য, বাংলাদেশ সফরকালে লিডলের এক শীর্ষ কর্মকর্তা মার্কুস রেনকিন সাংবাদিকদের জানান,  বাংলাদেশ থেকে তারা প্রতি বছর এক বিলিয়ন ডলারের পোশাক ক্রয় করেন।

৫.৯৯ পাউন্ডে লিডল যে জিন্স গ্রাহকদের দিচ্ছে, বস্তুত তা হলো ‘জেগিংস’ (মেয়েদের পরিধেয় এক ধরনের আঁটোসাঁটো লেগিংস, যা জিন্স কাপড় দিয়ে তৈরি)। লিডলের মতে, এতে দেওয়া হয়েছে ‘আকর্ষণীয় ডেনিম ইফেক্ট’। ৭৭ শতাংশ কটন ফ্যাব্রিকের ওই জেগিংস-এ রয়েছে ওয়েস্ট ব্যান্ড ইলাস্টিক, একটি বোতাম, একটি জিপার, দুটি ব্যাক পকেট এবং দুটি ফ্রন্ট পকেট।

২০১৩ সালে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক সংবাদমাধ্যম ব্লুমবার্গে বাংলাদেশি জিন্স ফ্যাক্টরির উৎপাদন খরচের তালিকা প্রকাশিত হয়। সেখানে দেখা যায়, একটি জিপারের দাম পড়ে ১০ পেন্স, একটি বোতাম ৪ পেন্স, প্রতিটা রিভেট ১ পেন্স, এমব্রয়ডারির জন্য ৯ পেন্স, পকেটের জন্য ৬ পেন্স এবং লেবেলের জন্য খরচ হয় ৭ পেন্স। সেলাইয়ের জন্য লাগে আরও ১৯ পেন্স। ওয়াশ, ম্যাটেরিয়েলস এবং আনুষঙ্গিক খরচ মিলে একটা জিন্স প্যান্টের পেছনে মোট খরচ হয় ৩.৯০ পাউন্ডের মতো।

লাইভ

টপ