বাংলাদেশ ব্যাংকের অর্থচুরি উগান্ডায় একই স্টাইল অনুসরণ করা হয়েছিল ১৯৮০ সালে

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৯:৫০, মার্চ ১৬, ২০১৬ | সর্বশেষ আপডেট : ১৯:৫৬, মার্চ ১৬, ২০১৬

যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল ব্যাংক উগান্ডার কেন্দ্রীয় ব্যাংককে অর্থ স্থানান্তরের বিষয়ে অবহিত করলে তারা বলেছিল, এ সম্পর্কে তারা কিছুই জানে না। আর এতেই বিপদ সংকেত বেজে ওঠে। কর্মকর্তাদের একটি দল ওই অর্থের সন্ধান শুরু করে। ওই তদন্তে তৎকালীন অ্যাটর্নি থমাস ব্রেক্সটারও ছিলেন, যিনি বর্তমানে ফেডারেল ব্যাংকের প্রধান আইন বিষয়ক কর্মকর্তা।
বেশ কয়েকটি দেশে অনুসন্ধান চালিয়ে সেই তদন্ত দল চুরি যাওয়া অর্থের সন্ধান করতে সক্ষম হয়। সুইস ব্যাংক থেকে অর্থ উত্তোলনের সময় সুইজারল্যান্ডে এক ব্যক্তি ধরা পড়েন। ওই ব্যক্তিকে যুক্তরাষ্ট্রে পাঠানো হয়, তবে তার অভিযোগ প্রমাণ করা যায়নি। চলতি বছরের ৫ ফেব্রুয়ারিতে চুরি হওয়া বাংলাদেশের অর্থের সন্ধানেও একইভাবে চার দেশের কর্তৃপক্ষ কাজ করছেন।
মঙ্গলবার ফেডারেল ব্যাংক কর্তৃপক্ষ এই বিষয়ে কথা বললে রাজি হননি। তবে তারা জানিয়েছেন, ওই ঘটনার তদন্তে তারা বাংলাদেশ কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কাজ করছেন। তারা এর আগে জানিয়েছিলেন, বাংলাদেশের সুইফট কোড নিয়ন্ত্রণে নিয়ে সকল বৈধ পথ অতিক্রম করেই ওই অর্থপাচারের ঘটনাটি ঘটে। ফেডারেল সিস্টেমের কোনও পর্যায়ে কোনও অনিয়ম ঘটনা ঘটেনি। সূত্র: ওয়ালস্ট্রিট জার্নাল।
/এসএ/বিএ/

লাইভ

টপ