behind the news
Vision  ad on bangla Tribune

রহস্যবৃত্তের রহস্য উন্মোচনে আলোর দিশা

ফাহমিদা উর্ণি২০:১৫, মার্চ ১৬, ২০১৬





ফেয়ারি সার্কেলফেয়ারি সার্কেল। বাংলায় বলা যেতে পারে রহস্যবৃত্ত। দশকের পর দশক ধরে দক্ষিণ আফ্রিকার নামিবিয়ান মরুভূমিতে দৃশ্যমান হওয়া সেই রহস্যবৃত্ত (ফেয়ারি সার্কেল) নিয়ে গবেষণা চালিয়ে আসছিলেন বিজ্ঞানীরা। এই সার্কেল বা চক্রের প্রান্তে এক ধরনের ঘাস জন্মাতে দেখা গেলেও এর মধ্যিখানে কোনও ধরনের গাছ, ঘাস বা কোনওকিছুই জন্মায় না। এ নিয়ে রয়েছে নানা তত্ত্বও। তবে সবচেয়ে প্রচলিত তত্ত্ব অনুযায়ী, বৃত্তগুলোর উৎপত্তির কারণ উইপোকা। তবে অস্ট্রেলিয়ার পিলবারা অঞ্চলে শনাক্ত হওয়া বৃত্তগুলো সে প্রচলিত তত্ত্বকে প্রশ্নের মুখে ঠেলেছে।
নতুন খবর হলো, দক্ষিণ আফ্রিকার পর অস্ট্রেলিয়ায়ও ‘ফেয়ারি সার্কেল’ বা ‘রহস্য-বৃত্ত’ নামের অদ্ভূত বৃত্তাকার চিহ্ন আবিষ্কারের মধ্য দিয়ে প্রকৃতির এ রহস্যের সমাধানের ক্ষেত্রে আরেক ধাপ এগিয়ে যাওয়া সম্ভব হয়েছে বলে মনে করছেন গবেষকরা। হেমহোল্টজ-এর পরিবেশবিষয়ক গবেষণা কেন্দ্রের গবেষক স্টেফান গেটজিন বলেন, ‘নামিবিয়ান ফেয়ারি সার্কেলের সঙ্গে অস্ট্রেলিয়ায় পাওয়া ফেয়ারি সার্কেলের সংযোগ নিয়ে বিতর্ক রয়েছে। কারণ অস্ট্রেলিয়ায় আমরা যে বৃত্ত শনাক্ত করেছি তার সঙ্গে উইপোকা কিংবা পিঁপড়ার সংশ্লিষ্টতা নেই।’
অস্ট্রেলিয়ার পরিবেশ বিজ্ঞানী ব্রোনোয়িন বেল প্রথম পিলবারা অঞ্চলে পরী-বৃত্তগুলো শনাক্ত করেন এবং ভাবনায় পড়েন যে কেন সেগুলো ওই অঞ্চলটির একটি বিশেষ জায়গাতেই হচ্ছে। এরপর স্থানীয় উদ্ভিদবিজ্ঞানী ও বাস্তুসংস্থান বিশেষজ্ঞদের শরণাপন্ন হন তিনি। কিন্তু কেউই তাকে কোনও ব্যাখ্যা দিতে পারলেন না। বিবিসিকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে বেল বলেন, ‘আমি এ বৃত্তগুলোকে চিকেন পক্স নামে ডাকতে লাগলাম।’

Global Brand  ad on Bangla Tribune

লাইভ

টপ