ব্লুমবার্গের প্রতিবেদন ১৪ দিন আগেই বাংলাদেশ ব্যাংকের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নেন হ্যাকাররা!

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৪:১০, মার্চ ১৯, ২০১৬ | সর্বশেষ আপডেট : ১৪:১০, মার্চ ১৯, ২০১৬

সুইফট কোড

সুইফট হচ্ছে এমন একটি সংস্থা যা ব্যাংকগুলোর মধ্যে বৈশ্বিক লেনদেনের জন্য আন্তর্জাতিক কোড সরবরাহ করে। সুইফট তদন্তাধীন বিষয়ে কোন মন্তব্য করতে পারে না বলে ব্লুমবার্গকে জানিয়েছেন সংস্থাটির একজন প্রতিনিধি। তবে ওই প্রতিনিধি চার্লি বুথ জানান, ‘সুইফটের নেটওয়ার্ক ক্ষতিগ্রস্ত হয়নি। পুরো বিষয়টি তদন্তের অধীনে রয়েছে।’ প্রসঙ্গত, সুইফটের সিস্টেম বাংলাদেশ ব্যাংকের অ্যাকাউন্ট অ্যান্ড বাজেটিং বিভাগে অবস্থিত।

সংক্ষিপ্ত লগ ইন

প্রতিবেদনের দাবি অনুযায়ী প্রথমবার লগ ইন নিয়ে সন্দেহ তৈরি হয় ২৪ জানুয়ারি যা এক মিনিটেরও কম সময় স্থায়ী হয়। এরপর ২৯ জানুয়ারি হ্যাকাররা ‘সিসমন ইন সুইফটলাইভ’ ইন্সটল করে যা স্থানীয় প্রশাসনের অ্যাকাউন্ট থেকেই করা হয়েছে বলে ধারণা করা হয়।

লগ থেকে আরও দেখা যায় ৪ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত হ্যাকাররা আবারও লগ ইন করে এবং ফিলিপাইনে টাকা পাঠানো হয় ৪ ফেব্রুয়ারি। তবে ১৬ মার্চ পর্যন্ত ফায়ারআইয়ের দলটি কম্পিউটার নেটওয়ার্ক সিস্টেম পরীক্ষানিরীক্ষা করার কাজ প্রায় অর্ধেক সম্পন্ন করে ফেলে। ফায়ারআইয়ের অন্য গ্রাহকরাও আক্রমণের শিকার হয়েছে বলে ব্লুমবার্গের প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

অবশ্য ফায়ারআইয়ের মুখপাত্র প্যাট্রিক নেইহর্ন এই প্রতিবেদন সম্পর্কে মন্তব্য করতে অস্বীকৃতি জানান। ওয়ার্ল্ড ইনফরম্যাট্রিক্সের রাকেশ আস্থানাকে ইমেইল পাঠিয়ে জবাব পায়নি ব্লুমবার্গ। বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র শুভঙ্কর সাহা দাবি করেন, তিনি ওই প্রতিবেদন সম্পর্কে কিছু জানেন না। সূত্র: ব্লুমবার্গ

/ইউআর/বিএ/    

লাইভ

টপ