behind the news
Rehab ad on bangla tribune
Vision Refrigerator ad on bangla Tribune

কবর থেকে শেক্সপিয়ারের মাথার খুলি গায়েব!

বিদেশ ডেস্ক১৬:১৫, মার্চ ২৪, ২০১৬

শেক্সপিয়ারের মাথার খুলির খোঁজে গবেষকদের অনুসন্ধানবিশ্বখ্যাত সাহিত্যিক শেক্সপিয়ারের মৃত্যুর আড়াইশো বছরেরও বেশি সময় পর একটা গল্প প্রচারিত হতে থাকে। গল্পটি হলো, কবর থেকে তার খুলি চুরি করা হয়েছে। শতাধিক বছর ধরে এটিকে কল্পকথা হিসেবে মনে করা হলেও আজ শেক্সপিয়ারের মৃত্যুর ৪০০ বছর পর প্রত্নতত্ত্ববিদেরা ওই কল্পকাহিনীর পক্ষে তথ্য-প্রমাণ সংগ্রহ করতে সক্ষম হওয়ার দাবি করছেন। তারা বলছেন, সত্যিই কবরে শেক্সপিয়ারের মাথা নেই!
ভূমি-ভেদী রাডারের মাধ্যমে স্ক্যান করে গবেষকরা দেখেছেন, শেক্সপিয়ারের কবরে তার শরীরের বাকি অংশের কঙ্কালের সঙ্গে মাথার খুলিটি নেই। ওয়েস্টমিনিস্টার অ্যাবেতে স্ট্যাটফোর্ডশায়ার ইউনিভার্সিটির প্রত্নতত্ত্ববিদ কেভিন কোলস এবং ভূতত্ত্ববিদ এরিকা উটসির নেতৃত্বাধীন ওই গবেষণাটি চালানো হয়। পুরো গবেষণাকর্মটি ডক্যুমেন্টারি আকারে ধারণ করা হয়েছে। ‘সিক্রেট হিস্টোরি: শেক্সপিয়ারস টোম্ব’ শীর্ষক ওই ডক্যুমেন্টারিটি আগামী শনিবার যুক্তরাজ্যের টেলিভিশন চ্যানেল ‘চ্যানেল ফোরে’ দেখা যাবে।
কেভিন কোলস বলেন, ‘রাডার এবং ভূতত্ত্ব প্রযুক্তির বিকাশের ফলে এখন লেজার স্ক্যানিং প্রযুক্তির সাহায্যে খোড়াখুড়ি ছাড়াই পাথরের নিচে জমা থাকা অনেক প্রশ্নের জবাব পাওয়া সম্ভব।’
লেজার প্রযুক্তির মাধ্যমে কবরের অভ্যন্তরীণ কাঠামোর ‘বিস্ময়কর সংস্কারের’ বিষয়টি সামনে আসে বলে জানান কোলস। তিনি জানান, ১৮৭৯ সালে অ্যারগোসি ম্যাগাজিনে প্রকাশিত খবরে বলা হয়, ড. ফ্রাঙ্ক চ্যাম্বারসের নেতৃত্বে ট্রফি হান্টারদের একটি দল শেক্সপিয়ারের কবর থেকে তার খুলি চুরি করে নিয়ে যান। কোলস বলেন, ‘স্ক্যানে ধরা পড়েছে, তার মাথার আশেপাশে কিছু আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে এবং কবরটি যে আক্রান্ত হয়েছিল, তারও প্রমাণ পাওয়া গেছে।’

শেক্সপিয়ারের কবর

তিনি জানান, ওই প্রযুক্তিতে হাড় শনাক্ত করা যায় না, কিন্তু এতে দেখা যায় কবরের অর্ধেকটায় কোনও আঘাতের চিহ্ন নেই। কোলস বলেন, ‘আমরা নিশ্চিত, এখানে তার (শেক্সপিয়ার) অবশিষ্টাংশ রয়েছে।’ তিনি আরও বলেন, ‘আমদের গবেষণায় তার খুলির সন্ধান পাওয়া যায়নি, তা কোথায় থাকতে পারে, এ সম্পর্কে আমরা কোনও দলিলাদিও পাইনি। আমরা আমাদের অনুসন্ধান চালিয়ে যাবো।’ গবেষণায় আরও একটি কবরের সন্ধান পাওয়া গেছে। ২০ মাইল দূরবর্তী বিওলি চার্চে অবস্থিত কবরটি ৭৭ বছর বয়স্ক এক নারীর।

শেক্সপিয়ার ১৬১৬ সালে মৃত্যুবরণ করেন এবং ধারণা করা হয়, তার কবর স্ট্যাটফোর্ডের ট্রিনিটি চার্চে অবস্থিত। তাতে তার নাম নাম খোদাই করা নেই। তবে কবরের ওপর একটি বড় পাথর রাখা রয়েছে, তাতে অভিশাপ লেখা – ‘কেউ তার স্ত্রী অ্যানি হ্যাথাওয়ে সহ তার পরিবারের কবরের অবশিষ্টাংশ সরালে তার স্থান হবে পাশের কবরটিতে।’ সূত্র: দ্য ইনডিপেন্ডেন্ট।  

/এসএ/বিএ/

Ifad ad on bangla tribune

লাইভ

Nitol ad on bangla Tribune
টপ