সেব্রেনিৎসা গণহত্যার ঘটনায় কারাদজিচের ৪০ বছরের কারাদণ্ড

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ০৯:১৮, মার্চ ২৫, ২০১৬ | সর্বশেষ আপডেট : ০৯:১৮, মার্চ ২৫, ২০১৬



কারাদজিচ১৯৯০এর দশকে বসনীয় যুদ্ধের সময় গণহত্যা ও মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধের দায়ে সাবেক বসনীয় সার্ব নেতা রাদোভান কারাদজিচকে ৪০ বছরের কারাদন্ড দেওয়া হয়েছে। স্রেব্রেনিৎসার গণহত্যার জন্য ৫ বছরের বিচার কার্য শেষে কারাদজিচকে দোষী সাব্যস্ত করে জাতিসংঘের ট্রাইব্যুনাল এ রায় দেয়।ওই গণহত্যায় প্রাণ হারায় ৮ হাজার মুসলিম পুরুষ ও বালক। তার বিরুদ্ধে আনা ১১টি অভিযোগের মধ্যে একটি ছাড়া আর সবগুলো প্রমাণিত হয়েছে।
বৃহস্পতিবার দ্য হেগের আন্তর্জাতিক ট্রাইব্যুনালের বিচারক রায় ঘোষণা করতে সময় নেন এক ঘন্টা চল্লিশ মিনিট। রায়ে বলা হয়, কারাদজিচের বিরুদ্ধে আনা ১১টি অভিযোগের মধ্যে ১০টিতে তাকে দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে। বিচার চলাকালে অবশ্য এসব অভিযোগ অস্বীকার করেছিলেন রাদোভান কারাদজিচ।
স্রেব্রেনিৎসা শহরে আট হাজার মুসলিম পুরুষ এবং বালককে হত্যার ঘটনায় ভূমিকার জন্য কারাদজিচকে দায়ী করা হয়। বিচারক বলেন, কারাদজিচের তত্ত্বাবধানেই কার্যত এই শহরের মুসলিমদের ধ্বংস করার এক নীতি বাস্তবায়ন করা হচ্ছিল। এছাড়া মানবতাবিরোধী অপরাধ এবং যুদ্ধের ক্ষেত্রে আন্তর্জাতিক আইন ভঙ্গের নয়টি অভিযোগেও রাদোভান কারাদজিচকে দোষী সাব্যস্ত করে আদালত।
এদিকে, আদালতের রায় শুনে কারাদজিচ বিস্মিত হয়েছেন বলে উল্লেখ করেছেন তার আইনজীবী রবিনসন। তিনি বলেন, প্রেসিডেন্ট কারাদজিচ হতাশ হয়েছেন। তিনি মনে করেন না যে আইনগতভাবে তিনি কোনও অপরাধের জন্য দায়ী। এ রায়ে আসলে কোনও পক্ষেরই জয় হয়নি।’
আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে কারাদজিচ আপিল করবেন বলে জানান রবিনসন। তবে ওই প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে তিন বছর লেগে যাবে।
তবে আদালতের রায়ে সন্তোষ জানিয়েছেন ভুক্তভোগীরা।
উল্লেখ্য বসনিয়ার যুদ্ধে প্রায় এক লাখ মানুষ মারা যায়। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর ইউরোপের মূল ভুখন্ডে এত বড় হত্যাযজ্ঞ আর ঘটেনি। সূত্র: বিবিসি, আল জাজিরা
/এফইউ/



লাইভ

টপ