behind the news
Vision  ad on bangla Tribune

ট্রাম্পের উত্থানের জন্য দায়ী মিডিয়া: ওবামা

বিদেশ ডেস্ক১০:২৯, মার্চ ৩০, ২০১৬

মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা সাংবাদিকদের প্রতি ২০১৬ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে মনোনয়নপ্রত্যাশীদের খবর প্রচারে আরও সচেতন ও সতর্ক হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। সোমবার ওয়াশিংটনে এক পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের সঙ্গে নৈশভোজে আলাপকালে তিনি এ আহ্বান জানান। ওবামা বলেন, প্রার্থীরা অনেকে অনেক কথা বলতে পারেন। তবে সবকিছু ফলাও করে প্রচার করা সাংবাদিকদের উচিত নয়। বিশেষ করে যারা আগ-পাছ বিবেচনা না করে কথা বলেন, তাদের বক্তব্য প্রচারের সময় সংবাদ মাধ্যমগুলোকে অবশ্যই নিজেদের বুদ্ধি ও বিবেচনা প্রয়োগ করতে হবে। তিনি ট্রাম্পের এতদূর উঠে আসার পেছনে গণমাধ্যমকেও দায়ী করেন।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন নিয়ে বারাক ওবামা এখনও গুরুত্বের সঙ্গে তেমন কিছু বলেননি। এমনকি তিনি কাকে সমর্থন দেবেন, সেটাও পরিষ্কার করেননি। তবে পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে রিপাবলিকান মনোনয়ন প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্পের নাম উচ্চারণ না করলেও ওবামার লক্ষ্য যে এই ধনকুবের প্রার্থীই, সেটা বুঝতে কারও সমস্যা হয়নি। এদিন ওবামা কঠোর ভাষায় প্রার্থীদের নির্বাচনী প্রচারে দায়িত্বজ্ঞানহীন অতিকথন এবং অদ্ভুত সব কথার যে চর্চা চলছে, তার নিন্দা করেন। একইসঙ্গে ট্রাম্পের সব বক্তব্য হুবহু প্রচারেরও সমালোচনা করেন তিনি।

রিপাবলিকান পার্টির মনোনয়নপ্রত্যাশী ডোনাল্ড ট্রাম্পের বক্তব্য ঘন ঘন প্রচার এবং তার সাক্ষাৎকার নেওয়ার যে প্রবণতা চলছে তাতে অসন্তুষ্টি প্রকাশ করে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, এতে ট্রাম্প প্রশ্রয় পাচ্ছেন এবং বিচার বিবেচনা না করে উল্টাপাল্টা কথাবার্তার পরিমাণও বাড়িয়ে দিয়েছেন। মিডিয়া যদি কারও হালকা কথাবার্তা প্রচারে না মেতে বরং অনুসন্ধানী প্রতিবেদন প্রকাশ করে তাতে ভোটাররাই উপকৃত হবেন।

বারাক ওবামা এবং ডোনাল্ড ট্রাম্প

ওবামা মার্কিন রাজনীতির কথা উল্লেখ করে বলেন, বুঝতে হবে, মার্কিন রাজনীতি শুধু যুক্তরাষ্ট্রেরই আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দু নয়, বরং এতে চোখ রাখছে পুরো দুনিয়ার মানুষ। সুতরাং এমন কিছু খবর প্রকাশ করা উচিত হবে না, যাতে দেশের বাইরে পুরো বিশ্বেই মার্কিন রাজনীতি নিয়ে নেতিবাচক ধারণার সৃষ্টি হয়। তিনি অস্কারবিজয়ী সংবাদভিত্তিক মুভি 'স্পটলাইট'-এর কথা উল্লেখ করে বলেন, 'এটা দেখে আমরা বুঝতে পারি, সঠিক এবং গঠনমূলক খবরের প্রতি মানুষের কী পরিমাণ আগ্রহ রয়েছে।'

উত্তর কোরিয়ার তরফ থেকে পারমাণবিক হামলার হুমকি নিয়ে জাপান ও দক্ষিণ কোরীয় নেতাদের সঙ্গে কথা বলবেন বারাক ওবামা। ওয়াশিংটনে চলতি সপ্তাহে অনুষ্ঠেয় বৃহত্তর পারমাণবিক নিরাপত্তা সংক্রান্ত আন্তঃদেশীয় বৈঠক চলাকালে দক্ষিণ কোরিয়া ও জাপানের সঙ্গে ত্রিপক্ষীয় বৈঠকে এ নিয়ে আলোচনা করার কথা রয়েছে। ওবামা বলেন, 'সম্ভাব্য' হামলার ব্যাপারে তিন দেশে নিজেদের মধ্যে আলোচনা করে নেওয়া জরুরি।'

এদিকে লাহোরের গুলশান-ই-ইবাল শিশুপার্কে জঙ্গি হামলায় ৭২ জন নিহত হওয়ার মূলে যে সমস্যা, সে সমস্যা একাই সমাধান করতে পারবেন বলে দাবি করেছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। তবে কিভাবে তিনি একাই এ সমস্যার সমাধান করবেন সে ব্যাপারে বিস্তারিত কিছু বলেননি। ওই হামলার জন্য বিশেষ কোনও গোষ্ঠীর প্রতিও তিনি নিন্দা জানাননি। সূত্র: রয়টার্স, বিবিসি।

/এমপি/

Global Brand  ad on Bangla Tribune

লাইভ

IPDC  ad on bangla Tribune
টপ