Vision  ad on bangla Tribune

চার হাজার কোটি রুপি ফেরত দিতে চান বিজয় মালিয়া

বিদেশ ডেস্ক২২:২১, মার্চ ৩১, ২০১৬

পাওনাদারদের চার হাজার কোটি টাকা সেপ্টেম্বরের মধ্যে ফিরিয়ে দেওয়ার প্রস্তাব দিয়েছেন বিয়ার ব্যারন ও কিংফিশার এয়ারলাইন্সের মালিক বিজয় মালিয়া। বুধবার নিজের আইনজীবীর মাধ্যমে ভারতের সুপ্রিম কোর্টকে এমনটাই জানালেন তিনি।

সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি কুরিয়েন জোসেফ এবং আর এফ নরিম্যানের বেঞ্চের কাছে এই প্রস্তাব দেওয়া হয়।

বন্ধ হয়ে যাওয়া কিংফিশার এয়ারলাইন্সের জন্য বিভিন্ন ব্যাংক থেকে ছয় হাজার ৯০৩ কোটি রুপি ঋণ নিয়েছিলেন তিনি। সুদ-আসল মিলে ওই অর্থ এখন নয় হাজার কোটি রুপি ছাড়িয়েছে। সেই অর্থ ফেরত পেতে স্টেট ব্যাংকের নেতৃত্বে ১৭টি ব্যাংক সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিল।

ৱুধবার আদালতে মুখবন্ধ খামে চার হাজার কোটি রুপি ফেরত দেওয়ার প্রস্তাব পেশ করেন মালিয়ার আইনজীবী। আগামী ৭ এপ্রিল মামলার পরবর্তী শুনানির দিন ব্যাংকগুলোকে এ বিষয়ে তাদের মতামত জানাতে বলেছেন বিচারপতি কুরিয়েন যোশেফ এবং আর এফ নরিম্যানের বেঞ্চ।

বিজয় মালিয়া

মালিয়ার পাশাপাশি অর্থ ফেরত দেওয়ার কথা জানিয়েছে ইউনাইটেড ব্রুয়ারিজ এবং কিংফিশার ফিনভেস্ট। তবে ঋণের অর্থের একাংশ ফেরত দেওয়ার কথা বললেও তিনি নিজে এখনই দেশে ফিরবেন না বলে আইনজীবীর মাধ্যমে জানিয়েছেন মালিয়া।

আইনজীবীর মাধ্যমে বিজয় মালিয়া জানিয়েছেন, মিডিয়ার প্রচারের কারণে ভারতের পরিবেশ এখন তার জন্য বিপজ্জনক। উত্তরে বিচারপতিরা মালিয়ার আইনজীবী সি এস বৈদ্যনাথনকে বলেন, মিডিয়া জনস্বার্থে কাজ করেছে। পরে বৈদ্যনাথন জানান, অর্থ ফেরানোর এই প্রস্তাব নিয়ে তিনি ব্যাংকগুলোর সঙ্গে আলোচনা করবেন। বিভিন্ন পক্ষের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে আলোচনা করে এই প্রস্তাব তৈরি করা হয়েছে বলে তিনি জানিয়েছেন।

গত ৯ মার্চ ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার সুপ্রিম কোর্টে জানায়, বিভিন্ন ব্যাংকে প্রায় ৯ হাজার কোটি রুপি ঋণ রেখে দেশ ছেড়ে পালিয়েছেন মালিয়া। এরপরই আদালত মালিয়াকে দুই সপ্তাহের মধ্যে ব্যাংকগুলোর ঋণ পরিশোধের বিষয়ে তার মতামত জানাতে বলেন।

ইতোমধ্যে অ্যাটর্নি জেনারেল মুকুল রোহতগি আদালতে মালিয়ার সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করার আবেদন করেছেন। তার দাবি, বিদেশে মালিয়ার বহু সম্পদ রয়েছে। সেগুলো বিক্রি করেই ঋণ মেটানো যায়। সূত্র: দ্য টাইমস অব ইন্ডিয়া।

/এমপি/

samsung ad on Bangla Tribune

লাইভ

টপ