behind the news
Vision  ad on bangla Tribune

রোবট যখন হলিউড স্টার! (ভিডিও)

বিদেশ ডেস্ক১৮:৩৮, এপ্রিল ০৩, ২০১৬

উন্নত বিশ্বের অনেক শিশুর কাছেই অ্যানিমেটেড ফিল্ম দ্বারা অনুপ্রাণিত হয়ে কল্পনার জগতে বিচরণ করে বেড়ানো একটা সাধারণ ব্যাপার। তেমনই অন্যান্য অনেক শিশুর মতো করেই হংকংয়ের প্রডাক্ট অ্যান্ড গ্রাফিক ডিজাইনার রিকি মা-ও কার্টুন দেখতে দেখতে বড় হয়েছেন। সেসব কার্টুনে উপস্থাপিত রোবটগুলোর অ্যাডভেঞ্চার দেখতে দেখতে একদিন নিজেই রোবট তৈরি করার স্বপ্ন দেখতে থাকেন রিকি। তবে অনেকের সঙ্গে তার স্বপ্নের মিল থাকলেও অন্যদের মতোন করে ছোটবেলার স্বপ্ন ছোটবেলাতে তার উপলব্ধিতে আসেনি।

নিজের তৈরী করা রোবটের সঙ্গে রিকি-১

শৈশবের সেই সুপ্ত স্বপ্ন তার উপলব্ধিতে আসে তখন, যখন তার বয়স ৪২ বছর। হুবহু হলিউড স্টারের আদলে একটি রোবট তৈরীতে প্ররোচিত হন তিনি।

৪২ বছর বয়সে রিকি শুরু করেন মানুষের শরীরের কাঠামোর হুবহু অনুকরণে রোবট তৈরির কাজ। দেড় বছরের পরিশ্রম আর ৫০ হাজার ডলার খরচ করে রিকি নারীর আদলে একটি রোবট তৈরি করেন যা দেখতে অনেক বেশি জীবন্ত বলে মনে হয়। রিকি রোবটটির নাম দেন মার্ক ওয়ান। রোবটটি নাকি তৈরি করা হয়েছে এক হলিউড তারকার মতো করে। তবে ওই তারকার নাম প্রকাশ করেননি রিকি।

নিজের তৈরী করা রোবটের সঙ্গে রিকি-২

হাত ও পায়ের নড়াচড়ার পাশাপাশি রিকির রোবট মাথা ঘোরাতে ও নোয়াতে পারে। রোবটটির চুলগুলো ঘন ও সোনালী রংয়ের। আর তার চোখগুলো অপলক। মার্ক ওয়ান একটি ধূসর রংয়ের স্কার্ট আর একটি সাদা টপস পরিহিত।

রোবটটিকে মাইক্রোফোনের মাধ্যমে মৌখিক নির্দেশনা দিয়ে পরিচালনা করা হয়। রোবটটিকে প্রশংসা করা হলে সেটি তাতে সাড়া দেয়। কেউ যদি বলে ‘মার্ক ওয়ান, তুমি খুব সুন্দর’-তখন রোবটটি মৃদু হাসি দেয় যা দেখে প্রাকৃতিক বলে মনে হয়। কেবল তাই নয়, জবাবে এটি বলে, ‘হে হে থ্যাক ইউ’।

রিকির বানানো হলিউড স্টার-৩

সিলিকন চামড়ার তৈরি মার্ক ওয়ানের শরীরে থ্রিডি প্রিন্ট প্রযুক্তির তৈরি কঙ্কাল স্থাপিত আছে। আর এর ভেতরেই রাখা হয়েছে মেকানিক্যাল ও ইলেক্ট্রনিক অংশগুলো। রোবটটির শরীরের প্রায় ৭০ শতাংশই তৈরি হয়েছে থ্রিডি প্রিন্টিং প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে।

সেই রোবটের ভিডিও:
 
সূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া, রয়টার্স

/এফইউ/বিএ/

Global Brand  ad on Bangla Tribune

লাইভ

IPDC  ad on bangla Tribune
টপ