Vision  ad on bangla Tribune

বাংলাদেশ ব্যাংকে সাইবার ডাকাতিআরও আট লাখ ডলার ফেরত দিলেন সেই চীনা ব্যবসায়ী

বিদেশ ডেস্ক২০:০২, এপ্রিল ০৪, ২০১৬

যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক অব নিউইয়র্কে বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভের ৮১ মিলিয়ন ডলার চুরির ঘটনায় ইতিমধ্যে ওই অর্থের একাংশ ফেরত দিয়েছিলেন চীনা বংশোদ্ভূত ব্যবসায়ী কিম অং। সোমবার তিনি ফিলিপাইনের অ্যান্টি-মানি লন্ডারিং কাউন্সিলের (এএমএলসি) কাছে আরও ৮ লাখ ২৮ হাজার ৩৯২ ডলার ফেরত দেন।

অর্থ হস্তান্তরের সময় এএমএলসি-র নির্বাহী পরিচালক জুলিয়া বাকে-আবাদ, ফিলিপাইনে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত জন গোমেজ ও এএমএলসি-র সদস্য ইমানুয়েল এফ দুক উপস্থিত ছিলেন।

কিম অং

জুলিয়া বাকে-আবাদ জানান, ৫০০ এবং ১০০০ পেসোর (ফিলিপাইনের মুদ্রা) নোটে ওই অর্থ ফেরত দেওয়া হয়। অং-এর আইনজীবী ভিক্টর ফার্নান্দেজ বলেন, ‘ওই অর্থ গাও শুহুয়া ইস্টার্ন হাওয়াই এবং মাইডাস ক্যাসিনোতে সরিয়েছিল।’ তিনি আরও জানান, গাও যে অর্থ নিয়েছিলেন, আগামী ১৫ থেকে ৩০ দিনের মধ্যে অং সেখান থেকে আরও ৪৫০ মিলিয়ন পেসো জমা দেবেন।

এর আগে বৃহস্পতিবার ৪৬ লাখ ৩০ হাজার ডলার ফেরত দেন ব্যবসায়ী কিম অং। বৃহস্পতিবার তার আইনজীবী ইনোসেনসো ফেরারের মাধ্যমে তিনি নগদে এই অর্থ এএমএলসি-র কাছে হস্তান্তর করেন।

উল্লেখ্য, চলতি বছরের ৫ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশ ব্যাংকের সিস্টেম হ্যাকড করে যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংকে বাংলাদেশ ব্যাংকের অ্যাকাউন্ট থেকে হ্যাকাররা ৮১ মিলিয়ন মার্কিন ডলার অর্থ চুরি করে ফিলিপাইনের রিজাল কমার্শিয়াল ব্যাংকিং কর্পোরেশনের (আরসিবিসি) চারটি অ্যাকাউন্টে স্থানান্তর করে। সেখান থেকে ওই অর্থ ফিলিপিনো পেসোতে রূপান্তরের পর দুটি ক্যাসিনোতে পাঠানো হয়। সূত্র: ইনকোয়ারার।

/এসএ/

লাইভ

টপ