behind the news
Vision  ad on bangla Tribune

সুইজার‌ল্যান্ডে ক্ষোভমুসলিম ছাত্রীর সঙ্গে ছাত্রদের হ্যান্ডশেকে 'না'

বিদেশ ডেস্ক১৩:৩৯, এপ্রিল ০৫, ২০১৬

সুইজারল্যান্ডের উত্তরাঞ্চলের শহরের একটি স্কুলে মুসলিম ছাত্র-ছাত্রীর হ্যান্ডশেক করা নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এ বিতর্কিত নিষেধাজ্ঞার ফলে  সোমবার দেশটিতে ব্যাপক ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। বার্তা সংস্থা এএফপির বরাত দিয়ে ভারতের সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির এ খবর জানিয়েছে।
ক্যান্টন অব বাসেলের থেরউইলের উত্তরাঞ্চলের পৌরসভার একটি স্কুল এ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে। ১৪ ও ১৫ বছরের দুই ছাত্র সুইজারল্যান্ডের ঐতিহ্য শিক্ষকের সঙ্গে শিক্ষার্থীর হ্যান্ডশেক করাকে ধর্মীয় রীতি বিরোধী বলে অভিযোগ করে। তাদের দাবি যদি শিক্ষক নারী হন তাহলে ইসলামের রীতি অনুযায়ী তারা হ্যান্ডশেক করতে পারে না। দুই ছাত্র এর পক্ষে যুক্তি তুলে ধরে বলে, পরিবারের নির্দিষ্ট সদস্য ছাড়া বিপরীত লিঙ্গের সঙ্গে শারীরিক যোগাযোগে ইসলামে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে।
থেরউইল স্থানীয় কাউন্সিলের মুখপাত্র মনিকা উইস জানান,  স্কুলের সিদ্ধান্তকে কাউন্সিল সমর্থন করে না। তবে যেহেতু স্কুলগুলো নিয়ম-শৃঙ্খলা নিজেরাই ঠিক করে তাই এতে কোনও হস্তক্ষেপ করবে না কাউন্সিল।
স্কুলের এ সিদ্ধান্তে সুইজারল্যান্ডজুড়ে ক্ষোভ দানা বেঁধেছে। দেশটির আইনমন্ত্রী সিমোনেত্তা সোমারুগা সোমবার রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে বলেছেন, হ্যান্ডশেক করা সুইস সংস্কৃতির অংশ।
দেশটির বিজ্ঞান, শিক্ষা ও সংস্কৃতিবিষয়ক সংসদীয় কমিটির প্রধান ফেলিক্স মুয়েরি স্থানীয় একটি সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, সুইজারল্যান্ডে সম্মান ও ভালো উদ্দেশেই হ্যান্ডশেক করা হয়।

শিক্ষামন্ত্রী ক্রিস্টোফ আইম্যান বলেন, সরকারি কাজে পুরুষের চেয়ে নারীদের আলাদা হিসেবে বিবেচনার সিদ্ধান্ত আমরা মেনে নিতে পারি না।

স্কুলের এ সিদ্ধান্ত বাতিল করার ক্ষমতা রাখে বাসেল-কান্ট্রি ক্যান্টন। এ বিষয়ে তাদের তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

এ সিদ্ধান্ত নিয়ে বিবৃতি দিয়েছে সুইজারল্যান্ডের কেন্দ্রীয় ইসলামিক কাউন্সিল। বিবৃতিতে বলা হয়েছে, যে কেউ ভাবতে পারে সুইজারল্যান্ডের মূল সংস্কৃতির বিরোধিতা করা হচ্ছে। কিন্তু এখানে শুধু দুজন স্কুল ছাত্রের নির্দিষ্ট বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এই দুই ছাত্র তাদের শিক্ষককের সঙ্গে হ্যান্ডশেকের পরিবর্তে ভিন্নভাবে সম্বোধন জানাতে চায়।

বিবৃতিতে আরও দাবি করা হয়, ইসলামের মৌলিক নীতি ও চিন্তাবিদের মতে, নারী-পুরষের হ্যান্ডশেকে স্পষ্ট নিষেধাজ্ঞার কথা বলা হয়েছে।

তবে সুইজারল্যান্ডের ফেডারেশন অব ইসলামিক অর্গাইজেশন জানিয়েছে, ধর্মতত্ত্ব অনুসারে নারী-পুরষের হ্যান্ডশেকের অনুমোদন দেওয়ার সুযোগ আছে। অনেক মুসলমান দেশে এটা করাও হয়।

সুইজারল্যান্ডে বিষয়টিকে নিয়ে বিতর্ক তৈরি না করার আহ্বানও জানিয়েছে ফেডারেশনটি। সূত্র: এনডিটিভি।

/এএ/

Global Brand  ad on Bangla Tribune

লাইভ

টপ