behind the news
Rehab ad on bangla tribune
Vision Refrigerator ad on bangla Tribune

পানামা পেপারসবিদেশে অবৈধ ব্যবসার অভিযোগ যথার্থ নয় বলে দাবি নওয়াজপুত্রের

বিদেশ ডেস্ক১৪:৩০, এপ্রিল ০৫, ২০১৬

হুসেইন নওয়াজপাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের ছেলে হুসেইন দাবি করেছেন পানামা পেপারসের ফাঁস হওয়া তথ্য অনুযায়ী তার পরিবারের বিরুদ্ধে অর্থ লুণ্ঠন ও বিদেশে অফশোর কোম্পানি পরিচালনার যে অভিযোগ আনা হয়েছে তা ঠিক নয়।
সম্প্রতি পানামাভিত্তিক আইনি পরামর্শক প্রতিষ্ঠান মোস্যাক ফনসেকার ফাঁস হওয়া নথিতে দেখা যায়, বিশ্বের অনেক রাষ্ট্রপ্রধানের মতো পাকিস্তানি প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের পরিবারও রাষ্ট্রীয় সম্পদ লুণ্ঠনের সঙ্গে জড়িত। নথি অনুযায়ী পাকিস্তানের স্থানীয় সংবাদমাধ্যমগুলোতে বলা হয়, নওয়াজের দুই ছেলে হুসেইন ও হাসান এবং মেয়ে মারিয়াম বিভিন্ন অফশোর কোম্পানির সঙ্গে জড়িত। লন্ডনে তাদের সম্পদ রয়েছে।
আর এ তথ্য ফাঁসের পর পাকিস্তানের সরকারবিরোধী নেতাদের অনেকে নওয়াজ পরিবারের দুর্নীতির তদন্তের দাবি তোলেন। অবশ্য নওয়াজের ছেলে হুসেইনের দাবি, বিদেশে তাদের ‘ব্যবসায়িক সব কর্মকাণ্ড বৈধ’।
মোস্যাক ফনসেকা নামক আইনি প্রতিষ্ঠানটি নির্দিষ্ট ফি নেওয়ার মাধ্যমে মক্কেলদের জন্য বেনামে বিভিন্ন ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলে। এর মাধ্যমে তারা সম্পদ গোপন এবং কর ফাঁকি দিয়ে ওই অপ্রদর্শিত আয়কে বৈধ উপায়ে ব্যবহারের সুযোগ পান। মোস্যাক ফনসেকাই এসব বেনামি কোম্পানির দেখাশুনা করে থাকে। যদিও ব্রিটিশ আইল্যান্ড, পানামার মতো দেশগুলোতে বৈধ উপায়ে কর ছাড়াই ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান গড়ার সুযোগ রয়েছে, কিন্তু ফাঁস হওয়া নথিতে দেখা যায়, সেখানে কোম্পানি গঠন করা হচ্ছে প্রকৃত স্বত্বাধিকারীর পরিচয় এবং অর্থের প্রকৃত উৎস গোপন করার মাধ্যমে। 

নওয়াজের মেয়ে মারিয়াম

সম্প্রতি মোস্যাক ফনসেকার প্রায় ১১ মিলিয়ন নথিপত্র ফাঁস হয়। নথিগুলো একটি জার্মান সংবাদমাধ্যমের মাধ্যমে ইন্টারন্যাশনাল কনসোর্টিয়াম অব ইনভেস্টিগেটিভ জার্নালিস্টস (আইসিআইজে)-এর হাতে এসে পৌঁছায়। যদিও ট্যাক্স হ্যাভেনস এবং অফশোর কোম্পানিগুলো ব্যবহারের বৈধ উপায় রয়েছে তারপরও নথিতে দেখা যায়, সত্যিকারের মালিকদের পরিচয় গোপন করে এবং করফাঁকি দিতে এগুলো ব্যবহার করা হয়েছে। আইএসআইজে জানায়, হোসাইন ও মরিয়ম ২০০৭ সালের জুনে নেসকল, নিয়েলসন ও অন্য একটি কোম্পানির নামে ১৩.৮ বিলিয়ন ডলার অর্থ বিনিময়ের কাগজপত্রে স্বাক্ষর করেছেন।

পাকিস্তানের তেহরিক-ই-ইনসাফ দলের চেয়ারম্যান ইমরান খান দেশটির প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের পরিবারের সম্পদের তদন্ত করতে ন্যাশনাল অ্যাকাউন্টিবিলিটি ব্যুরোর (এনএবি) প্রতি দাবি জানিয়েছেন। ইমরান খান বলেন, ‘বেশ কিছু দেশে তদন্ত শুরু হয়েছে। অস্ট্রেলিয়া,নিউ জিল্যান্ড, সুইডেন ও ফ্রান্সসহ বিশ্বজুড়ে রাষ্ট্র প্রধান ও কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে তদন্ত হচ্ছে। তাহলে কেন পাকিস্তানে তদন্ত হবে না।’

ইমরান আরও বলেন, ‘যদি এনএবি স্বচ্ছতা নিশ্চিত করতে চায় তাহলে শরিফের পরিবারের বিরুদ্ধে দ্রুত তদন্ত শুরু করতে হবে।’

নওয়াজ শরিফের সন্তানরা কিভাবে এসব সম্পদ অর্জন করেছেন তার জবাব দিতেও আহ্বান জানান ইমরান। সূত্র: বিবিসি

/এফইউ/

Ifad ad on bangla tribune

লাইভ

Nitol ad on bangla Tribune
টপ