Vision  ad on bangla Tribune

উন্নয়নের তলায় চাপা পড়ছে প্রায় ৫০ শতাংশ বিশ্বঐতিহ্য

বিদেশ ডেস্ক২১:৪১, এপ্রিল ০৬, ২০১৬

জাতিসংঘের ইউনেস্কো ঘোষিত বিশ্বঐতিহ্যগুলোর মধ্যে প্রায় ৫০ শতাংশ এখন হুমকির মুখে। নতুন এক জরিপের বরাত দিয়ে প্রভাবশালী ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম গার্ডিয়ান এই খবর দিয়েছে।
উল্লেখ্য, জাতিসংঘের ইউনেস্কোর আওতায় ৩ টি ক্যাটাগরিতে বিশ্বঐতিহ্য চিহ্নিত করা হয়। এগুলোর মধ্যে যে স্থান শারীরিক, জৈবিক এবং ভূতাত্তিক বিবেচনায় খুবই চমৎকার এবং হুমকির মুখে থাকা প্রজাতিরা যেখানে ভালোভাবে টিকে আছে এবং যে অঞ্চল বৈজ্ঞানিক এবং নন্দনতত্ত্বের বিবেচনায় খুবই উৎসাহব্যঞ্জক সেইসব স্থানকে প্রাকৃতিক ঐতিহ্য বলা হয়। ঐতিহাসিক ভাস্কর্য ও দালানকোঠার মতো স্থাপনা যেগুলোর পুরাতাত্ত্বিক, নন্দনতাত্ত্বিক বৈজ্ঞানিক এবং নৃতাত্ত্বিক গুরুত্ব অপরিসীম সেইসব স্থাপনাকে সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য বলা হয়। আর প্রাকৃতিক ও সাংস্কৃতিক দুই ধারার ঐতিহ্যের বৈশিষ্টমণ্ডিত এ ধরনের স্থানকে বলা হয় মিশ্র ঐতিহ্য।
বিশ্বের ২২৯ টি স্থানে ইউনেস্কো ঘোষিত এমন প্রাকৃতিক ঐতিহ্য রয়েছে। এগুলোর মধ্যে ১৯৭টি কেবল প্রাকৃতিক আর বাকি ৩২টি মিশ্র ঐতিহ্য। এইসব ঐহিত্য ইউনেস্কো ঘোষিত বিশ্ব ঐতিহ্যের ৫ ভাগের এক ভাগ। ইউনেস্কো ঘোষিত বাকি চার ভাগ ঐতিহ্য মনুষ্য নির্মিত।
লিভিং প্লানিং রিপোর্ট (ডাব্লিউডাব্লিউএফ) এর ওই জরিপের বরাতে প্রভাবশালী ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান জানিয়েছে, প্রাকৃতিক ঐতিহ্যের ওই ২২৯ টি স্থানের মধ্যে হুমকির মুখে রয়েছে ১১৪ টি স্থান। জরিপে বলা হয়েছে, শিল্পায়নের দরুন সৃষ্ট জীবাশ্ম জ্বালানির কারণেই ওইসব ঐতিহ্য হুমকির মুখে পড়েছে। বৈশ্বিক উন্নয়ন নিয়ে কাজ করা প্রতিষ্ঠান ডেলবার্গ গ্লোবাল ডেভেলপমেন্ট অ্যাডভাইজার এই জরিপকাজ সম্পন্ন করেছে। জরিপের তথ্য অনুযায়ী, হুমকির মুখে পড়া ঐতিহ্যগুলোর মধ্যে রয়েছে অস্ট্রেলিয়ার গ্রেট ব্যারিয়ার রিফ, যুক্তরাষ্ট্রের গ্রান্ড ক্যানন, চীনের জায়ান্ট পাণ্ডার অভয়ারণ্য রয়েছে।
জরিপ পরিচালনাকারী প্রতিষ্ঠান ডাব্লিউডাব্লিউএফ-এর প্রধান নির্বাহী ডেভিড সুনবাউম বলেন, ‘আমাদের পৃথিবীর এই ছোট ছোট অংশগুলোর যেটুকু সুরক্ষা দরকার, তাও আমরা দিতে পারছি না। এই ঐতিহ্যগুলো পর্যটন এবং প্রাকৃতিক সম্পদের মধ্য দিয়ে আমাদের অর্থনীতিতে ভূমিকা রেখে চলেছে, লাখ লাখ মানুষের অন্ন যোগাচ্ছে এবং আমাদের জন্য সবচেয়ে জরুরি যে বাস্তুসংস্থান প্রক্রিয়া, তাকে রক্ষা করে চলেছে।’

সমালোচকরা বলেন, বিশ্বঐতিহ্য রক্ষায় যথাযথ পদক্ষেপ নিতে ব্যর্থ হয়েছে জাতিসংঘ। সূত্র: দ্য গার্ডিয়ান

/বিএ/

লাইভ

টপ