বোর্ডিং পাসে একটি অক্ষর দেখেই যাত্রী সম্পর্কে ধারণা নেন কেবিন ক্রু!

Send
জার্নি ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৬:৩২, সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৮ | সর্বশেষ আপডেট : ১৬:৪৯, সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৮

বোর্ডিং পাসের একটি অক্ষর বুঝিয়ে দেয় যাত্রীরা কোন শ্রেণিরযেকোনও ফ্লাইটের বোর্ডিং পাসে যাত্রী ও কেবিন ক্রু উভয়ের জন্য গুরুত্বপূর্ণ অনেক তথ্য উল্লেখ থাকে। এগুলো মূলত মুদ্রিত অনেক সংখ্যা, অক্ষর ও বিভিন্ন কোড। নির্ধারিত গন্তব্যে যাওয়ার ফ্লাইটের সময়সূচি, বোর্ডিং গেট ও ফ্লাইট নম্বর; সবই থাকে এই একটি কাগজে। মূলত যাত্রীরা সঠিক ফ্লাইটে উঠলেন কিনা তা নিশ্চিত হতে বোর্ডিং পাস দেখেন উড়োজাহাজের অভ্যন্তরে দায়িত্বরত কেবিন ক্রুরা। এছাড়া একটি অক্ষরের মাধ্যমে যাত্রীদের সম্পর্কে অনেক কিছু বুঝে ফেলেন তারা। এর মাধ্যমে মূলত যাত্রীরা কোন শ্রেণির ও তাদের কেমন আতিথেয়তা দিতে হবে, সেসব সম্পর্কে জানানো হয় কেবিন ক্রুকে। বেশিরভাগ যাত্রীর কাছেই এটি একটি রহস্য।  

বি, এইচ, এম, ওয়াই
যদি বোর্ডিং পাসে ইংরেজিতে এই চার অক্ষরের যেকোনও একটি উল্লেখ থাকলে বুঝতে হবে, ওই যাত্রী সাধারণ শ্রেণির। উড়োজাহাজে ইকোনমি ক্লাসের সবচেয়ে কম দামি আসনগুলোর মধ্যে একটি বরাদ্দ নিয়েছেন তিনি।

কিউ
ইকোনমি ক্লাসের যাত্রীর বোর্ডিং পাসে ‘কিউ’ শব্দটি থাকলে বোঝা যায়, বিশেষ ছাড়ে টিকিট কিনেছেন তিনি। এর অর্থ হলো, তাকে ন্যূনতম সুবিধা ছাড়া বাড়তি কিছু দেওয়া হবে না। গুরুত্ব অনুযায়ী ‘বি’, ‘এইচ’, ‘এম’, ‘ওয়াই’ অক্ষরগুলোর একধাপ নিচে ‘কিউ’র অবস্থান।

বোর্ডিং পাসে মুদ্রিত একটি অক্ষরে থাকে কয়েকটি রহস্য!
সাধারণ ও প্রথম শ্রেণির মাঝামাঝি অবস্থান করা প্রিমিয়ার ইকোনমি ক্লাসের যাত্রীদের বোর্ডিং পাসের জন্য প্রযোজ্য ‘ই’ অক্ষর। এর মাধ্যমে খাবার ও বিনামূল্যে পানীয়র মতো বাড়তি সুবিধা মেলে উড়োজাহাজে। সেক্ষেত্রে এই অক্ষর কিছুটা মূল্যবান বৈকি!

এ, এফ, পি
বোর্ডিং পাসে ‘এ’, ‘এফ’ কিংবা ‘পি’ অক্ষর থাকলে কেবিন ক্রু বুঝতে পারে, এই যাত্রী প্রথম শ্রেণির। তার জন্য আকাশপথে ভ্রমণের সময় সেরা কিছু সেবা প্রত্যাশিত।

সি, জে
বিজনেস ক্লাসের যাত্রীরা বোর্ডিং পাসে খেয়াল করলে দেখবেন, ‘সি’ কিংবা ‘জে’ অক্ষরটি রয়েছে। এর অর্থ হলো, ওই এয়ারলাইনের সঙ্গে তার ভালো যোগাযোগ থাকতে পারে। আর সম্ভবত তিনি এই আকাশযানের নিয়মিত ভ্রমণকারী।

বোর্ডিং পাসে অক্ষর দেখে কেবিন ক্রুদের বোঝানো হয় যাত্রীদের শ্রেণিবিন্যাসএসএসএসএস
ইংরেজি ‘এস’ অক্ষর বোর্ডিং পাসে চারবার একসঙ্গে থাকলে যাত্রীদের অতিরিক্ত নিরাপত্তা চেকিংয়ের মুখে পড়তে হয়। সন্দেহজনক মনে হলে মূলত এটি উল্লেখ করে দেওয়া হয়। এর অর্থ হলো ‘সেকেন্ডারি সিকিউরিটি স্ক্রিনিং সিলেকশন’। মূলত শেষ মুহূর্তে ফ্লাইটে ওঠা, ওয়ান-ওয়ে ভাড়া অথবা নগদ টাকা দিয়ে টিকিট কেনা ভ্রমণকারী বোঝানো হয় এই কোডের মাধ্যমে। কারও গন্তব্য মারাত্মক ঝুঁকিপূর্ণ দেশ হলেও এটি দেওয়া থাকে।
সূত্র: সানডে এক্সপ্রেস


/জেএইচ/
টপ