ভালোবাসার রঙ লেগেছে কক্সবাজারে

Send
আবদুল আজিজ, কক্সবাজার
প্রকাশিত : ১৭:০০, ফেব্রুয়ারি ১৪, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৭:৩৯, ফেব্রুয়ারি ১৪, ২০১৯

কক্সবাজারে তারকা মানের হোটেল ভালোবাসা দিবসে রয়েছে বিশেষ আয়োজনসাগরের ঢেউ আর ভালোবাসা মিলেমিশে একাকার। ভ্যালেন্টাইন’স ডে উদযাপনের অংশ হিসেবে কক্সবাজারে এখন পর্যটকদের উপচেপড়া ভিড়। তারকা মানের হোটেলগুলো সাজানো হয়েছে ভালোবাসার রঙে। প্রায় সব আবাসিক হোটেল-মোটেল বুকিং হয়ে গেছে। সব মিলিয়ে বিশ্বের দীর্ঘতম সমুদ্র শহর কক্সবাজারে ভালোবাসা দিবসের রঙ লেগেছে। বৃহস্পতিবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) বিপুলসংখ্যক পর্যটক আনন্দ-উচ্ছ্বাসে মেতেছেন সেখানে।

পর্যটন সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীদের আশা, সাগরপাড়ের শহরে আগামী সপ্তাহ জুড়ে তিন লাখ পর্যটকের আগমন ঘটবে। কক্সবাজার ট্যুর অপারেটর অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি এসএম কিবরিয়ার দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, ভালোবাসা দিবস উপলক্ষে ইতোমধ্যে টেকনাফ-সেন্টমার্টিন নৌ-রুটে চলাচলকারি জাহাজগুলোর টিকিট শেষ হয়ে গেছে। কক্সবাজার ছাড়িয়ে প্রবাল দ্বীপ সেন্টমার্টিনেও ভিড় করছেন তরুণ-তরণীরা।

কক্সবাজারে তারকা মানের হোটেল ভালোবাসা দিবসে রয়েছে বিশেষ আয়োজনযুগলবন্দিদের জন্য কক্সবাজারে তারকা মানের হোটেলে দেওয়া হয়েছে বাড়তি সুযোগ-সুবিধা। কক্সবাজার লং বিচ হোটেলের ব্যবস্থাপক সজীব চক্রবর্তী বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘ভালোবাসা দিবসে আমাদের হোটেল সবসময় ব্যতিক্রম আয়োজনের চেষ্টা করে। এবার আমরা খাবারকে গুরুত্ব দিয়েছি। যুগলদের জন্য খাবারের স্পেশাল অফার ঘোষণা করা হয়েছে। সব অতিথি সন্তুষ্ট হলেই আমরা সার্থক।

হোটেল সি-গার্লের সহ-ব্যবস্থাপক নূরে আলম মনে করেন, ভালোবাসা দিবসে কক্সবাজারে পর্যটকের সংখ্যা বেড়েছে নিঃসন্দেহে। আগামী কয়েকদিন এটি অব্যাহত থাকবে বলে আশা করা হচ্ছে।

কক্সবাজারে তারকা মানের হোটেল ভালোবাসা দিবসে রয়েছে বিশেষ আয়োজনকলাতলী মেরিন ড্রাইভ হোটেল মোটেল মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মুখিম খান বলেন, ‘পহেলা ফাল্গুন ও ভালোবাসা দিবসের পরপরই সরকারি দুই দিন ছুটি আছে। পরের সপ্তাহে একুশে ফেব্রুয়ারির সঙ্গে আবারও দুই দিন সাপ্তাহিক বন্ধ পাওয়া যাবে। ফলে পর্যটকদের উপচেপড়া ভিড় দেখা যাচ্ছে। সব ঠিক থাকলে এ মাসে পর্যটন ব্যবসায়ীরা ভালো ব্যবসা করতে পারবেন।’

কক্সবাজারে তারকা মানের হোটেল ভালোবাসা দিবসে রয়েছে বিশেষ আয়োজনকক্সবাজার হোটেল মোটেল ও গেস্ট হাউস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আবুল কাসেম সিকদার নিশ্চিত করেছেন, জেলার ছোট-বড়-মাঝারি সব হোটেল-মোটেল, কটেজ, রেস্টহাউস ও গেস্টহাউস বুকিং হয়ে গেছে। অনেক হোটেল-মোটেল আগামী ২১ ফেব্রুয়ারি আর্ন্তজাতিক মাতৃভাষা দিবস পর্যন্তও বরাদ্দ নিয়ে রেখেছেন পর্যটকরা।

কক্সবাজারে তারকা মানের হোটেল ভালোবাসা দিবসে রয়েছে বিশেষ আয়োজনভ্রমণপ্রেমীদের কথা মাথায় রেখে কক্সবাজারের বিভিন্ন পর্যটন স্পটে জেলা পুলিশ ও ট্যুরিস্ট পুলিশের পক্ষ থেকে নেওয়া হয়েছে কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা। কক্সবাজার ট্যুরিস্ট জোনের পুলিশ সুপার মো. জিল্লুর রহমান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘পর্যটক ও স্থানীয়রা যেন নির্বিঘ্নে চলাফেরা করতে পারেন সেজন্য পুলিশের পাশাপাশি র‌্যাব, সাদা পোশাকধারী পুলিশ নিয়োজিত রয়েছে। তাছাড়া হোটেল-মোটেলের নিরাপত্তা ব্যবস্থায় আলাদা সিভিল টিম রাখা হয়েছে। পাশাপাশি সৈকতজুড়ে বাড়তি নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে।’

/জেএইচ/
টপ