বিশ্বকাপের ফাঁকে লন্ডনের শীর্ষ ২০ আকর্ষণ

Send
জার্নি ডেস্ক
প্রকাশিত : ০০:১১, জুন ১৫, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ০০:১২, জুন ১৫, ২০১৯

ভিক্টোরিয়া অ্যান্ড আলবার্ট মিউজিয়ামযুক্তরাজ্যের ইংল্যান্ড ও ওয়েলসে চলছে আইসিসি বিশ্বকাপ। ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় টুর্নামেন্ট উপভোগ করতে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সমর্থকরা এখন সেখানে ভিড় জমিয়েছেন। খেলা দেখা ছাড়াও ইংল্যান্ডের বিভিন্ন দর্শনীয় স্থান ঘুরে দেখছেন তারা।

ইংলিশ মিডিয়া কোম্পানি টাইম আউটের ভ্রমণ গাইডে পর্যটকদের জন্য লন্ডনের শীর্ষ ২০ আকর্ষণের একটি তালিকা প্রকাশিত হয়েছে। এতে এক নম্বরে আছে বিশ্বের সবচেয়ে বড় জাদুঘর ভিক্টোরিয়া অ্যান্ড আলবার্ট মিউজিয়াম। সাত তলারও বেশি জায়গা জুড়ে বিশাল সব গ্যালারিতে কয়েক শতকের পুরনো অসংখ্য আসবাব, সিরামিকস, ভাস্কর্য, চিত্রকর্ম, পোস্টার, অলঙ্কার, মেটালের জিনিস, কাচ, টেক্সটাইলস ও পোশাক দেখা যায় সেখানে।

লন্ডনে পথে পথে রয়েছে খাবারের স্টললন্ডনের পথে পথে খাবারের স্টলগুলোকে অন্যতম আকর্ষণ মনে করছে টাইম আউট। কম খরচে সুস্বাদু ও স্বাস্থ্যসম্মত খাবারের জন্য এর জুড়ি নেই।
হাউস অব পার্লামেন্ট আছে তালিকার তিন নম্বরে। দর্শনার্থীরা ভবনটি ঘুরে বেড়ানোর পাশাপাশি ব্রিটিশ সংসদের নিম্নকক্ষ হাউস অব কমন্স ও ব্রিটিশ সংসদের উচ্চকক্ষ হাউস অব লর্ডসের অধিবেশ দেখার সুযোগ পান।

কাচের ভবন শার্ডচার নম্বরে স্থান পেয়েছে ৯৫ তলা কাচের ভবন দ্য শার্ড। লন্ডন ব্রিজের কাছে এটি অবস্থিত। এর ডিজাইন করেছেন ইতালিয়ান স্থপতি রেনজো পিয়ানো।

ব্রিটিশ মিউজিয়ামপঞ্চম স্থানে আছে পৃথিবীর গুরুত্বপূর্ণ সব ইতিহাস, শিল্প ও সংস্কৃতির ভাণ্ডার ব্রিটিশ মিউজিয়াম। এতে রয়েছে মিসরের মমি থেকে শুরু করে রোসেট্ট স্টোন, মেসোপটামিয়ান ভাস্কর্য, ইস্টার আইল্যান্ডের শিল্পকর্মসহ অনেক কিছু।

শেক্সপিয়র’স গ্লোবলন্ডনে অবস্থিত শেক্সপিয়র’স গ্লোবে মাত্র ৫ পাউন্ড প্রবেশ মূল্য দিয়েও মঞ্চনাটক উপভোগ করা যায়। ভেন্যুটি টাইম আউটের তালিকায় ছয় নম্বরে আছে। সাতে জায়গা পেয়েছে সেন্ট পলস ক্যাথেড্রাল। এর ইন্টেরিয়র এককথায় চোখধাঁধানো।

লন্ডনের বড় বড় হোটেলগুলোতে থাকলে আফটারনুন টি উপভোগ করা যায়। এটি এই শহরের অন্যতম আকর্ষণ। মঞ্চনাটকের আরেক স্থান ন্যাশনাল থিয়েটার আছে তালিকার ৯ নম্বরে। এর স্থাপত্যকে বিংশ শতাব্দীর মাস্টারপিস ভাবা হয়। ১০ নম্বরে রয়েছে টাওয়ার অব লন্ডন।

পেকহ্যামের বুসি ভবনতালিকায় ১১ থেকে ২০তম স্থানে আছে নটিং হিল কার্নিভাল, রয়েল বোটানিক গার্ডেনস, ওয়েস্টমিনস্টার অ্যাবি, ম্যারিটাইম গ্রিনউইচ, রেডচার্চ স্ট্রিট, টেট ব্রিটেন, লিবার্টি, সেন্ট জেমজে’স পার্ক, পেকহ্যামে রাতের সৌন্দর্য ও লন্ডন ট্রান্সপোর্ট মিউজিয়াম। এর মধ্যে পেকহ্যাম সপ্তাহের প্রতিদিন রাতে সরগরম থাকে।

সেন্ট পল’স ক্যাথেড্রাললন্ডনের শীর্ষ ২০ আকর্ষণ
১. ভিক্টোরিয়া অ্যান্ড আলবার্ট মিউজিয়াম
২. স্ট্রিট ফুড
৩. হাউস অব পার্লামেন্ট
৪. দ্য শার্ড
৫. ব্রিটিশ মিউজিয়াম
৬. শেক্সপিয়র’স গ্লোব
৭. সেন্ট পল’স ক্যাথেড্রাল
৮. আফটারনুন টি
৯. ন্যাশনাল থিয়েটার
১০. টাওয়ার অব লন্ডন
১১. নটিং হিল কার্নিভাল
১২. রয়েল বোটানিক গার্ডেনস, কিউ
১৩. ওয়েস্টমিনস্টার অ্যাবি
১৪. ম্যারিটাইম গ্রিনউইচ
১৫. রেডচার্চ স্ট্রিট
১৬. টেট ব্রিটেন
১৭. লিবার্টি
১৮. সেন্ট জেমজে’স পার্ক
১৯. অ্যা নাইট আউট ইন পেকহ্যাম
২০. লন্ডন ট্রান্সপোর্ট মিউজিয়াম

সূত্র: ডেইলি মেইল

/জেএইচ/
টপ