ওয়াটার এটিএম বুথে রুপি দিলে বের হচ্ছে পানীয় জল

Send
আসাদুজ্জামান সরদার, মুর্শিদাবাদ থেকে ফিরে
প্রকাশিত : ২২:২৪, জুন ২৩, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২২:২৪, জুন ২৩, ২০১৯

মুর্শিদাবাদে ওয়াটার এটিএম বুথবাংলা বিহার ও উড়িষ্যার শেষ স্বাধীন নবাব সিরাজউদ্দৌলাসহ নবাবি আমলের ঐতিহাসিক এলাকা মুর্শিদাবাদ। বাংলার নবাব মুর্শিদ কুলি খানের নামানুসারে মুর্শিদাবাদের নামকরণ হয়েছে। শুধু নবাব নয়, মীর জাফরসহ ইতিহাসের খলনায়কদের বিভিন্ন স্মৃতিচিহ্ন রয়েছে সেখানে। সেজন্য ভারতের পশ্চিমবঙ্গের এই শহরে বিভিন্ন দেশের পর্যটকদের সমাগম হয়ে থাকে।

স্থানীয় ও ভ্রমণপিপাসুদের পানীয়জলের চাহিদা মেটাতে মুর্শিদাবাদ পৌরসভার বিভিন্ন জায়গায় রয়েছে ওয়াটার এটিএম। এটি অনেকটা এটিএম বুথে কার্ড দিয়ে টাকা তোলার মতো ব্যাপার। ওয়াটার এটিএম বুথে ৫ রুপির একটি কয়েন দিলে বেরিয়ে আসে ১ লিটার পানি। এটি পরিচালনা করে মুর্শিদাবাদ পৌরসভা।

এটিএমে ৫ রুপির একটি কয়েন ঢোকানোর পর নির্ধারিত বোতাম চাপলে জল পড়তে শুরু করে। এক লিটার জল হয়ে গেলে বুথের মেশিন বন্ধ হয়ে যায়।

মুর্শিদাবাদের লালবাগের বাসিন্দা রাজু শেখ এই প্রতিবেদককে জানান, বছর দেড়েক আগে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রীর (মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়) নির্দেশনা অনুযায়ী মুর্শিদাবাদ পৌরসভার বিভিন্ন স্থানে ওয়াটার এটিএমের বসানো হয়েছে। জনসাধারণের সুবিধার্থে ও পানীয় জলের সমস্যা মেটাতে তিনি এই নির্দেশ দেন।

মুর্শিদাবাদে ওয়াটার এটিএম বুথপ্রথমে মুর্শিদাবাদ জেলার বহরমপুর পৌরসভার উদ্যোগে ওয়াটার এটিএম বসানো হয়। এখন মুর্শিদাবাদ পৌরসভায় মোট ৩০-৩৫টি ওয়াটার এটিএম আছে। এগুলোর মাধ্যমে স্থানীয়দের পাশাপাশি পর্যটকরাও উপকৃত হচ্ছেন।

লুৎফর শেখ নামে স্থানীয় একজন বাসিন্দা এটিএম বুথ থেকে নিয়মিত জল নেন। তার মন্তব্য, এখানকার জল বিশুদ্ধ। বুথ থেকে শীতল জল পাওয়া যায়। তাই প্রচন্ড দাবদাহে এটিএম থেকে ঘরের জন্য পানীয় জল নিয়ে যান তিনি। মুর্শিদাবাদের এমন অনেককে ওয়াটার এটিএম বুথ পানীয় জলের সমাধান এনে দিয়েছে।


/জেএইচ/
টপ