বেনাপোল এক্সপ্রেসের যাত্রা শুরু হতে কয়েক ঘণ্টা

Send
সেলিম রেজা, বেনাপোল
প্রকাশিত : ২৩:০৭, জুলাই ১৬, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৭:২৩, জুলাই ১৭, ২০১৯

বেনাপোল এক্সপ্রেসবেনাপোল এক্সপ্রেস ট্রেনের যাত্রা শুরু হতে যাচ্ছে বুধবার (১৭ জুলাই)। বেনাপোল-ঢাকা-বেনাপোল রুটে চলাচল করবে এই ট্রেন। আগামীকাল সকাল সাড়ে ১১টায় গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

রেলওয়ে সূত্র জানিয়েছে, ট্রেনটি দুপুর সোয়া ১টায় বেনাপোল থেকে ছেড়ে যাবে। ঢাকায় পৌঁছাতে লাগবে সাড়ে সাত ঘণ্টা। তবে এই যাত্রায় শুধু রেলওয়ের কর্মকর্তারা থাকবেন। আগামী ২৭ জুলাই থেকে যাত্রী নিয়ে ট্রেনটি যাত্রা শুরু করবে। সপ্তাহে ছয় দিন বেনাপোল থেকে দুপুর সোয়া ১টায় এটি ছাড়বে। যশোর, ঈশ্বরদী জংশন ও ঢাকা বিমানবন্দরে যাত্রী ওঠানো-নামানোর জন্য সাময়িক বিরতি দিয়ে কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে পৌঁছাবে ট্রেনটি। ঢাকা থেকে রাত সাড়ে ১২টায় বেনাপোলের উদ্দেশে ছেড়ে আসবে আন্তঃনগর ট্রেনটি।

বেনাপোল এক্সপ্রেসে রয়েছে ১২ বগি। এগুলোতে আসন ৮৯৬টি। আধুনিক এই ট্রেনের কোচগুলো (বগি) ইন্দোনেশিয়া থেকে আমদানি করা হয়েছে। এতে বিমানের মতো বায়ো-টয়লেট সুবিধা রয়েছে। ট্রেনটির নন-এসি শোভন ৪৮৫ টাকা, এসি চেয়ার ৯৩২ টাকা, এসি সিট ১ হাজার ১১৬ টাকা ও এসি কেবিনের ভাড়া ১ হাজার ৬৭৪ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। বেনাপোল রেলওয়ে স্টেশন ও যশোর রেলওয়ে জংশনের কাউন্টারে টিকিট বিক্রি হবে। আগামী ২২ জুলাই থেকে অনলাইনে এই ট্রেনের টিকিট পাওয়া যাবে। 

বেনাপোল স্টেশন মাস্টার সাঈদুজ্জামান বাংলা ট্রিবিউনকে জানান, বেনাপোল থেকে ছেড়ে ট্রেনটি অপারেশনাল স্টেশন যশোর জংশনে পৌঁছে ১৫ মিনিটের বিরতি নেবে। এ সময়ের মধ্যে রেলের ইঞ্জিন ঢাকামুখী ঘোরানো হবে। এরপর ঈশ্বরদী গিয়ে ট্রেনের চালকসহ অপারেশনাল কর্মী বদলের জন্য ১৫ মিনিটের বিরতি থাকবে। পরে ট্রেনটি ঢাকার কমলাপুর স্টেশনে শেষ গন্তব্যের উদ্দেশে ছেড়ে যাবে। এর আগে ঢাকা বিমানবন্দর স্টেশনে কিছুক্ষণের জন্য ট্রেনটি থামানো হবে।
যাত্রীদের জন্য বেনাপোল এক্সপ্রেসে দুপুরে খাওয়ার ব্যবস্থা থাকছে। পর্যটন করপোরেশন থেকে রেলওয়ে ক্যাটারিং সার্ভিসে খাবার সরবরাহ করা হবে।
বেনাপোল স্টেশন সূত্রে জানা যায়, বর্তমানে যশোর থেকে ট্রেনে চড়ে ঢাকায় পৌঁছাতে ১৪টি স্থানে বিরতি পড়ে। এ কারণে যশোর থেকে ঢাকায় পৌঁছাতে ১০ থেকে ১১ ঘণ্টা লেগে যায়। তবে বেনাপোল এক্সপ্রেস সাড়ে ৭ ঘণ্টার মধ্যে ঢাকায় পৌঁছাবে। ফলে এই রুটের যাত্রীদের জন্য ট্রেনটি সুবিধাজনক হবে বলে আশা করা হচ্ছে। লক্ষণীয় ব্যাপার হলো, দেশের বৃহত্তর স্থলবন্দর বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে প্রতিদিন ৬-৮ হাজার পাসপোর্ট যাত্রী ভারতে যাতায়াত করে থাকেন। 

/জেএইচ/
টপ