৩৪ বছর আগের ফ্রি টিকিটে ডিজনিল্যান্ড ঘুরলেন কানাডিয়ান নারী

Send
জার্নি ডেস্ক
প্রকাশিত : ২০:৩২, আগস্ট ২২, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২০:৩২, আগস্ট ২২, ২০১৯

১৯৮৫ সালে ডিজনিল্যান্ডে টামিয়া রিচার্ডসনযুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যের আনাহাইমে ১৯৮৫ সালে চালুর পর থেকে ডিজনিল্যান্ডে টিকিটের দাম থেকে শুরু করে অনেক কিছু বদলেছে। তবে একটা ব্যাপার একইরকম আছে। তা হলো ডিজনির প্রতি কানাডিয়ান নারী টামিয়া রিচার্ডসনের ভালোবাসা! তাই ১৯৮৫ সালে তার পাওয়া পুরনো ফ্রি এন্ট্রি পাসকে সম্মান জানালো পার্ক কর্তৃপক্ষ। ফলে এত বছর পর এসে সেটি দিয়ে ঘুরতে পেরেছেন তিনি।

কানাডার আলবার্টা প্রদেশের শেরউড পার্কের শহরতলী এডমন্টনের বাসিন্দা টামিয়া রিচার্ডসন। কূপনটি দিয়ে মা, খালা আর দুই মেয়ে মিয়া ও মারেনকে নিয়ে ডিজনিল্যান্ডে বেড়ানোর পরিকল্পনা করেন তিনি। টামিয়ার স্বামী কেন্ট রিচার্ডসন বলেন, ‘আমাদের পরিবারের নারীরা সবাই মিলে ডিজনিল্যান্ডে ঘুরেছে।’

১৯৮৫ সালে ১৪ বছর বয়সে ডিজনিল্যান্ডে প্রথম ঘুরতে যান টামিয়া রিচার্ডসন। ক্যালিফোর্নিয়ার আনাহাইমে পার্কটির ৩০ বছর পূর্তি ছিল ওই সময়। তখন টিকিটের মূল্য নেওয়া হতো জনপ্রতি ১৬ দশমিক ৫০ মার্কিন ডলার। এখন তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৯০ ডলার।

এ মাসে ডিজনিল্যান্ডে বিনামূল্যে ঘুরেছেন টামিয়া রিচার্ডসন (মাঝে)সিএনএন ট্রাভেলকে ডিজনির একজন মুখপাত্র জানান, ৩০ বছর পূর্তি উপলক্ষে ডিজনিল্যান্ড কর্তৃপক্ষ ‘গিফট গিভার এক্সট্রাঅর্ডিনার’ কূপন ছাড়ে। প্রতিদিন ৩০তম দর্শনার্থী এটি পেয়েছেন। টামিয়া রিচার্ডসন তাদেরই একজন। ৩০ বছর এটি তার কাছেই ছিল। অবশেষে এটি ব্যবহার করে বিনামূল্যে ঘুরেছেন তিনি।

তবে পুরনো পাস কিংবা টিকিট দিয়ে ডিজনিল্যান্ডে এখন সচরাচর ঢোকা যায় না। যেসব পাস মেয়াদোত্তীর্ণ নয়, সেগুলোই কেবল পার্কটিতে গ্রহণযোগ্য। অতীতে ডিজনি কর্মীরা কোনও পাস পরখ করার প্রয়োজন হলে ‘বুক অব লাইফ’ ব্যবহার করতো।

/জেএইচ/
টপ