প্রেম করিয়ে দিতে চীনে ভালোবাসার ট্রেন!

Send
জার্নি ডেস্ক
প্রকাশিত : ২০:২২, সেপ্টেম্বর ১৩, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২০:২২, সেপ্টেম্বর ১৩, ২০১৯

চীনে ভালোবাসার ট্রেনে যাত্রীরাদারুণ আইডিয়া আর কাকে বলে! একই ট্রেনে অচেনা সব অবিবাহিত নারী-পুরুষ ভ্রমণের সুযোগ পেলেন, যাদের প্রেমে পড়ার ইচ্ছে আছে অথবা এখনও কাঙ্ক্ষিত মানুষকে খুঁজে পাননি। তারা যেন ভালোবাসার দেখা পান সেজন্য ভূমিকা রাখছে একটি ট্রেন! তাই এর নাম রাখা হয়েছে ‘লাভ-পারস্যুট ট্রেন’। রেলগাড়িটি ‘ওয়াই৯৯৯’ নামেও পরিচিত।

চীনে অবিবাহিত মানুষের অভাব নেই! দেশটিতে ২০ কোটিরও বেশি একাকী নারী-পুরুষের বসবাস। তাদের প্রতি সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিতে লাভ ট্রেনের আইডিয়া কাজে লাগিয়েছে চীনের রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ ও ক্ষমতাসীন দলের যুব শাখা কমিউনিস্ট ইয়ুথ লিগ।

চীনে ভালোবাসার ট্রেনে যাত্রীরাপ্রায় তিন বছর আগে শুরু হওয়া উদ্যোগটির মূল লক্ষ্য একাকীত্বে ভোগা মানুষগুলোকে একই প্ল্যাটফর্মে নিয়ে আসা, যেখানে তারা ভালোবাসার মানুষকে খুঁজে পাবেন। ইতোমধ্যে একহাজারেরও বেশি নারী-পুরুষ প্রেমের দেখা পাওয়ার আশায় এতে চড়েছেন। তাদের মধ্যে ট্রেনে পরিচয়ের পর ১০ যুগল বিয়ে করেছেন।

তিন বছরে মাত্র তিনবার চলেছে ১০ বগির ট্রেনটি। গত ১০ আগস্ট চঙকিঙ নর্থ স্টেশন থেকে দুই দিনের ভ্রমণ শুরু হয়। ট্রেনটির গন্তব্য ছিল কিয়ানজিয়াঙ। একাকী মানুষগুলো যেন একে অপরের সঙ্গে সম্পৃক্ত হতে পারেন তাই বিশেষভাবে সাজানো হয়েছে এটি।

চীনে ভালোবাসার ট্রেনে যাত্রীরাভালোবাসার ট্রেনে যাত্রীদের বিভিন্ন গেমস খেলার আহ্বান জানানো হয়। সবাই যেন একে অপরের সঙ্গে পরিচিত হয় সেজন্য আয়োজকদের এই উদ্যোগ। ট্রেনের ভেতর খাবারের বিস্তৃত জায়গা রয়েছে।

এবারের যাত্রাপথে জো শুয়ে শহরে থেমেছে ট্রেনটি। এটি মূলত প্রাচীন জলশহর। এখানে ঐতিহ্যবাহী পারফরম্যান্স দেখার সুযোগ পেয়েছেন যাত্রীরা।

চীনে ভালোবাসার ট্রেনে যাত্রীরাযাত্রীদের পাশাপাশি ছিলেন চেঙদু রেলওয়ে ব্যুরোর ৭০ জন কর্মকর্তা। তারা মনে করেন, ট্রেনটি বিভিন্ন প্রান্তের মানুষের মধ্যে সেতুবন্ধন ঘটাতে কাজ করছে। ভ্রমণে তাদের একে অপরের চেনাজানা হচ্ছে। মনের মতো মানুষ না পেলেও অনেক বন্ধু তৈরি হচ্ছে এর মাধ্যমে।

চীনে ভালোবাসার ট্রেনে যাত্রীরাসূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া

/জেএইচ/
টপ