দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস শেষ হলো বিচ্ছিন্ন শিশুদের পরিবারের সঙ্গে একত্রিত করার সময়সীমা

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৬:৩২, জুলাই ২৭, ২০১৮ | সর্বশেষ আপডেট : ১৬:৪৪, জুলাই ২৭, ২০১৮

ট্রাম্প প্রশাসনের কঠোর অভিবাসীবিরোধী পদক্ষেপের কারণে পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়া ২,৫০০ শিশুকে মা-বাবা ও অভিভাবকদের সঙ্গে একত্রিত করতে ২৬ জুলাই পর্যন্ত সময় বেঁধে দিয়েছিল যুক্তরাষ্ট্রের আদালত। বৃহস্পতিবার সে সময়সীমা শেষ হয়েছে। শুক্রবার (২৭ জুলাই) এ খবরটিকে প্রধান শিরোনাম করেছে মার্কিন সংবাদমাধ্যম নিউ ইয়র্ক টাইমস।

দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমসের প্রথম পাতা
সম্প্রতি ট্রাম্প প্রশাসনের ‘জিরো টলারেন্স নীতি’র আওতায় অবৈধ অভিবাসন প্রত্যাশীদের বিরুদ্ধে শুরু হওয়া আটক অভিযান ও মামলার জেরে আড়াই হাজার শিশু পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন হয়। শিশুরা আইনের চোখে অপরাধী না হওয়ায় তাদেরকে আটক মা-বাবার কাছ থেকে বিচ্ছিন্ন করা হয়। মার্কিন অভিবাসন কর্মকর্তারা জানান,শুধু ৫ মে থেকে ৯ জুন পর্যন্ত ২ হাজার ২০৬ জন বাবা-মার কাছ থেকে ২ হাজার ৩৪২ জন শিশুকে বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে। চাপের মুখে বিচ্ছিন্নকরণ ঠেকাতে ‘পরিবারকে একত্রিত রাখা’র এক নির্বাহী আদেশ জারি করেন ট্রাম্প। তবে সেই আদেশেও আগে থেকে বিচ্ছিন্ন হওয়া দুই সহস্রাধিক শিশুর ব্যাপারে কী ব্যবস্থা নেওয়া হবে তা নিয়ে কিছু বলা হয়নি। এ পরিস্থিতিতে গত ২৬ জুন সান ডিয়াগোর ফেডারেল বিচারক ডানা সাবরাও বিচ্ছিন্ন শিশুদেরকে পরিবারের সঙ্গে একত্রিত করার জন্য ট্রাম্প প্রশাসনকে সময় বেঁধে দেন। ৫ বছরের কম বয়সী সন্তানদের পরবর্তী ১৪ দিনের মধ্যে আর তার চেয়ে বড় শিশুদের ৩০ দিনের মধ্যে পরিবারের সঙ্গে মিলিত করার নির্দেশ দেন। সে অনুযায়ী, ২৬ জুলাই শিশুদের পরিবারের সঙ্গে একত্রিত করার সময়সীমা শেষ হয়।

বৃহস্পতিবার যুক্তরাষ্ট্র সরকারের জাস্টিস ডিপার্টমেন্ট জানায়,নির্ধারিত সময়ের মধ্যে তারা সব শিশুকে পরিবারের সঙ্গে একত্রিত করতে পারেনি। ১,৮০০ জন শিশুকে পরিবারের সঙ্গে একত্রিত করতে পারার কথা জানিয়েছে প্রশাসন। এখনও পরিবার বিচ্ছিন্ন অবস্থায় আছে আরও ৭০০ শিশু। ৫ বছর ও তার চেয়ে বেশি বয়সী ১,৪৪২ শিশুকে ইউএস ইমিগ্রেশন অ্যান্ড কাস্টমস এনফোর্সমেন্টের হেফাজতে থাকা মা-বাবার কাছে ফেরত দেওয়া হয়েছে। আর ৩৭৮ জনকে ‘যথাযথ পরিস্থিতি’ বিবেচনায় নিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। তবে এখনও ৭০০ শিশুকে পরিবারের সঙ্গে একত্রিত করা যায়নি। এরমধ্যে অনেকে মা-বাবাকে বিতাড়িত করা হয়েছে। ৪৩১ শিশুর মা-বাবা যুক্তরাষ্ট্রের বাইরে আছে।

/এফইউ/

লাইভ

টপ