দ্য হিমালয়ান টাইমস নেপালে শুরু হচ্ছে বিতর্কিত এশিয়া প্যাসিফিক সম্মেলন

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ২৩:০৩, ডিসেম্বর ০১, ২০১৮ | সর্বশেষ আপডেট : ২৩:০৬, ডিসেম্বর ০১, ২০১৮

নানা বিতর্কের পর অবশেষে নেপালে শুরু হচ্ছে এশিয়া প্যাসিফিক সামিট-২০১৮। নেপালে খ্রিস্টধর্ম প্রচারের অভিযোগে বিতর্কিত দক্ষিণ কোরিয়াভিত্তিক সংগঠন ইউনিভার্সাল পিস ফেডারেশনের আয়োজনে ও নেপাল সরকারের পৃষ্ঠপোষকতায় এই সম্মেলনে প্রায় ১৫০০ অতিথি অংশ নিচ্ছেন। অতিথিদের মধ্যে আছেন মিয়ানমার নেত্রী অং সান সু চি ও কম্বোডিয়ার প্রধানমন্ত্রী হুন সেন। খবরটিকে শনিবার (১ ডিসেম্বর) প্রধান শিরোনাম করেছে নেপালের শীর্ষ ইংরেজি দৈনিক দ্য হিমালয়ান টাইমস।

অনুষ্ঠানের মিডিয়া সমন্বয়ক বিষ্ণু গিরি জানান, রবিবারের সম্মেলনে ভারতের ক্ষমতাসীন দল বিজেপির নেতা বিজয় জলি, সাবেক ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী এইচডি দেব গৌড়, পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী সৈয়দ ইউসুফ রাজা গিলানি, দ্বীপরাষ্ট্র নারাউ’র প্রেসিডেন্ট ব্যারোন ওয়াকা, ফিলিপাইনের ভাইস প্রেসিডেন্ট মারিয়া লিওনর জি রবরেদোসহ আরও বেশ কয়েকটি দেশের প্রধান সারি নেতারা। এছাড়া বিভিন্ন দেশের পার্লামেন্টের স্পিকার, পার্লামেন্টের সদস্য, ধর্মীয় নেতা, নারী নেত্রী, সংবাদমাধ্যমের প্রতিনিধি, শিক্ষক, ব্যবসায়ী, শিল্পী ও নাগরিক সমাজের সদস্যরা সম্মেলনে অংশ নেবেন।

মূল অনুষ্ঠান শুরুর আগের রাতে নেপাল সরকার সোয়ালতি রাজপ্রাসাদে বিভিন্ন রাষ্ট্র ও সরকারপ্রধানদের জন্য নৈশভোজের আয়োজন করে। অন্য অংশগ্রহণকারীদের জন্য হিয়াত রেজেন্সিতে নৈশভোজের ব্যবস্থা করা হয়। সোয়ালতিতে নেপালের সাবেক প্রধানমন্ত্রী মাধব কুমার নেপাল অতিথিদের স্বাগত জানান। আর হিয়াতে থাকা অতিথিদের স্বাগত জানান সহকারী প্রধানমন্ত্রী ও প্রতিরক্ষামন্ত্রী ঈশ্বর পোকরেল।

রবিবার সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেবেন নেপালের প্রধানমন্ত্রী কেপি শর্মা। সরকার ও আয়োজকরা দাবি করেছেন, এই সম্মেলন নেপালের পর্যটন খাতের প্রসারে সহায়তা করবে। একই সঙ্গে এ বিষয়ে নেপাল সরকারের নেতা ‘ভিজিট নেপাল ইয়ার-২০২০’ উদ্যোগেও সহায়তা করবে।

তবে এই সম্মেলনের উদ্যোগ নেওয়ার পর থেকেই নেপাল সরকারের বিরুদ্ধে সমালোচনা হচ্ছে। কারণ তারা এমন একটি বেসরকারি সংগঠনের সঙ্গে মিলে এই সম্মেলন করছে যাদের বিরুদ্ধে নেপালে খ্রিস্টধর্ম প্রচারের অভিযোগ রয়েছে। এছাড়া এই অনুষ্ঠানের পেছনে অনেক বেশি ব্যয় করা, আমন্ত্রিত অতিথিদের যাতায়াতের সুবিধার জন্য বিভিন্ন সড়কে চলাচলে বিধিনিষেধ আরোপ করা ও জোড়-বিজোড় নম্বর প্লেটের যানবাহন চলাচল বিষয়ক নীতি নিয়েও সরকার ব্যাপক সমালোচনার মুখে রয়েছে।

এমনি ক্ষমতাসীন নেপাল কমিউনিস্ট পার্টি-এনসিপি’র নেতারাও সরকারের এমন কাজের সমালোচনা করেছেন। এনসিপি নেতা ও সাবেক সহকারী প্রধানমন্ত্রী ভিম রাওয়াল এক টুইটার পোস্টে লিখেছেন, আমাদের জাতীয় স্বার্থ, কূটনৈতিক মর্যাদা ও প্রতিক্রিয়ার বিষয়গুলো কথা মনে রাখতে হবে। তিনি বলেন, শান্তির নামে এই সম্মেলনের আয়োজনকারী সংগঠনকে জনগণকে বলতে হবে যে, এত অর্থ কোথা থেকে আসছে। নইলে সরকারকে বিষয়টি তদন্ত করতে হবে এবং জানাতে হবে।

/আরএ/

লাইভ

টপ