behind the news
Vision  ad on bangla Tribune

ডনমিয়ানমারের প্রেসিডেন্ট হলেন সু চি’র বন্ধু

বিদেশ ডেস্ক১৫:৫২, মার্চ ১৬, ২০১৬

মিয়ানমারের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়েছেন দেশটির গণতন্ত্রপন্থী নেত্রী অং সান সু চির দীর্ঘদিনের বন্ধু থিন কিইউ। দেশটির এমপিরা পার্লামেন্টে ভোটাভুটির মাধ্যমে তাকে এ পদে নির্বাচিত করেছেন। পাঁচ দশকের বেশি সময়ের মধ্যে তিনিই দেশটিতে প্রথম বেসামরিক ব্যক্তি হিসেবে এ পদে আসীন হতে যাচ্ছেন। এ বিষয়টি নিয়ে বুধবার প্রধান প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে পাকিস্তানভিত্তিক সংবাদমাধ্যম ডন।

৬৯ বছর বয়সী থিন কিইউ দুই কক্ষের ৬৫২ ভোটের মধ্যে ৩৬০টি ভোট পান। তাকে বিজয়ী ঘোষণা করার সময় আইনপ্রণেতারা তুমুল করতালি দিয়ে স্বাগত জানান। প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার বিষয়টিকে সু চি’র বিজয় বলে অভিহিত করেন থিন কিইউ।

অক্সফোর্ড থেকে স্নাতক ডিগ্রিধারী ৭০ বছর বয়সী থিন কিয়াও সু চি’র ছোটবেলার বন্ধু। সুখে-দুঃখে সবসময় তিনি সু চি’র পাশে থেকেছেন। একসময় তার গাড়িও চালিয়েছেন। ২০০৮ সালে সেনাবাহিনী প্রবর্তিত সংবিধানের ধারা অনুযায়ী, স্বামী-সন্তান বিদেশি নাগরিক হওয়ায় ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্রেসির (এনএলডি) প্রধান সু চি প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হওয়ার অযোগ্য ছিলেন। তখন তিনি এ পদে বন্ধু ও কাছের মানুষ থিনকে মনোনীত করেন। ১৫ মার্চ ২০১৬ মঙ্গলবার থিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন।

বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, এর ফলে সু চি’ই দেশ শাসন করতে পারবেন। থিন মিয়ানমারের প্রখ্যাত কবি এবং প্রবীণ এনএলডি নেতা মিন থু ইউনের ছেলে। মিয়ানমারে গণতন্ত্রের আন্দোলনের সঙ্গে তিনি ওতপ্রোতভাবে জড়িত। থিনের স্ত্রী সু সু এলউইন এনএলডির সাংসদ। সু সুর বাবা একসময় দলের মুখপাত্র ছিলেন।

থিন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক। ৭০ ও ৮০-এর দশকে তিনি শিল্প ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে কর্মরত ছিলেন।

Global Brand  ad on Bangla Tribune

লাইভ

IPDC  ad on bangla Tribune
টপ