behind the news
Rehab ad on bangla tribune
Vision Led ad on bangla Tribune

ডনকোহাট জেলে দুই টিটিপি সন্ত্রাসীর ফাঁসি

বিদেশ ডেস্ক১৭:৪৭, মার্চ ৩১, ২০১৬

পাকিস্তানে নিষিদ্ধ ঘোষিত তেহরিক-ই-তালেবান পাকিস্তান (টিটিপি)’র দুই সন্ত্রাসীকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছে। গতবছর সামরিক আদালতে তাদের মৃত্যুদণ্ডের  রায় রায় দেওয়া হয়েছিল। এ বিষয়টি নিয়ে বৃহস্পতিবার শিরোনাম করেছে পাকিস্তানভিত্তিক সংবাদমাধ্যম ডন।

প্রেসিডেন্টের কাছে করা দণ্ডপ্রাপ্তদের আবেদন খারিজ হওয়ার পর বুধবার সকালে কোহাটের জেলা কারাগারে তাদের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়। এর আগে তাদের ফাঁসির পরোয়ানায় স্বাক্ষর করেন পাকিস্তানের চিফ অব আর্মি স্টাফ।

দণ্ডপ্রাপ্ত ব্যক্তিরা হচ্ছেন ওয়াজিরিস্তানের ডেলা এলাকার খাজা খানের পুত্র মেহমুদ এবং পেশোয়ারের পীর কিল্লাহ এলাকার শাহী রুমের পুত্র রাব নাওয়াজ।

২০১৫ সালের ২১ সেপ্টেম্বর তাদের শাস্তির কথা ঘোষণা করে পাকিস্তানের আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তর (আইএসপিআর)-এর গণমাধ্যম শাখা। তবে কখন এবং কোথায় এ বিচার প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে সে সম্পর্কে কিছু জানানো হয়নি।

মেহমুদ সম্পর্কে বলা হয়, তিনি তেহরিক-ই-তালেবানের একজন সক্রিয় সদস্য। খাইবার পাখতুনখাওয়া এলাকায় রকেট লাঞ্চারের সাহায্যে এবং বিস্ফোরক ডিভাইস নিয়ে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ওপর হামলায় তার সম্পৃক্ততা পাওয়া গেছে। ওই হামলায় দুই সেনার মৃত্যু হয়। আহত হন ১৩ সেনাসদস্য। অপরাধী আদালতে ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ স্বীকার করেছেন।

মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হওয়া আরেক টিটিপি সদস্য রাব নওয়াজ সম্পর্কে আইএসপিআর-এর তরফে বলা হয়, তিনিও তেহরিক-ই-তালেবান পাকিস্তান-এর একজন সক্রিয় সদস্য। তিনি দুই বেসামরিক নাগরিক হত্যায় সংশ্লিষ্ট ছিলেন।

পাকিস্তানে রাজনৈতিক সহিংসতায় তেহরিক-ই-তালেবান নামের এই দলটির উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রয়েছে। চলতি বছরের গোড়ার দিকে দলটির একাংশের নির্দেশনায় পাখতুনখোয়ার বাচা খান বিশ্ববিদ্যালয়ে রক্তক্ষয়ী হামলা চালায় জঙ্গিরা।

পাকিস্তানে দাবি, হামলায় জড়িত তেহরিক-ই-তালেবানের একাংশ আফগানিস্তান থেকে হামলার নির্দেশনা দিয়েছে এবং এ সংক্রান্ত নির্ভরযোগ্য তথ্য কাবুলের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে। পাকিস্তানের সেনাপ্রধান জেনারেল রাহেল শরীফ আফগান প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানি, প্রধান নির্বাহী আব্দুল্লাহ আব্দুল্লাহ এবং আফগানিস্তানে মার্কিন ও ন্যাটো বাহিনীর জেনারেল জন ক্যাম্পবেলকে ফোন করে আফগানিস্তান থেকে নির্দেশনা দিয়ে হামলা পরিচালনার বিষয়টি অবহিত করেন।

পাকিস্তানের সেনাপ্রধান তাদের জানিয়েছেন, আফগান নিয়ন্ত্রিত সন্ত্রাসী নেটওয়ার্কের মাধ্যমেই যে হামলাটি পরিচালনা করা হয়েছে, সে সম্পর্কে স্পষ্ট প্রমাণ রয়েছে ইসলামাবাদের হাতে। জেনারেল রাহেল হামলার হোতাদের বিচারের আওতায় এনে কঠোর শাস্তি নিশ্চিত করারও আহ্বান জানান। সূত্র: ডন।

/এমপি/

Ifad ad on bangla tribune

লাইভ

Nitol ad on bangla Tribune
টপ