ঈদ বাজার ব্র্যান্ডের শোরুমে ভিড় করছেন মিরপুরের ক্রেতারা

Send
রোকসানা রশীদ
প্রকাশিত : ১৩:০০, জুন ১২, ২০১৮ | সর্বশেষ আপডেট : ১৫:০৩, জুন ১২, ২০১৮

রাজধানীর অন্যতম জনবহুল অঞ্চল মিরপুরে জমে উঠেছে ঈদ বাজার। সাম্প্রতিক সময়ে গড়ে ওঠা মিরপুর ১ গোলচত্বরের ‘মিরপুর নিউ মার্কেট’ খুব অল্প সময়ে ক্রেতাদের কাছে কেনাকাটার প্রিয় জায়গা হয়ে উঠেছে। এছাড়াও গত বছর ঢিমেতালে সূচনা হলেও এ বছর দারুন জমজমাট মিরপুর ২, স্টেডিয়ামের বিপরীতের মিরপুর শপিং সেন্টার।


সাধারণ মানুষের নাগালের ভেতরে দেশের সব নামকরা ব্র্যান্ডের শো রুম, দেশীয় বুটিক, কসমেটিক্স, গিফট শপ ও বিভিন্ন জনপ্রিয় বিপণীবিতানের শাখা রয়েছে এসব শপিং সেন্টারে। টপ টেন, বাটা, অ্যাপেক্স, শৈশব, স্মার্টেক্স- সব একই ছাদের নিচেই পেয়ে যাবেন। ফলে পরিবারের সবার কেনাকাটা করে ফেলতে পারবেন বারতি ভোগান্তি ছাড়াই।
স্যুট, তৈরি পোশাক, শাড়ি ও কসমেটিক্সের জন্য সবার পরিচিত নাম টপ টেন। টপ টেনের একজন কর্মী জানালেন, মার্কেট চালু হওয়ার পর থেকেই তাদের কেনাবেচা ভালো যাচ্ছে। বিশেষ করে বিয়ের মৌসুমে এবং ঈদে তাদের দম ফেলার ফুসরত থাকে না।
শিশুদের ঈদের জুতা কিনতে আসা মিরপুরের স্থানীয় এক দম্পতি বললেন, ‘আগে ঘুরে ঘুরে কিনতে হতো; এখন বাটা, অ্যাপেক্স ও অন্যান্য জুতার দোকান একই শপিং সেন্টারে হওয়ায় আমাদের আর বসুন্ধরা সিটি বা নিউমার্কেট যেতে হয় না জুতা কেনার জন্য।’
মিরপুর শপিং সেন্টারে রয়েছে পার্কিং সুবিধা, ফুড কোর্ট, শিশুদের খেলার জায়গা। ফলে শিশুদের নিয়ে কেনাকাটা করতে যাচ্ছেন তাদের অভিভাবকেরা বাড়তি দুশ্চিন্তা ছাড়াই।


এছাড়া মিরপুর ১ এর সনি সিনেমা হল ও তৎসংলগ্ন ভবনগুলোতে এখন ব্র্যান্ডের শোরুমের ছড়াছড়ি। সেইলর, ও’কোড, জেন্টল পার্ক, ইয়েলো এখন মিরপুরবাসীর হাতের নাগালে।
এগুলোর বাইরে মিরপুর ১ আড়ং-এ রোজার শুরু থেকেই প্রচুর ক্রেতা সমাগম ঘটেছে। শ্যামলী থেকে আগত এক ক্রেতা জানালেন, ‘ঈদে কেনাকাটা যতই করি; উপহার দেওয়ার ক্ষেত্রে বা পাঞ্জাবি, শাড়ি ও শিশুদের পোশাকের ক্ষেত্রে আড়ং এ একবার অন্তত ঢুঁ মারতেই হয়।’
‘আড়ং বিল্ডিং’ হিসাবে পরিচিত মাল্টিপ্ল্যান রেডক্রিসেন্ট সিটিতে আরও রয়েছে গাঁও গেরাম, লা রিভ, স্মার্টেক্স, বেবিশপসহ আরও অনেক শোরুম, যেখানে রমজানের শেষ সপ্তাহে চলছে মধ্যরাত পর্যন্ত কেনাবেচা।

/এনএ/

লাইভ

টপ