খোঁপার ফুলে বৈশাখ

Send
সাদ্দিফ অভি
প্রকাশিত : ১৮:৫৯, এপ্রিল ১৪, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২০:০৫, এপ্রিল ১৪, ২০১৯

পহেলা বৈশাখ মানেই নারীর চুলে ফুলের সমারোহ। রমনা বটমূলে ছায়ানটের শিক্ষার্থীদের চুলে গোঁজা ফুল থেকে পথে ঘাটে সব স্থানেই চুলে ফুলটাই পার্থক্য করে দেয় বৈশাখ ও অন্যান্য উৎসবের। শিশুদের জন্য থাকে ফুলেল টায়রা।

এবারও তার ব্যতিক্রম হয়নি। ছায়নটের শিল্পীদের দেখা গিয়েছে লাল পাড়ের অফ হোয়াইট শাড়িতে সঙ্গে সাদার মিশেলে কচুপাতা ব্লাউজ। সঙ্গে ছিল চুলে বেলি ফুলের মালা এবং কপালে লাল টিপ, গলায় সাদা মালা। ছেলেদের দলও পরেছিল একইরকম ঘিয়ে পাঞ্জাবি গলায় কচুপাতা সবুজের কাজ করা।

ছায়ানটের আয়োজনে আগতদের সাজেও ছিল লাল-সাদার ছোঁয়া। প্রায় সব নারীর চুলেই ফুল। আর ছেলেবুড়ো সবার গালে আল্পনার ছোঁয়া ছিল চোখে পড়বার মতো।

মীনা ট্রাস্টের উদ্যোগে আয়োজিত বর্ষবরণের মঞ্চেও শিল্পীদের পরনে লাল-সাদার আধিক্যই ছিল। চুলে ফুল কপালে টিপ আগে থেকেই বাঙালি নববর্ষের বর্ষবরণের অন্যতম অনুসঙ্গ হয়ে উঠেছে।

ফুল বিক্রি প্রসঙ্গে নীলকন্ঠ ফুল ঘরের কর্নধার আতিকুল ইসলাম বলেন, এই বৈশাখে বেলি ফুলের মালা, গাজরা ও সাদা রঙের জারবারা, ডায়ান্থাস বিক্রি বেড়ে যায়। বরাবরের মতো এবারও সারারাত ধরে ফুল বিক্রি করেছেন আতিক। বৈশাখের সারাদিনও দোকান খোলা রয়েছে। ফুল কেনা বেঁচা চলছে। বিশেষ করে বেলি, রজনীগন্ধা বা গাজরা জাতীয় মালা বেশি বিক্রি হয়েছে। অন্যদিকে মাথার ফুলের টায়রা বিক্রি শুরু হয়েছে পহেলা বৈশাখ ভোর থেকে।

ছেলেরা সবাই পাঞ্জাবিতে সেজেছে। পাঞ্জাবির রঙে সাদা, লাল, সবুজ, কমলার আধিক্য পাওয়া যায়।  মাথায় গামছা বেঁধে ফ্যাশন করা ছেলেদের সংখ্যাও কম ছিল না। ছেলেরাও হাতে গালে নববর্ষ লেখা আল্পনা এঁকেছে।

বাঙালিদের মতো করে সাজবার চেষ্টা করেছে এদেশে বসবাসরত বিদেশিরা। তারাও বর্ষবরণ করতে টিএসসির মঙ্গল  শোভাযাত্রায় অংশ নিয়েছে, কেউ কেউ ভোর বেলায় ছায়ানটে গান শুনেছেন। বিদেশি নারীদের কপালে টিপ, পরনে ঢাকাই শাড়ি কিংবা চুলে ফুলের মুকুট সবার নজর কেড়েছে।

রোদের কারণে কম বেশি সবার চোখেই সানগ্লাসের আধিপত্য ছিল। মেয়েদের হাতে চুড়ি, গলায় বড় বড় মালা বেশ চোখে পড়েছে। বিশেষ করে কাঁচের চুড়ি ছিল অনেক। অনেকেই আলতা দিয়ে হাত পা রাঙিয়েছেন।

পহেলা বৈশাখে কেন লাল-সাদা শাড়ির চল হলো এ প্রসঙ্গে লোকসংস্কৃতি বিষয়ক গবেষক অনার্য তাপস বলেন,  সাদা শাড়ি লাল পাড়ের ইতিহাস আমাদের অনেক প্রাচীন। শাড়ির ইতিহাস গবেষণা করলে দেখা যায়, ৪০ এর দশকে শাড়িতে এই দুই রঙের আধিক্য ছিল। তখন অনেক রঙ বা নকশা ছিলো না। লাল রঙ তৈরি সহজ ছিল একইসঙ্গে সুতা একটিই তৈরি হতো। তাই এই সাদা শাড়ি লাল পাড় আমাদের প্রাচীনতম শাড়িগুলোর একটি। সেটিকেই সম্প্রতি কয়েক বছর ধরে  একটি ট্রেন্ড বা ফ্যাশনে পরিণত করা হয়েছে। এর পেছনে আমাদের ফ্যাশন হাউসগুলোর একটি অবদান রয়েছে বলে বলবো আমি। শুধু বাংলাদেশ নয়, পহেলা বৈশাখ নিয়ে পশ্চিমবঙ্গের ট্রেন্ডও একইরকম।

বৈশাখের সাজে বিউটি পার্লারগুলোর বিশেষ ছাড় ছিল। পহেলা বৈশাখের আগে থেকেই রূপচর্চার জন্য বেশ ভিড় দেখা যায়। আবার সকালেও চুল বাঁধা, শাড়ি পরা ও সাজের জন্য ভিড় ছিল বলে জানালেন বিন্দিয়া এক্সক্লুসিভের কর্নধার বিউটিশিয়ান শারমিন কচি। 

ছবি: নাসিরুল ইসলাম ও সাজ্জাদ হোসেন। 

নববর্ষের সব খবর পড়ুন:বর্ষবরণের রঙিন উৎসবের গল্প তাদের চোখে জানবে বিশ্ব

মঙ্গল শোভাযাত্রায় অনন্ত আকাশে মস্তক তোলার প্রত্যয়

সাক্ষীর অভাবে ঝুলে আছে বর্ষবরণে যৌন হয়রানির মামলা

উন্নয়ন-অগ্রযাত্রায় গড়ে উঠবে সমৃদ্ধ বাংলাদেশ: প্রধানমন্ত্রী 

বর্ণাঢ্য আয়োজনে খাগড়াছড়িতে চলছে সাংগ্রাই উৎসব

নানা আয়োজনে দেশজুড়ে চলছে বর্ষবরণ

এ বছর হাইকোর্টে শুরু হতে পারে রমনা বটমূলে বোমা হামলা মামলার শুনানি

মুক্তিযোদ্ধাদের নববর্ষের শুভেচ্ছা জানালেন প্রধানমন্ত্রী

‘চেতনায় বাঙালি সংস্কৃতি, উগ্রবাদ নয় সম্প্রীতি’ 

বাংলা ট্রিবিউনে প্রতিবেদন: সিলেট পুলিশের সেই নির্দেশনা প্রত্যাহার 

ভাঙা ভাঙা বাংলায় শুভ নববর্ষ  

বাঙালির উৎসবে বৈশাখী সাজে বিদেশিরা

নারীর প্রতি সহিংসতামুক্ত সমাজ গড়ার প্রত্যয় নিয়ে মীনা ট্রাস্টের বর্ষবরণ

কিছু মানুষ কি পাষণ্ড হয়ে উঠলো: সন্‌জীদা খাতুন

রাগালাপ দিয়ে শুরু ছায়ানটের বর্ষবরণ

আজ পহেলা বৈশাখ, বাঙালিয়ানায় গাঢ় হোক সম্প্রীতির বন্ধন

পহেলা বৈশাখকে ঘিরে বাড়ছে পর্যটনের সম্ভাবনা

বর্ষবরণ ও বাংলাদেশ দেখতে আসছেন ১০ দেশের ২৬ সাংবাদিক

মিঠামইনে মঙ্গল শোভাযাত্রা 

সিঙ্গা গ্রামে ভিন্ন আমেজে নববর্ষ

পাহাড়ে পাঁচন ভোজন

লোক সংস্কৃতিতে অবদানের জন্যে যশোরে তিনজনকে সম্মাননা 

 

/এফএএন/

লাইভ

টপ