behind the news
Rehab ad on bangla tribune
Vision Refrigerator ad on bangla Tribune

ঘরের সৌন্দর্যে কাঠের মেঝে

সোহেলী সায়মা সেঁজুতি১৮:৩০, অক্টোবর ২৬, ২০১৫

05বাড়ির সৌন্দর্যে মেঝের গুরুত্ব কোন অংশে কম নয়। গতানুগতিক মেঝের বাইরে বিভিন্ন নকশার মেঝে অন্দরমহলে এনে দেয় নান্দনিকতার ছোঁয়া। আধুনিকতা ও ঐতিহ্য বজায় রেখে ঘরের সাজে ব্যবহার করতে পারেন কাঠের মেঝে।

কাঠের মেঝে তৈরির কাঠ সাধারণত বিভিন্ন দেশ থেকে আনা হয়। এক্ষেত্রে জার্মানির ওক কাঠ বেশি ব্যবহৃত হয়। এছাড়া বাংলাদেশের কেরোসিন, সেগুন ও মেহগনি গাছের কাঠ দিয়েও মেঝে তৈরি করা যায়। তবে সেগুন ও মেহগনি কাঠ দিয়ে মেঝে তৈরি বেশ ব্যয় সাপেক্ষ।

04

কাঠের মেঝে দুই ধরনের হয়। আসল কাঠ এবং কৃত্রিম কাঠের টেক্সচার দেওয়া পিভিসি প্লাস্টিক বোর্ড অথবা লেমিনেটেড এইচডিএফ। দাম, স্বাচ্ছন্দ্য এবং যত্নের কথা চিন্তা করলে কৃত্রিম কাঠের টেক্সচার দেওয়া পিভিসি প্লাস্টিক বোর্ড কিংবা লেমিনেটেড এইচডিএফ ব্যবহার করাই ভালো।

বাসায় উডেন ফ্লোরের উপযুক্ত জায়গা মূলত ড্রয়িং, ডাইনিং এবং বেডরুম। যেসব জায়গায় আমরা সাধারণত কার্পেটিং করি সেখানে উডেন ফ্লোর ব্যবহার করতে পারেন। কার্পেটের মতো কাঠের মেঝে ময়লা হওয়ার ভয় থাকে না। তবে বাথরুমে উডেন ফ্লোর না করাই ভালো। কারণ পানিতে এ ধরনের মেঝে নষ্ট হয়ে যায়।  

বসার ঘরেই বেশি ব্যবহৃত হয় উডেন ফ্লোর। ড্রয়িং রুমের কোন একটি কর্নারে একটু উঁচু করে উডেন ফ্লোর ব্যবহার করতে পারেন। সেখানে পছন্দমতো সোফা বা ডিভান রাখুন। যেহেতু কাঠের মেঝে, তাই কিছু না দিয়ে শুধু কয়েকটি কুশন দিয়েও বসার ব্যবস্থা রাখতে পারেন।

01

উডেন ফ্লোরের সঙ্গে যেকোন কাঠ, বেত, রট আয়রনসহ সব ফার্নিচার মানিয়ে যায়। শুধু খেয়াল রাখুন মেঝের রঙের সঙ্গে ফার্নিচারের রঙ যেন মিলে না যায়। মেঝে এবং ফার্নিচারের রঙ হবে কন্ট্রাস্ট। তবে কাঠের মেঝে ব্যবহারে একটু সতর্ক থাকতে হয়। নিয়ম মেনে মেঝে পরিষ্কার করুন। খেয়াল রাখতে হবে যেন পানি পড়ে বা পানি জমে স্যাঁতস্যাঁতে না হয়ে থাকে মেঝে। এছাড়া কোন আঁচড় বা দাগ যেন না পড়ে সেদিকেও নজর দিন।

02

টাইলস, মার্বেল, গ্রানাইট বা মোজাইকের মেঝের চাইতে কাঠের মেঝের যত্নআত্তি একটু বেশি করতে হয়। কাঠের ফ্লোর ঝকঝকে রাখার জন্য হোয়াইট ভিনেগার ও ভেজিটেবল অয়েল একসঙ্গে মিশিয়ে ব্যবহার করুন।

02

কাঠের ফ্লোর প্রথমে ভ্যাকুয়াম ক্লিনার দিয়ে পরিষ্কার করে নিন। তার উপর ওয়্যাক্স অ্যাপ্লিকেটরের সাহায্যে উড ফ্লোর ক্লিনার লাগান। কয়েক মিনিট রাখুন। তারপর অতিরিক্ত ক্লিনার শুকনো কাপড় দিয়ে মুছে ফেলুন। ভিনেগার ও পানি একসঙ্গে মিশিয়ে ফ্লোর ক্লিনার হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন। তবে কখনোই সরাসরি উডেন ফ্লোরে এই মিশ্রণ ব্যবহার করবে না। স্পঞ্জ বা তোয়ালে মিশ্রণে ভিজিয়ে নিংড়ে নিয়ে মেঝে পরিষ্কার করতে হবে। নিয়মিত পরিচর্যায় কাঠের মেঝে বাড়িয়ে দেবে আপনার অন্দরের শোভা।

 

লেখক: ইন্টেরিওর আর্কিটেক্ট
ছবি: আর্কিডেন ইন্টিরিওর

/এনএ/

Ifad ad on bangla tribune

লাইভ

Nitol ad on bangla Tribune
টপ