behind the news
Rehab ad on bangla tribune
Vision Refrigerator ad on bangla Tribune

কাপড় গোছানোতে একটু সতর্কতা

লাইফস্টাইল ডেস্ক১৭:২৫, মার্চ ০৭, ২০১৬

কাপড়

ব্যাচেলর ছাড়া সবাই বেশ যত্নআত্তি করে রাখেন নিজের কাপড়-চোপড়। কেউ কেউ গাট্টি করে কাপড় ওয়ারড্রবে ঢুকিয়ে রাখেন। একটু কষ্ট করলেই সময় বাঁচে। বিশেষ করে যখন খুব তাড়াহুড়ো করে তৈরি হচ্ছেন সকালে, অফিসে বা ক্লাসে যাবার জন্যে। কিন্তু ড্রেসের সাথে ম্যাচিং ওড়নাটা খুঁজে পাচ্ছেন না কিছুতেই। খুঁজতে খুঁজতে যখন ১০ মিনিট লেট হয়ে গেছে আর সেই সাথে আপনার ওয়্যারড্রোবের বেশিরভাগ জামাকাপড় এলমেলো হয়ে যাওয়া সারা, ঠিক সে সময়েই ওয়্যারড্রোব এর এক কোণা থেকে বেরুলো ওড়নাটি। কিন্তু এখানেও সমস্যা। এলোমেলো করে রাখার কারণে কুঁচকে যাওয়া ওড়নাটা ইস্ত্রি না করে পরে যাওয়া এখন অসম্ভব। অগত্যা ইস্ত্রি করে আপনি যখন রেডি তখন ঘড়ির কাঁটাটা কিন্তু আপনার জন্যে আর থেমে নেই!

 প্রতিদিন যেখান থেকে যে পোশাকটা বের করে পরছেন, ফিরে এসে শুকিয়ে বা ধুয়ে সেখানেই রাখার অভ্যাস করুন।

 মাসে একবার পুরো ওয়্যারড্রোব গুছিয়ে নিন।

বর্ষাকালে কিছুদিন পর পরেই ওয়্যারড্রোবের কাপড়গুলোতে কেমন যেন ভ্যাপসা গন্ধ হয়ে যায়। তাই মাঝে মাঝে ওয়্যারড্রোব এর কাপড়গুলো বের করে রোদে শুকোতে দিন।

কাপড় বেশি গাদাগাদি করে না রেখে চেষ্টা করুন একটু ফাঁকা জায়গা বেশী রাখার। এতে কাপড় ভালো থাকবে।

প্রতিদিন যে পোশাকগুলো ব্যবহার করেন সেগুলো সামনের দিকে রাখার চেষ্টা করুন। তাহলে রোজকার ব্যবহারে সুবিধা হবে। প্রয়োজনীয় পোশাকটি খুঁজতে বেশি বেগ পেতে হবে না।

শপিং এ গেলেই একগাদা পোশাক হুট করে না কিনে এনে একটু প্ল্যান করে কিনুন। সেক্ষেত্রে শপিং এ যাবার আগে ওয়্যারড্রোব খুলে দেখে নিন আসলে কোন ধরনের পোশাকটি আপনার নেই এবং কোনটি এখন না কিনে অন্যটি দিয়ে চালিয়ে নেওয়া যাবে।

আড্ডায় যেকোন রঙের কুর্তা বা লং ফতুয়ার সাথে একটুও দেরী না করে পরে ফেলতে পারেন এগুলো!তাই ওয়্যারড্রোবে এগুলোকে একসাথে রাখুন। সময় বাঁচাতে কাজে দেবে।

 যে পোশাকগুলো আপনি সচরাচর পরেন না সেগুলোকে রাখুন ওয়্যারড্রোবের একেবারে ওপরের তাকে বা একটু ভেতরের দিকে। শাড়ী ও ব্লাউজ একসাথে রাখুন। পরার সময় অযথা খোঁজাখুঁজি করে সময় নষ্ট হবে না।

ওয়্যারড্রোবে শুকনো নিমপাতা বা ন্যাপথলিন কাপড়ের ভাঁজে ভাঁজে রেখে দিন। এতে পোকামাকড়ের আক্রমণ থেকে কাপড় বাঁচাতে পারবেন।

 জামদানী শাড়ি অন্যান্য শাড়ির নীচে ভাঁজ করে রাখবেন না। হ্যাঙ্গারে ঝুলিয়ে রাখতে ভুলবেন না।

শার্ট বা স্যুট হ্যাঙ্গারে ঝুলিয়ে রাখুন। আকার ভালো থাকবে। জিন্স না ফর্মাল প্যান্ট রাখতে পারেন ভাঁজ করেই।

পোশাকগুলো ক্যাটাগরি অনুযায়ী আলাদা আলাদা করে গুছিয়ে রাখুন। সালোয়ার কামিজ, ফতুয়া, জিন্স, পাঞ্জাবি, টিশার্ট, ঘরোয়া পোষাক গুছিয়ে রাখুন। প্রতিটি পোষাকের সেটের অংশগুলো একসাথে রাখুন। এতে একটি পোশাক পরার সময় এর সাথের অংশটি খুঁজতে পুরো আলমারি তোলপাড় করতে হবে না।

 তাড়াহুড়ো থাকলেও ময়লা বা ঘামে ভেজা কাপড় ওয়্যারড্রোবে রাখবেন না। একটি ঢাকনাযুক্ত ঝুড়ি রুমের ভেতর রেখে ময়লা কাপড় এখানে রাখতে পারেন। কারণ আপনার প্রতিদিন কাপড় ধোয়ার বা লন্ড্রিতে দেয়ার সময় নাই থাকতে পারে। তাই এতে কাপড় জমিয়ে ধুয়ে শুকিয়ে ইস্ত্রি করে ওয়্যারড্রোবে রাখলে সহজেই আপনি প্রয়োজনীয় পোষাকটি প্রয়োজনের সময় পরার উপযোগী হিসেবেই পাবেন।

/এফএএন /

Ifad ad on bangla tribune

লাইভ

Nitol ad on bangla Tribune
টপ