ম্যান বুকার জয়ী আনা বার্নসের সাক্ষাৎকার

Send
সাহিত্য ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৭:৩৩, অক্টোবর ২৪, ২০১৮ | সর্বশেষ আপডেট : ১৯:৪৮, অক্টোবর ২৪, ২০১৮

‘মিল্কম্যান’ উপন্যাসের জন্য এ বছর ম্যান বুকার পুরস্কার জিতেছেন আইরিশ লেখক আনা বার্নস। বুকারের দীর্ঘ তালিকায় স্থান পাওয়ার পর, অনুভূতি প্রকাশ করতে গিয়ে তিনি বলেছিলেন, ‘এটা অবাস্তব মনে হচ্ছে। তারপরও ব্যাপারটি সুন্দর ও আনন্দের’।

শেষ পর্যন্ত সেই অবাস্তবকেই জয় করেছেন তিনি। গত ১৬ অক্টোবর মঙ্গলবার ব্রিটিশ রাজ পরিবারের ডাচেস অব কর্নওয়াল ‘ক্যামিলা রোজমেরি’ আনুষ্ঠানিকভাবে আনা বার্নসকে এ বছরের ম্যান বুকার জয়ী ঘোষণা দেন। পুরস্কারের অর্থমূল্য ৫০ হাজার ব্রিটিশ পাউন্ড।

পুরস্কার প্রাপ্তির পর ৫৬ বছর বয়সী এই লেখক একাধিক সংবাদমাধ্যমকে সাক্ষাৎকার দেন। এসব সাক্ষাৎকারের নির্বাচিত অংশ বাংলা ট্রিবিউনের পাঠকদের জন্য প্রকাশ করা হলো :

অতীত অভিজ্ঞতা কি আপনার এই উপন্যাসকে প্রভাবিত করেছে?

হ্যাঁ। কারণ আমার বেড়ে ওঠা ছিল অবিশ্বাস, ভ্রান্তি আর হিংস্রতায় ভরা। তখন মানুষ নিজের সবটুকু দিয়ে শুধু বেঁচে থাকার লড়াই করতো। এসব অভিজ্ঞতা আমার উপন্যাসকে প্রভাবিত করেছে।

ঠিক কি কারণে আপনি উপন্যাসে কোন স্থান আর পাত্রের নাম উল্লেখ করেননি?

নাম আসলে বইকে ভারী করা ছাড়া তেমন কিছুই করে না। আর নাম অনেক কিছুই বদলে দিতে পারে, গল্পের আবহাওয়া আর প্রবাহও ভিন্ন খাতে বয়ে যেতে পারে। আমি আগেও কয়েকবার চেষ্টা করে দেখেছি, কিন্তু মনের মত ফল পাইনি। কারণ বইটি নাম সর্বস্ব কিছুই না।

ম্যান বুকার পুরস্কার পাওয়া আপনার প্রিয় উপন্যাস কোনটি?

জে.জি. ফারেল-এর ‘ট্রাবেলস’।

গত বারো মাসে প্রকাশিত বইগুলোর কোনটি আপনার সবথেকে প্রিয়?

নতুন প্রকাশিত বইগুলো স্বভাবত পড়া হয়না, কারণ আগের অনেক বই জমা হয়ে আছে। নতুনগুলো সময়মত পড়ার তালিকায় চলে আসে। তবে এই অক্টোবরে ইওন ম্যাকনামির নতুন বইয়ের প্রুফ দেখেছি। গল্পটা ক্ষয়ে যাওয়া এক সমাজ সম্প্রদায় দিয়ে গড়ে ওঠা, যা আমার ভালো লেগেছে।

লেখালেখি করতে গিয়ে সব থেকে বেশি চ্যালেঞ্জিং মনে হয়েছে কোন বিষয়বস্তুকে?

খুব বেশি বেদনাদায়ক কিছু নিয়ে লিখতে গেলে কষ্ট হয়। আমার মনে হয় শরীরে কাঁচ ফুটে গেলে যেমন যন্ত্রণা হয়, তেমন। যন্ত্রণা নিয়ে আমি লিখতে পারি না। কাঁচগুলো তুলে ফেলে লিখতে হয় আমার।

আপনার মতে সবথেকে কম গুরুত্ব পাওয়া লেখক কে?

ফিলিপ রথ।

আর সব থেকে বেশি গুরুত্ব পাওয়া লেখক কে?

আমি আসলে বলতে চাচ্ছি না।

জীবনে পাওয়া সর্বশ্রেষ্ঠ উপদেশ কি?

দয়ালু হতে হবে। আর লেখালেখির ক্ষেত্রে কোন কিছুর সাথে অন্য অনেক কিছু কিভাবে সংযুক্ত হয় তা শিখেছিলাম কোন এক আলোচনা সভায়।

রাজনৈতিক বিষয় নিয়ে লেখার ক্ষেত্রে আপনার ভাবনা কি?

এটা এমন একটি বিষয় যা নিয়ে ভাবতে গেলে আমার মাথায় কিছুই আসে না। যদি এটি মানুষের সাথে যোগাযোগ স্থাপন করে, আর মানুষের কথা বলে, তবে তাকে রাজনৈতিক আমি বলতেই পারি।  

জীবনে প্রথম কি লিখেছিলেন? কিভাবে?

ছোট বেলায় পড়তে পড়তে একদিন হুট করে মনে হলো আমিও বই লিখবো। তো আমি এক কাল্পনিক বোর্ডিং স্কুলের খুনের ঘটনা নিয়ে গল্প লিখতে শুরু করলাম । আমার স্কুলের খাতায় লেখা হয়েছিল আমার প্রথম গল্প। তবে ৩৬ বছর বয়সে এসে আমি আমার প্রথম বই লিখেছিলাম।

আপনার মতে বইয়ের সফলতা কিভাবে আসে?

আমার মতে লেখার অর্থ আর এর সংযোগের যোগ্যতাই সফলতা এনে দিতে পারে।

ছুটির দিনে কি পড়েছেন?

গত ছুটিতে পড়েছি ফিলিপ রথের ‘দ্য প্লট এগেইস্ট আমেরিকা’; ন্যন্সি মিটফোর্ড এর ‘ম্যাদাম ডি পম্পাদোর’; আলী স্মিথের ‘গার্ল মিটস বয়’; উইলিয়াম ফ্লুকনারের ‘লাইট ইন আগস্ট’ আবারো পড়েছি।

এক কথায় উত্তর দিন— ‘টনি মরিসন’ নাকি ‘ফিলিপ রথ?’

ফিলিপ রথ

‘উরসুলা কে.লি গুইন’ নাকি ‘ফিলিপ কে. ডিক?’

ফিলিপ কে. ডিক

‘কিং লেয়ার’ নাকি ‘দ্য টেম্পেস্ট’?

কিং লেয়ার

‘জ্যাক কেরুয়াক’ নাকি ‘জেমস বাল্ডউইন?’

জেমস বাল্ডউইন

‘ভার্জিনিয়া উলফ’ নাকি ‘এমিলি ডিকিনসন?’

এটা বলা মুশকিল! তবে এমিলি ডিকিনসন।

‘হ্যামিলটন’ নাকি ‘ওয়েস্ট সাইড স্টোরি?’

জানিনা। আমি কয়েন টস করে নিবো। তবে চিটিং করে হ্যামিওটন বেছে নিতে পারি।

‘লর্ড অফ রিংস’ নাকি গেম অফ থ্রোনস?

লর্ড অফ রিংস পছন্দ না। আর গেম অফ থ্রোনস সম্পর্কে জানিনা।

‘গ্যাব্রিয়েল গার্সিয়া মারকেজ’ নাকি ‘এঞ্জেলা কার্টার?’

গ্যাব্রিয়েল গার্সিয়া মার্কেজ

‘আগাথা ক্রিস্টি নাকি ‘আর্থার কোনান ডোয়েল?’

আগাথা ক্রিস্টি

‘বিয়ান্সে না বব ডিলান?’

বিয়ান্সে প্রশংসনীয়ভাবে সুপারফিট কিন্তু আমি তার গান সম্পর্কে জানিনা। আমার মনে হয় বব ডিলান।

আপনার পরবর্তী কাজ সম্পর্কে বলুন।

২০০৬-২০০৯ সালের মধ্যকার সময়টাতে আমার দ্বিতীয় বইয়ের পরে যে কাজটি শুরু করেছিলাম সেটাই ফিরে যেতে চাই, কারণ পরবর্তীতে মিল্কম্যান সহ অন্যান্য কাজে ডুবে থাকায় সময় দিতে পারি নি।

//জেডএস//

লাইভ

টপ